Daily Sunshine

বাগমারায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ ১৯শ’ কৃষক পেলেন সবজি বীজ

Share

স্টাফ রিপোর্টার : চলতি অর্থবছরে (খরিপ-২ মৌসুমে) বন্যার ক্ষয়ক্ষতি পুষিয়ে নিতে রাজশাহীর বাগমারায় এক হাজার নয় শত ক্ষতিগ্রস্থ ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে শাক ও সবজির বীজ বিতরণ করা হয়েছে। সোমবার বেলা ১১ টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে শাক ও সবজি বীজ বিতরণের উদ্বোধন করেন রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার শরিফ আহম্মেদের সভাপতিত্বে এবং কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার সাইফ আব্দুল্লাহর পরিচালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা কৃষি অফিসার রাজিবুর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অনিল কুমার সরকার, ভবানীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আব্দুল মালেক মন্ডল, বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ আতাউর রহমান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান আসাদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মমতাজ আক্তার বেবী, উপজেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি মতিউর রহমান টুকু, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ গোলাম সারওয়ার আবুল প্রমখ।

এদিকে প্রতি স্বল্প মেয়াদি পরিকল্পনায় সবজি আবাদের জন্য ৫০ গ্রাম লালশাক, ৫০ গ্রাম ডাটাশাক, ৫০ গ্রাম কলমীশাক, ১০০ গ্রাম মূলাশাক, ৫০ গ্রাম পুঁইশাক, ১০০ গ্রাম পালংশাক এবং মধ্যমেয়াদি পরিকল্পনায় সবজি আবাদের জন্য ৩ গ্রাম শসা, ৫ গ্রাম মিষ্টি কুমড়া, ১০ গ্রাম করলা, ২ গ্রাম মরিচ, ১০ গ্রাম বরবটি, ৫০ গ্রাম শিম এর বীজ সরবরাহ করা হয়। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানাগেছে, এ মৌসুমে উপজেলার ১৬টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভায় এক হাজার নয় শতজন কৃষককের মাঝে বিনামূল্যে শক ও সবজির বীজ বিতরণ করা হয়েছে।

সানশাইন/১৪ সেপ্টেম্বর/এমওআর

 

সেপ্টেম্বর ১৪
১৪:০৬ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

আঁকাআঁকি থেকেই তন্বীর ‘রংরাজত্ব’

আঁকাআঁকি থেকেই তন্বীর ‘রংরাজত্ব’

আসাদুজ্জামান নূর : ছোটবেলা থেকেই আঁকাআঁকির প্রতি নেশা ছিল জুবাইদা খাতুন তন্বীর। ক্লাসের ফাঁকে, মন খারাপ থাকলে বা বোরিং লাগলে ছবি আঁকতেন তিনি। কারও ঘরের ওয়ালমেট, পরনের বাহারি পোশাক ইত্যাদি দেখেই এঁকে ফেলতেন হুবহু। এই আঁকাআঁকির প্রতিভাকে কাজে লাগিয়েই হয়েছেন ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা। তুলির খোঁচায় পরিধেয় পোশাকে বাহারি নকশা, ছবি, ফুল

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

জোরালো হচ্ছে সরকারি চাকরিতে ‘বয়সসীমা’ বাড়ানোর দাবি

জোরালো হচ্ছে সরকারি চাকরিতে ‘বয়সসীমা’ বাড়ানোর দাবি

সানশাইন ডেস্ক : সর্বশেষ ১৯৯১ সালে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানো হয়। এরপর অবসরের বয়স বাড়ানো হলেও প্রবেশের বয়স আর বাড়েনি। বেকারত্ব বেড়ে যাওয়া, সেশনজট, নিয়োগের ক্ষেত্রে দীর্ঘসূত্রতা, অন্যান্য দেশের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে চাকরিতে প্রবেশের সর্বোচ্চ বয়স বাড়ানোর দাবিতে আন্দোলন করে আসছেন শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীরা। তবে এ বিষয়ে উদ্যোগ নেয়নি

বিস্তারিত