Daily Sunshine

দেশি মাছের উৎপাদন বাড়াতে ২০২ কোটি টাকার প্রকল্প

Share

সানশাইন ডেস্ক : দেশি মাছের উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য ২০২ কোটি টাকার একটি প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে সরকার।

মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রকল্পটি অনুমোদন দেওয়া হয় বলে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান জানিয়েছেন।

রাজধানীর শেরে বাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত একনেক সভা পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন।

দেশে মাছের চাহিদা পূরণ করতে দেশি মাছ এবং জলজ প্রাণি রক্ষা করতে বৈঠকে ‘দেশীয় প্রজাতির মাছ এবং শামুক সংরক্ষণ ও উন্নয়ন’ শীর্ষক প্রকল্পটি অনুমোদন দেওয়া হয়।

দেশি মাছের উৎপাদন বাড়ানোর উদ্দেশ্যেই এই প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে বলে জানান পরিকল্পনামন্ত্রী।

দুই দশক আগেও বাংলাদেশের গ্রামের হাট-বাজারে দেশি মাছের রমরমা ছিল, এখন সেখানে পাওয়া যায় চাষের রুই-কাতলা, পাঙ্গাস ও তেলাপিয়া।

দুই দশক আগেও বাংলাদেশের গ্রামের হাট-বাজারে দেশি মাছের রমরমা ছিল, এখন সেখানে পাওয়া যায় চাষের রুই-কাতলা, পাঙ্গাস ও তেলাপিয়া।
এ সময় মন্ত্রীর অনুরোধে পরিকল্পনা কমিশনের কৃষি, পানি সম্পদ ও পল্লী প্রতিষ্ঠান বিভাগের সদস্য মো. জাকির হোসেন আকন্দ প্রকল্প সম্পর্কে আলোচনা করেন।

তিনি বলেন, দেশের দক্ষিণ ও মধ্যপশ্চিম অঞ্চলের খাল বিল, প্লাবনভূমি, নদী ও বাঁওড় সমৃদ্ধ অঞ্চল যেখানে অধিকাংশ জলাশয় বছরের চার থেকে আট মাস পর্যন্ত এবং কিছু জলাশয়ে সারা বছর পানি থাকে। এসব এলাকায় দেশীয় প্রজাতির মাছের বংশ বিস্তার ও বৃদ্ধির উপযোগী পরিবেশ থাকায় এক সময় দেশি কৈ, শিং, মাগুর, শোল, টাকি, রয়না, সরপুঁটি এবং টেংরা ও বাইনসহ আরও অনেক ধরনের মাছে ভরপুর ছিল। কিন্তু খাল বিল, নদী নালা ভরাট, বেশি হারে মাছ ও শামুক ধরা, কীটনাশক ব্যবহার, অপরিকল্পিত বেড়িবাঁধ নির্মাণ এবং জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারণে দেশীয় মাছ ক্রমেই হ্রাস পাচ্ছে। অথচ জনসংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে চাহিদা বাড়ছে। তাই দেশীয় মাছের উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে এই প্রকল্পটি গ্রহণ করা হয়।

তিনি বলেন, প্রকল্প এলাকায় অভ্যন্তরীণ জলাশয়ের মাছের উৎপাদন ৪ লাখ ৪৬ হাজার টনে উন্নীত করা হবে। বর্তমানে দেশীয় মাছ উৎপাদন হচ্ছে ৩ লাখ ৮৩ হাজার টন।

প্রতিমন্ত্রী মান্নান বলেন, এই প্রকল্পটি নতুন হিসেবে গ্রহণ করা হয়েছে। বৈঠকে আরও তিনটি প্রকল্পের সংশোধনী অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। সব মিলিয়ে এই চার প্রকল্পের জন্য ৬৩৪ কোটি ৩৪ লাখ টাকার ব্যয় অনুমোদন করা হয়েছে। এরমধ্যে ৯৩ কোটি ৪০ লাখ টাকা প্রকল্প সহায়তা থেকে পাওয়া যাবে। বাকি ব্যয় সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে যোগান দেওয়া হবে।

সানশাইন/১৫ সেপ্টেম্বর/ রোজি

সেপ্টেম্বর ১৫
২০:২১ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

ডিগ্রী থাকলেও মিলছেনা যোগ্য চাকরি

ডিগ্রী থাকলেও মিলছেনা যোগ্য চাকরি

শাহ্জাদা মিলন: বাংলাদেশের অন্যতম বিভাগীয় শহর রাজশাহী। সিল্কসিটি, আমের রাজধানী হিসেবে পরিচিত সারা দেশে রাজশাহী। তবে এসব পরিচয় ছাপিয়ে রাজশাহী ‘শিক্ষা নগরী’ হিসেবে সবচেয়ে বেশি পরিচিত। অসংখ্য নামিদামি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে এখানে। এর সুফলে রাজশাহীতে বছর বছর বাড়তে ডিগ্রিধারী মানুষের সংখ্যা। তবে সেই অনুপাতে বাড়ছে না কর্মসংস্থান। রাজশাহীতে রয়েছে রাজশাহী

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সানশাইন ডেস্ক : করোনা মহামারিতে সাধারণ ছুটিতে স্বাভাবিক জীবনযাত্রার সঙ্গে স্থগিত ছিল সরকারি-বেসরকারি চাকরির নিয়োগ প্রক্রিয়া। এ কয়েক মাসে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পায়নি দেশের শিক্ষিত বেকার জনগোষ্ঠী। অংশ নিতে পারেনি কোনো নিয়োগ পরীক্ষাতেও। অনেকেরই বয়স পেরিয়ে গেছে ৩০ বছর। স্বাভাবিকভাবেই সরকারি চাকরির আবেদনে সুযোগ শেষ হয়ে যায় তাদের। তবে এ দুর্যোগকালীন

বিস্তারিত