Daily Sunshine

দেশে সর্বোচ্চ সিসি’র মোটরসাইকেল তৈরি করলো রানার

Share

সানশাইন ডেস্ক : বাংলাদেশের প্রথম মোটরসাইকেল প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান রানার অটোমোবাইলস লিমিটেড সম্প্রতি সবচাইতে বেশি সিসি’র মডেল নিয়ে বাজারে নিয়ে এসেছে।

সম্প্রতি ‘বোল্ট ১৬৫ আর’ ১৬৫ সিসির মোটরসাইকেল বাজারজাত শুরু করেছে প্রতিষ্ঠানটি। ১৬৫ সিসি রেসিং ইঞ্জিন ক্ষমতা সম্পন্ন ‘বোল্ট ১৬৫ আর” মোটরসাইকেলে রয়েছে ডুয়েল ডিস্ক ব্রেক, ডি আর এল যুক্ত সম্পূর্ণ এল ই ডি হেডলাইট ও টেইল লাইট, ইউ এস ডি সাসপেনশন, সম্পূর্ণ ডিজিটাল স্পিডোমিটার, ১৩০ সেকশনের রেয়ার টায়ারসহ আরো অত্যাধুনিক সব ফিচার, যা বাংলাদেশের মোটরসাইকেল প্রেমীদের প্রিমিয়াম মানের মোটরসাইকেল কিনতে আরো আগ্রহী করবে।

আধুনিক ও রূচিশীল ডিজাইনের এই বাইকটির দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ১ লাখ ৬৯ হাজার টাকা। নগদ অর্থে কিংবা ক্রেডিট কার্ড ক্রয়ে মিলবে ১৪ হাজার টাকার ছাড়। এছাড়া থাকছে সর্বোচ্চ ২৪ মাস পর্যন্ত সর্বনিম্ন ১% হারে সহজলভ্য কিস্তির সুবিধা।

রানার অটোমোবাইলস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রিয়াজুল হক চৌধূরী জানান, এক্সপোর্ট কোয়ালিটির প্রতিটি রানার মোটরসাইকেলের সঙ্গে আরো থাকছে ৬ বছরের ওয়ারেন্টি, ৯টি ফ্রি সার্ভিস, ১ লাখ টাকা পর্যন্ত ইন্স্যুরেন্স সুবিধা। এছাড়া সারা দেশে ২০০টিরও বেশি পয়েন্টে সার্ভিসিংয়ের সুযোগ।

উল্লেখ্য, জন্ম থেকেই বাংলাদেশি খ্যাত রানার অটোমোবাইলস লিমিটেড ইতিমধ্যে বেশ সুনামের সঙ্গে প্রথম বাংলাদেশি মোটরসাইকেল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে নেপালের বাজার মোটরসাইকেল রপ্তানি করছে। খুবই স্বল্প সময়ে নেপালের বাজারে একটি জনপ্রিয় ব্র্যান্ড হিসেবে পরিচিত হয়েছে রানার।

সানশাইন/২৭ আগস্ট/এমওআর

আগস্ট ২৭
১৩:৪১ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

আলোকিত সিটি পেয়েছেন মহানগরবাসী

আলোকিত সিটি পেয়েছেন মহানগরবাসী

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী মহানগরীর শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান চত্বরে দাঁড়িয়ে আছে মাস্তুল আকৃতির মজবুত দুইটি পোল। প্রতিটি পোলের উপর রিং বসিয়ে তার চতুরদিকে বসানো হয়েছে উচ্চমানের এলইডি লাইট। আর সেই লাইটের আলোয় আলোকিত বিস্তৃত এলাকা। শুধু শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান চত্বর নয়, এভাবে মহানগরীর আরো গুরুত্বপূর্ণ ১৪টি চত্বর আলোকিত হয় প্রতি

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সানশাইন ডেস্ক : করোনা মহামারিতে সাধারণ ছুটিতে স্বাভাবিক জীবনযাত্রার সঙ্গে স্থগিত ছিল সরকারি-বেসরকারি চাকরির নিয়োগ প্রক্রিয়া। এ কয়েক মাসে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পায়নি দেশের শিক্ষিত বেকার জনগোষ্ঠী। অংশ নিতে পারেনি কোনো নিয়োগ পরীক্ষাতেও। অনেকেরই বয়স পেরিয়ে গেছে ৩০ বছর। স্বাভাবিকভাবেই সরকারি চাকরির আবেদনে সুযোগ শেষ হয়ে যায় তাদের। তবে এ দুর্যোগকালীন

বিস্তারিত