Daily Sunshine

রাজশাহী অঞ্চলে করোনায় দুই মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৭০

Share

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার বিভাগের চাঁপাইনবাবগঞ্জে তারা মারা গেছেন। এ দিন নতুন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ৭০ জন। রোববার বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. গোপেন্দ্রনাথ আচার্য্য এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, বিভাগে এ পর্যন্ত করোনায় ২৬৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে সর্বোচ্চ ১৬০ জনের মৃত্যু হয়েছে বগুড়ায়। এছাড়া
রাজশাহীতে ৪২ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ১৪ জন, নওগাঁয় ১৭ জন, নাটোরে আটজন, জয়পুরহাটে ছয়জন, সিরাজগঞ্জে ১২ জন এবং পাবনায় ৯ জন মারা গেছেন।

শনিবার বিভাগে শনাক্ত হওয়া নতুন ৭০ জন করোনা রোগীর মধ্যে ৩০ জনের বাড়ি বগুড়া। এছাড়া রাজশাহীতে ১২ জন, নাটোরে
একজন, জয়পুরহাটে একজন, সিরাজগঞ্জে দুইজন এবং পাবনায় ২৪ জন শনাক্ত হয়েছেন।

বিভাগে এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৮ হাজার ৩৩৮ জন। এর মধ্যে সর্বোচ্চ ৬ হাজার ৯১৩ জন শনাক্ত হয়েছেন বগুড়ায়। এছাড়া রাজশাহীতে ৪ হাজার ৬৫০ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৭১৭ জন, নওগাঁয় এক হাজার ১৮১ জন, নাটোরে ৮৬৮, জয়পুরহাটে ৯৭৯, সিরাজগঞ্জে ১ হাজার ৯৮৬ জন এবং পাবনায় এক হাজার ৪৪ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন।

শনিবার বিভাগে সুস্থ হয়েছেন ১৫৯ জন করোনা রোগী। এর মধ্যে ৫৭ জনের বাড়ি সিরাজগঞ্জ। এছাড়া রাজশাহীর ৪০ জন, নাটোরের ১৬ জন, বগুড়ার ৪১ জন এবং পাবনায় পাঁচজন করোনা জয় করেছেন।

বিভাগে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৩ হাজার ৮৭৮ জন। এর মধ্যে রাজশাহীর ৩ হাজার ৩৮৬ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৫৫১ জন, নওগাঁর এক হাজার ৪৮ জন, নাটোরের ৬৬৫ জন, জয়পুরহাটের ২২৯ জন, বগুড়ার ৫ হাজার ৮৮৩ জন, সিরাজগঞ্জের এক হাজার ২১৩ জন এবং পাবনার ৯০৩ জন করোনামুক্ত হয়েছেন।

সানশাইন/০৬ সেপ্টেম্বর/এমওআর

সেপ্টেম্বর ০৬
১৫:১২ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

আঁকাআঁকি থেকেই তন্বীর ‘রংরাজত্ব’

আঁকাআঁকি থেকেই তন্বীর ‘রংরাজত্ব’

আসাদুজ্জামান নূর : ছোটবেলা থেকেই আঁকাআঁকির প্রতি নেশা ছিল জুবাইদা খাতুন তন্বীর। ক্লাসের ফাঁকে, মন খারাপ থাকলে বা বোরিং লাগলে ছবি আঁকতেন তিনি। কারও ঘরের ওয়ালমেট, পরনের বাহারি পোশাক ইত্যাদি দেখেই এঁকে ফেলতেন হুবহু। এই আঁকাআঁকির প্রতিভাকে কাজে লাগিয়েই হয়েছেন ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা। তুলির খোঁচায় পরিধেয় পোশাকে বাহারি নকশা, ছবি, ফুল

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

জোরালো হচ্ছে সরকারি চাকরিতে ‘বয়সসীমা’ বাড়ানোর দাবি

জোরালো হচ্ছে সরকারি চাকরিতে ‘বয়সসীমা’ বাড়ানোর দাবি

সানশাইন ডেস্ক : সর্বশেষ ১৯৯১ সালে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানো হয়। এরপর অবসরের বয়স বাড়ানো হলেও প্রবেশের বয়স আর বাড়েনি। বেকারত্ব বেড়ে যাওয়া, সেশনজট, নিয়োগের ক্ষেত্রে দীর্ঘসূত্রতা, অন্যান্য দেশের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে চাকরিতে প্রবেশের সর্বোচ্চ বয়স বাড়ানোর দাবিতে আন্দোলন করে আসছেন শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীরা। তবে এ বিষয়ে উদ্যোগ নেয়নি

বিস্তারিত