Daily Sunshine

এবার মানস সরোবর ও কৈলাস পর্বতে নজর চীনের

Share

সানশাইন ডেস্ক : সংঘাত কমার বদলে ক্রমেই যেন বেড়ে চলেছে। লাদাখ সীমান্তে আগে থেকেই চীনা অনুপ্রবেশ ঘটেই আছে। যদিও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বারবার দাবি করেছেন, কেউ ঢুকতে পারেনি ভারতের ভূখণ্ডে। কিন্তু উপগ্রহ চিত্রে বারবার সেই ছবি প্রকাশ্যে এসেছে। এবার সংঘাতের সুর আরও কয়েকগুণ বাড়িয়ে হিন্দুদের অন্যতম তীর্থক্ষেত্র মানস সরোবর ও কৈলাস পর্বতের কাছে সেনা মোতায়েন শুরু করল চীন।

ভারতীয় গণমাধ্যমের দাবি, শুধু তাই নয়, সেনার মোতায়েন করার পাশাপাশি সেখানে ক্ষেপণাস্ত্রও বসিয়েছে লাল ফৌজ। উপগ্রহ চিত্রে ধরা পড়েছে সেই দৃশ্য। তাতেই দেখা মিলেছে, গত এপ্রিল থেকে ওই এলাকায় যে নির্মাণ কাজ শুরু করেছিল চীন, তা শেষ হয়েছে। প্রতিবছর বহু ভারতবাসী কৈলাস ও মানস সরোবরে তীর্থ করতে যান। সেই এলাকাই যেন এখন যুদ্ধক্ষেত্র হয়ে উঠেছে। হিন্দুদের ধর্মীয় স্থানকেও ছাড় দেয়নি চীনা সেনা।

চীনের নজর এবার কৈলাসে। কৈলাস পর্বতের আশপাশেই মিসাইল মোতায়েন করছে চীন (ঈযরহধ)। সেই উদ্দেশ্যে একাধিক নির্মাণও করছে তারা। সম্প্রতি এক উপগ্রহ চিত্রে (ঝধঃবষষরঃব ওসধমব) এমনই ছবি উঠে এসেছে। কৈলাস পর্বত, মানস সরোবর ও সংলগ্ন এলাকাগুলো হিন্দু ও বৌদ্ধ ধর্মালম্বীদের কাছে পবিত্র পীঠস্থান। প্রতি বছর বহু ধর্মপ্রাণ মানুষ এই এলাকাগুলোতে তীর্থ করতে যান। আসেন পর্যটকরাও। কিন্তু ক্রমশ এই তীর্থস্থানকে রণাঙ্গনে পরিণত করছে চীন।

প্রসঙ্গত, লাদাখ ও ফাইভ ফিঙ্গার নিয়ে চীনের সঙ্গে ভারতের টানাপোড়েন চলছেই। এমন পরিস্থিতিতে লিপুলেখ এলাকায় ভারতের রাস্তা তৈরির পদক্ষেপ বিতর্কে ঘি ঢেলেছে। তবে ১৭ হাজার ফুট উঁচুতে ভারতের এই ৮০ কিলোমিটারের স্ট্র্যাটেজিক রোড মানস সরোবর, কৈলাস পর্বত, গৌরীকুণ্ড ও রাক্ষসতালের পথ সুগম করেছে। এরপরই কৈলাস সংলগ্ন চীনের এলাকায় ব্যাপক নির্মাণকাজ শুরু করে চীন। যার মূল উদ্দেশ্য লালফৌজকে ঘাঁটি গাড়তে সাহায্য করা। সূত্র : এই সময় ও সংবাদ প্রতিদিন।

সানশাইন/২৩ আগস্ট/তীর্থস্থান হয়ে উঠছে যুদ্ধক্ষেত্র, এবার মানস সরোবর ও কৈলাস পর্বতে নজর চীনের
অনলাইন ডেস্ক

ঈঁৎৎবহঃষু ০/৫




গড় রেটিং: ০/৫ (০ টি ভোট গৃহিত হয়েছে)
তীর্থস্থান হয়ে উঠছে যুদ্ধক্ষেত্র, এবার মানস সরোবর ও কৈলাস পর্বতে নজর চীনের
সংঘাত কমার বদলে ক্রমেই যেন বেড়ে চলেছে। লাদাখ সীমান্তে আগে থেকেই চীনা অনুপ্রবেশ ঘটেই আছে। যদিও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বারবার দাবি করেছেন, কেউ ঢুকতে পারেনি ভারতের ভূখণ্ডে। কিন্তু উপগ্রহ চিত্রে বারবার সেই ছবি প্রকাশ্যে এসেছে। এবার সংঘাতের সুর আরও কয়েকগুণ বাড়িয়ে হিন্দুদের অন্যতম তীর্থক্ষেত্র মানস সরোবর ও কৈলাস পর্বতের কাছে সেনা মোতায়েন শুরু করল চীন।

