Daily Sunshine

যে কারণে ফ্লাইট বন্ধের সিদ্ধান্ত বেবিচকের

Share

সানশাইন ডেস্ক : বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) সকালে যুক্তরাজ্য থেকে আসা দুই শতাধিক যাত্রী হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বাগবিতণ্ডা শুরু করেন। তারা কোনোভাবেই কোয়ারেন্টিনে যাবেন না জানিয়ে শুরু করেন চিৎকার, অবস্থান নেন হেলথ ডেস্কের সামনে। যাত্রীদের এমন আচরণে বিব্রত অবস্থায় পড়েন বিমানবন্দরের কর্মকর্তারা। তিন ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে তাদের বোঝানোর চেষ্টা করেন স্বাস্থ্যকর্মী ও বিমানবন্দরের কর্মকর্তারা। যাত্রীদের কোয়ারেন্টিনে পাঠানো নিয়ে প্রায়ই এমন পরিস্থিতিতে পড়তে হচ্ছে স্বাস্থ্যকর্মী ও বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের।

বিমানবন্দরে প্রবাসীদের বাগবিতণ্ডার মধ্যেই শেষ নয়। কেউ কেউ আবার কোয়ারেন্টিনে সেন্টার থেকে পালিয়ে বাড়িতে চলে গেছেন। এমন পরিস্থিতিতে ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলো থেকে যাত্রী পরিবহন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। যেসব দেশ করোনা সংক্রমণে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠবে সেসব দেশ থেকে ফ্লাইট বন্ধের সিদ্ধান্ত নেবে বেবিচক।

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন এএইচএম তৌহিদ-উল আহসান বলেন, ‘প্রায় সময়ই যাত্রীদের কোয়ারেন্টিনে পাঠানো নিয়ে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে হয়। এমন এক অবস্থার তৈরি হয় যে অনেকে বিমানবন্দরে ভাঙচুর করার চেষ্টা করেন। তাদের সামলানো, কোয়ারেন্টিনে পাঠানো নিয়ে বারবার বোঝালেও অনেকেই মানতে চান না।’

যুক্তরাজ্য থেকে আসা যাত্রীদের ১৪ দিন বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনের নির্দেশ দিয়েছে সরকার। তবে সরকার নিয়ন্ত্রিত কোয়ারেন্টিন সেন্টারে থাকতে অনাগ্রহ প্রকাশ করেন অনেক প্রবাসী। তারা কোয়ারেন্টিন সেন্টারের মান নিয়েও প্রশ্ন তোলেন। পরবর্তীতে সরকার ২৫টি হোটেল নির্ধারণ করে, যেখানে প্রবাসীরা নিজ খরচে কোয়ারেন্টিনে থাকতে পারবেন। তবে সেখান থেকেও পালিয়ে বাড়িতে গেছেন প্রবাসীরা।

জানা গেছে, ৩১ মার্চ কোয়ারেন্টিন থেকে পালিয়ে যাওয়ায় যুক্তরাজ্য প্রবাসী দুই জনকে সাত দিনের কারাদণ্ডসহ ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়। তারা সিলেটের হোটেল স্টার প্যাসিফিকে কোয়ারেন্টিনে ছিলেন। দুই জনই ব্রিটিশ পাসপোর্টধারী বাংলাদেশি। কোয়ারেন্টিনে থাকাকালীন করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন তারা। কিন্তু রিপোর্ট আসার আগেই তারা হোটেল থেকে পালিয়ে যান। ২২ মার্চ যুক্তরাজ্য থেকে তারা দেশে এসেছিলেন।

এর আগে গত ২০ মার্চ সিলেটের হোটেল ব্রিটানিয়া থেকে এক পরিবারের ৯ সদস্য কোয়ারেন্টিন থেকে পালিয়ে গ্রামের বাড়ি চলে যান। ১৮ মার্চ যুক্তরাজ্য থেকে সিলেটে আসেন মা ও ছেলে। কোয়ারেন্টিনে থাকার জন্য তারা লা ভিস্তা হোটেলে ওঠেন। তবে দুই দিন পরেই সেই হোটেলে অর্ধশতাধিক মেহমান দাওয়াত করে বিয়ে করেন সেই ছেলে।

বেবিচকের এক কর্মকর্তা বলেন, যাত্রীরা দেশে এসে ঠিকভাবে কোয়ারেন্টিন পালন করলে ফ্লাইট বাতিল করার প্রয়োজন হতো না। বেশিরভাগ যাত্রী প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে যেতে চান না। তারা বলেন হোম কোয়ারেন্টিনে যাবেন। কিন্তু আমরা অতীতেও দেখেছি হোম কোয়ারেন্টিন কোনও প্রবাসী মানেননি। ফলে ফ্লাইট বাতিল করা ছাড়া বিকল্প কোনও সমাধান নেই সংক্রমণ প্রতিরোধে।

