Daily Sunshine

বাঘায় জল-মটার চুরির অভিযোগে ৩ জনকে গাছে বেঁধে নির্যাতন

Share

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহীর বাঘায় চুরির সন্দেহে ৩ জনকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার উপজেলার মনিগ্রাম ইউনিয়নের মহদিপুর গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

নির্যাতিতরা হলেন- উপজেলার মনিগ্রাম ইউনিয়নের বারশতদিয়াড় গ্রামের টুলু হোসেনের ছেলে দুলু হোসেন (৩০), হেলালপুর গ্রামের সারাত আলীর ছেলে মাইদুল ইসলাম (৪০) ও মহদিপুর গ্রামের জান মোহাম্মদের ছেলে সহিদুল ইসলাম (৪৫)।

একই উপজেলার মহদিপুর গ্রামের আজিজুল হকের ছেলে আইয়ুব আলীর জল মটার চুরির অভিযোগে তাদের ধরে এনে নির্যাতন করা হয়।

জানা যায়, তিনদিন আগে বুধবার রাতে আইয়ুব আলীর বাড়ির আঙ্গিনায় যে জল-মটার বসানো ছিল সেটি চুরি হয়ে যায়। পরে সন্দেহজনকভাবে ওই ৩ জনকে ধরে নিয়ে গিয়ে নির্যাতন করা হয়।

এদিকে নির্যাতনের বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ যায়। স্থানীয়ভাবে মিমাংসার কথা বলায় সেখান থেকে চলে আসে পুলিশ। পরে ইউনিয়ন পরিষদে তাদের নেওয়া হয়। সেখানেও কোন সমাধান দিতে পারেননি চেয়ারম্যান। যার ফলে সন্দেহভাজন ৩ জনকে মটার মালিকের জিম্মায় দেওয়া হয়। বিকেল ৫টা পর্যন্ত তারা মটার মালিকের জিম্মায় ছিলেন বলে জানা গেছে।

মটার মালিক জানান, সহিদুল নামের একজন চুরির সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। এজন্য থানায় অভিযোগ করবেন তিনি।

বাঘা থানার ডিউটি অফিসার মাহফুজুর রহমান জনান, এ বিষয়ে কোন অভিযোগ পাননি।

মনিগ্রাম ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম বলেন, দুপুরে স্থানীয় মাধ্যমে বিষয়টি জানার পর চৌকিদার পাঠিয়ে আমার কার্যালয়ে আনা হয়। সমাধান করতে না পারায় তাদেরকে মটার মালিকের জিম্মায় দিয়েছেন। পরে কি হয়েছে তা জানেন না তিনি।

বাঘা থানার ওসি নজরুল ইসলাম জানান, এ বিষয়ে তারা অভিযোগ করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সানশাইন/২৪ এপ্রিল/রনি

এপ্রিল ২৪
২০:২৬ ২০২১

আরও খবর