ভারতীয় গণমাধ্যমের দাবি, শুধু তাই নয়, সেনার মোতায়েন করার পাশাপাশি সেখানে ক্ষেপণাস্ত্রও বসিয়েছে লাল ফৌজ। উপগ্রহ চিত্রে ধরা পড়েছে সেই দৃশ্য। তাতেই দেখা মিলেছে, গত এপ্রিল থেকে ওই এলাকায় যে নির্মাণ কাজ শুরু করেছিল চীন, তা শেষ হয়েছে। প্রতিবছর বহু ভারতবাসী কৈলাস ও মানস সরোবরে তীর্থ করতে যান। সেই এলাকাই যেন এখন যুদ্ধক্ষেত্র হয়ে উঠেছে। হিন্দুদের ধর্মীয় স্থানকেও ছাড় দেয়নি চীনা সেনা।

চীনের নজর এবার কৈলাসে। কৈলাস পর্বতের আশপাশেই মিসাইল মোতায়েন করছে চীন (ঈযরহধ)। সেই উদ্দেশ্যে একাধিক নির্মাণও করছে তারা। সম্প্রতি এক উপগ্রহ চিত্রে (ঝধঃবষষরঃব ওসধমব) এমনই ছবি উঠে এসেছে। কৈলাস পর্বত, মানস সরোবর ও সংলগ্ন এলাকাগুলো হিন্দু ও বৌদ্ধ ধর্মালম্বীদের কাছে পবিত্র পীঠস্থান। প্রতি বছর বহু ধর্মপ্রাণ মানুষ এই এলাকাগুলোতে তীর্থ করতে যান। আসেন পর্যটকরাও। কিন্তু ক্রমশ এই তীর্থস্থানকে রণাঙ্গনে পরিণত করছে চীন।

প্রসঙ্গত, লাদাখ ও ফাইভ ফিঙ্গার নিয়ে চীনের সঙ্গে ভারতের টানাপোড়েন চলছেই। এমন পরিস্থিতিতে লিপুলেখ এলাকায় ভারতের রাস্তা তৈরির পদক্ষেপ বিতর্কে ঘি ঢেলেছে। তবে ১৭ হাজার ফুট উঁচুতে ভারতের এই ৮০ কিলোমিটারের স্ট্র্যাটেজিক রোড মানস সরোবর, কৈলাস পর্বত, গৌরীকুণ্ড ও রাক্ষসতালের পথ সুগম করেছে। এরপরই কৈলাস সংলগ্ন চীনের এলাকায় ব্যাপক নির্মাণকাজ শুরু করে চীন। যার মূল উদ্দেশ্য লালফৌজকে ঘাঁটি গাড়তে সাহায্য করা।

সূত্র : এই সময় ও সংবাদ প্রতিদিন।

সানশাইন/২৩ আগস্ট/ রোজি

আগস্ট ২৩
২০:৩০ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

ডিগ্রী থাকলেও মিলছেনা যোগ্য চাকরি

ডিগ্রী থাকলেও মিলছেনা যোগ্য চাকরি

শাহ্জাদা মিলন: বাংলাদেশের অন্যতম বিভাগীয় শহর রাজশাহী। সিল্কসিটি, আমের রাজধানী হিসেবে পরিচিত সারা দেশে রাজশাহী। তবে এসব পরিচয় ছাপিয়ে রাজশাহী ‘শিক্ষা নগরী’ হিসেবে সবচেয়ে বেশি পরিচিত। অসংখ্য নামিদামি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে এখানে। এর সুফলে রাজশাহীতে বছর বছর বাড়তে ডিগ্রিধারী মানুষের সংখ্যা। তবে সেই অনুপাতে বাড়ছে না কর্মসংস্থান। রাজশাহীতে রয়েছে রাজশাহী

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সানশাইন ডেস্ক : করোনা মহামারিতে সাধারণ ছুটিতে স্বাভাবিক জীবনযাত্রার সঙ্গে স্থগিত ছিল সরকারি-বেসরকারি চাকরির নিয়োগ প্রক্রিয়া। এ কয়েক মাসে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পায়নি দেশের শিক্ষিত বেকার জনগোষ্ঠী। অংশ নিতে পারেনি কোনো নিয়োগ পরীক্ষাতেও। অনেকেরই বয়স পেরিয়ে গেছে ৩০ বছর। স্বাভাবিকভাবেই সরকারি চাকরির আবেদনে সুযোগ শেষ হয়ে যায় তাদের। তবে এ দুর্যোগকালীন

বিস্তারিত