Daily Sunshine

এন্ড্রু কিশোরের জন্য প্রার্থনা ও স্মরণসভা

Share

স্টাফ রিপোর্টার : প্লেব্যাক জগতে এক অনন্য নাম এন্ড্রু কিশোর। এদেশে সবচেয়ে বেশি গানের প্লেব্যাক শিল্পী তিনি। দেখতে না দেখতেই তার মৃত্যুর চল্লিশ দিন পার হতে চললো। এ উপলক্ষে গুণী এই শিল্পীর আত্মার শান্তি কামনায় প্রার্থনা ও স্মরণ সভার আয়োজন করে তার পরিবার।

আজ শুক্রবার বিকেলে প্লেব্যাক সম্রাটের জন্য প্রার্থনা করতে রাজশাহীর স্থানীয় চার্চে একত্রিত হয়েছিলেন এন্ড্রু কিশোরের পরিবার, তার আত্মীয় স্বজন ও রাজশাহী শহরের সংগীতপ্রেমীরা। রাজশাহীর কেন্দ্রীয় গির্জার হল রুমে প্রিয় প্রর্থনা অনুষ্ঠিত হয়।

প্রার্থনা পর্ব পরিচালনা করেন আশীষ মণ্ডল। প্রার্থনা সংগীত পরিবেশন করেন লরেন্স মণ্ডল ও তার দল। বাইবেল পাঠ করেন অভ্র ওশান। শাস্ত্রলোচনা করেন মি. বাসিত হেমব্রম।

স্মৃতিচারণ পর্ব পরিচালনা করেন নোয়েল পার্থ। এন্ড্রু কিশোরকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন ছেলে সপ্তক এন্ড্রু, ছন্দা চ্যাটার্জী, মিনতি বিশ্বাস, মোমিন বিশ্বাস, সাবিনা আনজুম শাপলা প্রমুখ। বাবা এন্ড্রু কিশোরকে নিয়ে তৈরি করা একটি স্লাইড শো প্রদর্শন করেন তার মেয়ে সংজ্ঞা এন্ড্রু।

প্রসঙ্গত, গত বছরের সেপ্টেম্বর থেকে ক্যান্সারে (নন-হজকিন লিম্ফোমা) আক্রান্ত হয়ে সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন ছিলেন এন্ড্রু কিশোর। ৯ মাস পর সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন এন্ড্রু কিশোর ১১ জুন রাত আড়াইটার একটি বিশেষ ফ্লাইটে দেশে ফেরেন। তারপর ঢাকার বাসায় বেশকিছু দিন অবস্থান করে শরীরের অবস্থা বিবেচনায় ও কোলাহলমুক্ত থাকতে রাজশাহী চলে আসেন।

তারপর থেকে সেখানে তার বোনের বাসা সংলগ্ন ক্লিনিকেই ছিলেন। সবাইকে কাঁদিয়ে ৬ জুলাই না ফেরার দেশে চলে গেছেন গানের মহারাজ।

সানশাইন/১৪ আগস্ট/এমওআর

আগস্ট ১৪
১৯:৫১ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

ডিগ্রী থাকলেও মিলছেনা যোগ্য চাকরি

ডিগ্রী থাকলেও মিলছেনা যোগ্য চাকরি

শাহ্জাদা মিলন: বাংলাদেশের অন্যতম বিভাগীয় শহর রাজশাহী। সিল্কসিটি, আমের রাজধানী হিসেবে পরিচিত সারা দেশে রাজশাহী। তবে এসব পরিচয় ছাপিয়ে রাজশাহী ‘শিক্ষা নগরী’ হিসেবে সবচেয়ে বেশি পরিচিত। অসংখ্য নামিদামি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে এখানে। এর সুফলে রাজশাহীতে বছর বছর বাড়তে ডিগ্রিধারী মানুষের সংখ্যা। তবে সেই অনুপাতে বাড়ছে না কর্মসংস্থান। রাজশাহীতে রয়েছে রাজশাহী

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সানশাইন ডেস্ক : করোনা মহামারিতে সাধারণ ছুটিতে স্বাভাবিক জীবনযাত্রার সঙ্গে স্থগিত ছিল সরকারি-বেসরকারি চাকরির নিয়োগ প্রক্রিয়া। এ কয়েক মাসে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পায়নি দেশের শিক্ষিত বেকার জনগোষ্ঠী। অংশ নিতে পারেনি কোনো নিয়োগ পরীক্ষাতেও। অনেকেরই বয়স পেরিয়ে গেছে ৩০ বছর। স্বাভাবিকভাবেই সরকারি চাকরির আবেদনে সুযোগ শেষ হয়ে যায় তাদের। তবে এ দুর্যোগকালীন

বিস্তারিত