যুক্তরাজ্যসহ ইউরোপের দেশগুলোতে করোনাভাইরাসের নতুন ধরন শনাক্ত হলে সারা বিশ্বে নতুন করে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) কর্মকর্তারা সমাধানের পথ খুঁজে না পাওয়া পর্যন্ত সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে ভ্রমণ সীমাবদ্ধ রাখার পরামর্শ দেন। বাংলাদেশও সতর্কতা হিসেবে যুক্তরাজ্য থেকে আসা যাত্রীদের কোয়ারেন্টিন বাধ্যতামূলক করা হয়।

এ বছর ১ জানুয়ারি থেকে যুক্তরাজ্য থেকে আসা যাত্রীদের সঙ্গে করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট থাকলেও ১৪ দিন বাধ্যতামূলক করা হয় প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন। পরবর্তীতে ১৫ জানুয়ারি যুক্তরাজ্য থেকে আসা যাত্রীদের ১৪ দিনের পরিবর্তে চার দিন কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়। এরপর তৃতীয় দফায় নিয়ম বদলালো যুক্তরাজ্য থেকে আসা যাত্রীদের কোয়ারেন্টিনে পদ্ধতিতে। ২৪ জানুয়ারি থেকে চার দিনের পরিবর্তে সাত দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকার নিয়ম করা হয়।

সর্বশেষ দেশে করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতিতে সংক্রমণ রোধে ২৯ মার্চ দুই সপ্তাহের জন্য ১৮ দফা নির্দেশনা দেয় সরকার। সেখানে বলা হয়, বিদেশ থেকে আগত যাত্রীদের ১৪ দিন বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। যদিও পরের দিন ৩০ মার্চ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) শুধু যুক্তরাজ্যসহ ইউরোপের যেকোনও দেশ থেকে বাংলাদেশে এলে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে বলে নির্দেশনা জারি করে, যা ৩১ মার্চ থেকে কার্যকর হয়।

তবে আবারও সিদ্ধান্ত বদলায় বেবিচক। ৩১ মার্চ আবার নতুন নির্দেশনা জারি করা হয়। সেখানে বলা হয়, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় যুক্তরাজ্য ছাড়া ইউরোপের সব দেশ এবং ভিন্ন আরও ১২ দেশ থেকে যাত্রী পরিবহন নিষিদ্ধ। ১২টি দেশ হচ্ছে, আর্জেন্টিনা, বাহরাইন, ব্রাজিল, চিলি, জর্ডান, কুয়েত, লেবানন, পেরু, কাতার, সাউথ আফ্রিকা, তুরস্ক, উরুগুয়ে। ৩ এপ্রিল থেকে ১৮ এপ্রিল পর্যন্ত এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর থাকবে।

এ প্রসঙ্গে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ(বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান বলেন, ‘বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ঝুঁকিপূর্ণ দেশের তালিকা অনুসরণ করেই যাত্রী পরিবহনের নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। পরিস্থিতি ভালো হলে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হবে। আবার অন্য দেশগুলোর পরিস্থিতির অবনতি হলে সেখানে ফ্লাইট কমানো কিংবা নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হতে পারে।’

যুক্তরাজ্যকে নিষেধাজ্ঞার বাইরে রাখা প্রসঙ্গে মো. মফিদুর রহমান বলেন, ‘বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে সেখানে (ইউকে) অবস্থার উন্নতি হচ্ছে। তাছাড়া দেশটিতে আমাদের দেশের অনেক নাগরিকও থাকেন। এই বিবেচনায় আমরা ইউকেকে বাদ দিয়েছি।’

 

সানশাইন/০২ এপ্রিল/রনি

এপ্রিল ০২
১৯:৪৭ ২০২১

আরও খবর

Subcribe Youtube Channel

বিশেষ সংবাদ

লকডাউনে খোলা থাকবে শিল্প কারখানা

লকডাউনে খোলা থাকবে শিল্প কারখানা

করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আগামী বুধবার থেকে কঠোর লকডাউনে জরুরি সেবা ছাড়া সবকিছু বন্ধ রাখার পরিকল্পনা করেছিল সরকার। তবে বাধ সাধেন তৈরি পোশাকশিল্প মালিকেরা। তাঁরা দাবি করেন, কারখানা বন্ধ করলে ক্রয়াদেশ হারাবে বাংলাদেশ। তা ছাড়া শ্রমিকেরা ছুটিতে গ্রামের বাড়ির দিকে রওনা দিলে সংক্রমণ আরও ছড়াবে। ভার্চ্যুয়াল মাধ্যমে আজ রোববার বেলা তিনটায়

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

৫২ হাজার শুন্যপদের তালিকা প্রকাশ করলো এনটিআরসিএ

৫২ হাজার শুন্যপদের তালিকা প্রকাশ করলো এনটিআরসিএ

বেসরকারি স্কুল,কলেজ,মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এন্ট্রি লেভেলে ৫৪ হাজার ৩০৭ টি পদে শিক্ষক নিয়োগে তৃতীয় গনবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগের দ্বায়িত্বে থাকা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এনটিআরসিএ।মঙ্গলবার ৩০ মার্চ এ গনবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়।আগামী ৪ এপ্রিল সকাল ১০ টা থেকে ৩০ এপ্রিল রাত ১২ টা পর্যন্ত অনলাইনে আবেদন করা যাবে। তবে

বিস্তারিত