Daily Sunshine

পরিচয়ের ফাঁদে ফেলা প্রতারক চক্রের গ্রেফতার ৪

Share

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী জেলার গোদাগাড়ী উপজেলা থেকে আব্দুল হক (৪৩) রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (রামেক) এসেছিলেন তার অসুস্থ চাচাকে দেখতে। এসময় হাসপাতালে নার্গিস নাহার ওরফে হেলেন নামের ৫৫ বছরের এক নারী আব্দুল হককে ডেকে বলেন, ‘আপনাকে অনেক পরিচিত লাগছে। মোবাইল নম্বরটা দিবেন?’। আব্দুল সরল বিশ্বাসে তার মোবাইল নম্বলটা হেলেনকে দেন। ১৯ নভেম্বর এই ঘটনার পর ২০ নভেম্বর বেলা ১০টা থেকে হেলেন আব্দুলকে ফোন করা শুরু করেন। বেলা ১২টার দিকে আব্দুল ফোন রিসিভ করলে হেলেন তাকে জরুরী ভিত্তিতে নগরীর উপকন্ঠ বায়া এলাকায় দেখা করতে অনুরোধ করেন।

দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে আব্দুল অটোতে করে বায়া বাজার এলাকায় পৌছালে সেখান থেকে এক অজ্ঞাত যুবক তাকে অন্য আরেকটি অটোতে করে নিয়ে যায়। এসময় আব্দুলকে কৌশলে পবা থানাধীন চৌবাড়িয়া গ্রামের একটি বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। আব্দুল ঘরে প্রবেশ করতেই হেলেন ঘরের দরজা বন্ধ করে দেয়। এরপর ঘরে আগে থেকেই ওঁৎ পেতে থাকা তিনজন যুবক আব্দুলকে লাঠি দিয়ে এলোপাথারি মারতে শুরু করে এবং তাকে নগ্ন করে ভিডিও করে ও ছবি তোলে। এসময় হেলেন আব্দুলকে ব্লাকেমেইল করে পকেটে থাকা ২০ হাজার টাকা কেড়ে নেয়। এর মাঝে আব্দুলের স্ত্রী রহিমা বেগমের মোবাইল নম্বর নিয়ে ঘটনাস্থল থেকে এক যুবক রহিমাকে ফোন করে নিজেকে ডিবি পরিচয় দেয় এবং ৩০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি কনে। অন্যথায় আব্দুলকে হেরোইন দিয়ে মাদক মামলায় ফাঁসিয়ে দেয়া হবে।

আব্দুলের স্ত্রী ভয়ে আব্দুলের মোবাইল নম্বরে ২০ হাজার টাকা বিকাশ করেন। পরে এই চক্রটি ওই টাকা ক্যাশ আউট করে নেয় ও দুইজন যুবক একটি টিভিএস মোটরসাইকেল (রাজ মেট্রো হ ১১-১৩৯০) করে আব্দুলকে কর্ণহার থানাধীন করমজা মোড়ে নিয়ে নামিয়ে দিয়ে দ্রুত সরে পড়ে। এসময় আব্দুল ওই চক্রাটির মোটরসাইকেল নম্বরও কৌশলে দেখে নেয়।

ঘটনার পর ২১ তারিখ পাবা থানায় আব্দুল মামলা করেন। এরপর পবা থানার ওসির নেতৃত্বে ২২ তারিখ ভোর সোয়া ৪টার দিকে পবা থানাধীন চৌবাড়িয়া গ্রামের ওই বাড়ি থেকে হেলেনকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর হেলেনের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে তার সহযোগী রফিকুল ইসলাম (৩০), আতিকুর রহমান বাপ্পী (২৮) ও হামিম আল ফজলে নুর ওরফে শুভ্রকে (২৮) গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত চার জনের মধ্যে নার্গিস নাহার হেলেন (৫৫) পবা থানাধীন চৌবাড়িয়া গ্রামের ইউসুফ আলী মাস্টারের স্ত্রী। রফিকুল ইসলাম (৩০) নওদাপাড়া এলাকার মৃত আব্দুল সামাম তালেবের ছেলে। আতিকুল রহমান বাপ্পী (২৮) বোয়ালিয়া থানাধীন অলকার মোড় এলাকার আমিনুর রহমানের ছেলে। হামিম আল ফজলে নুর শুভ্র (২৮) নামোভদ্রা হযোর মোড় এলাকার মৃত শফিকুল আলম শরিফুলের ছেলে। এদের প্রত্যেকেই শিক্ষিত ঘরের সন্তান বা স্ত্রী। এদের মধ্যে হেলেন ও শুভ্রর নগরীতে নিজেদের তিনতলা বাড়িও রয়েছে। এদিকে গ্রেফতারকৃত তিন যুবকদের বিরুদ্ধে চন্দ্রিমা থানায় দুইটি ও পবা থানায় একটি করে মোট তিনটি মামলা রয়েছে। আর এই মামলাগুলোও অপহরণ সংশ্লিষ্ট অপরাধের মামলা।

এবিষয়ে আরএমপি কমিশিনার কার্যালয়ে রবিবার বিকেলে সংবাদ সম্মেলন করেন কমিশনার আবু কালাম আজাদ। তিনি এই তথ্যগুলো নিশ্চিত করে জানান, এই চক্রের সাথে আর কারা জড়িত তা খতিয়ে দেখতে আদালতের মাধ্যমে আসামীদের বিরুদ্ধে রিমান্ড আবেদন করা হবে।

 

সানশাইন/২২ নভেম্বর/রনি

নভেম্বর ২২
১৮:৫৮ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

শীতের আমেজে আহা…ভাপা পিঠা

শীতের আমেজে আহা…ভাপা পিঠা

রোজিনা সুলতানা রোজি : প্রকৃতিতে এখন হালকা শীতের আমেজ। এই নাতিশীতোষ্ণ আবহাওয়ায় ভাপা পিঠার স্বাদ নিচ্ছেন সবাই। আর এই উপলক্ষ্যটা কাজে লাগচ্ছেন অনেক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী। লোকসমাগম ঘটে এমন মোড়ে ভাপা পিঠার পসরা সাজিয়ে বসে পড়ছেন অনেকেই। ভাসমান এই সকল দোকানে মৃদু কুয়াশাচ্ছন্ন সন্ধ্যায় ভিড় জমাচ্ছেন অনেক পিঠা প্রেমী। রাজশাহীর বিভিন্ন

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

৭ ব্যাংকের সমন্বিত নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত

৭ ব্যাংকের সমন্বিত নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত

সানশাইন ডেস্ক: সাত ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার পদের সমন্বিত নিয়োগ পরীক্ষা (২০১৮ সালভিত্তিক) স্থগিত করা হয়েছে। আগামী ৫ ডিসেম্বর রাজধানীর ৬৭টি কেন্দ্রে এ পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল। শনিবার (২৮ নভেম্বর) ব্যাংকার্স সিলেকশন কমিটির (বিএসসি) সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। যে সাতটি ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষার স্থগিত করা হয়েছে সেগুলো হলো হলো—সোনালী

বিস্তারিত