Daily Sunshine

রামেক হাসপাতালে ৫ দিন পর ফের করোনা পরীক্ষা শুরু

Share

স্টাফ রিপোর্টার : করোনার নমুনা পরীক্ষায় আবারও চালু হয়েছে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের পিসিআর ল্যাব। টানা ৫ দিন বন্ধ থাকার পর হাসপাতালের বহির্বিভাগের মলিক্যুলার বায়োলজি ল্যাবটি সচল হয়েছে শনিবার দিবাগত রাত ২টার দিকে। ওই রাতেই ৯৮ নমুনা পরীক্ষায় ১৮টিতে করোনা শনাক্ত হয়েছে।

রামেক হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি জানান, নতুন শনাক্তদের মধ্যে ১০ জন রামেক হাসপাতালের রোগী ও চিকিৎসক। এছাড়া তিনজন পুলিশ সদস্য, দুইজন র্যাব সদস্য, নগরীর দুই এলাকার দুইজন এবং জেলার দুর্গাপুর উপজেলার দুইজন রয়েছেন। ল্যাবটিতে গত এক সপ্তাহ ধরে নমুনা পরীক্ষা ঠিকমতো হচ্ছিল না।

এর আগে গত ৩১ জুলাই পিসিআর মেশিনের ত্রুটির কারণে ৯৪টি নমুনার সবগুলোর রিপোর্টই করোনা পজিটিভ আসে। পিসিআর মেশিনে ত্রুটির কারণে এমনটি হয়েছে ধরে নিয়ে সে ফলাফল আর ঘোষণা করা হয়নি। এরপর ১ ও ২ আগস্ট নমুনা পরীক্ষা করা হয়। কিন্তু পরে আবারও ত্রুটি দেখা দেয় মেশিনে। এরপর থেকে মেশিনের ত্রুটি সারানোর কাজ চলছিল।

হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস বলেন, পিসিআর মেশিনে ত্রুটি দেখা দিয়েছিল। বার বার নমুনা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছিল মেশিনটি ঠিকমতো কাজ করছিল কি না। অবশেষে ত্রুটি সারানো গেছে।

রামেক হাসপাতালের ল্যাবে একসঙ্গে ১৮৮টি নমুনা পরীক্ষার সক্ষমতা রয়েছে। রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ভাইরোলজি বিভাগের ল্যাবেও ১৮৮টি নমুনা পরীক্ষা করা যায়। হাসপাতালে নমুনা পরীক্ষা বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর শুধু কলেজে নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছিল।

সানশাইন/০৯ আগস্ট/এমওআর

আগস্ট ০৯
১৩:৩৫ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

আঁকাআঁকি থেকেই তন্বীর ‘রংরাজত্ব’

আঁকাআঁকি থেকেই তন্বীর ‘রংরাজত্ব’

আসাদুজ্জামান নূর : ছোটবেলা থেকেই আঁকাআঁকির প্রতি নেশা ছিল জুবাইদা খাতুন তন্বীর। ক্লাসের ফাঁকে, মন খারাপ থাকলে বা বোরিং লাগলে ছবি আঁকতেন তিনি। কারও ঘরের ওয়ালমেট, পরনের বাহারি পোশাক ইত্যাদি দেখেই এঁকে ফেলতেন হুবহু। এই আঁকাআঁকির প্রতিভাকে কাজে লাগিয়েই হয়েছেন ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা। তুলির খোঁচায় পরিধেয় পোশাকে বাহারি নকশা, ছবি, ফুল

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

জোরালো হচ্ছে সরকারি চাকরিতে ‘বয়সসীমা’ বাড়ানোর দাবি

জোরালো হচ্ছে সরকারি চাকরিতে ‘বয়সসীমা’ বাড়ানোর দাবি

সানশাইন ডেস্ক : সর্বশেষ ১৯৯১ সালে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানো হয়। এরপর অবসরের বয়স বাড়ানো হলেও প্রবেশের বয়স আর বাড়েনি। বেকারত্ব বেড়ে যাওয়া, সেশনজট, নিয়োগের ক্ষেত্রে দীর্ঘসূত্রতা, অন্যান্য দেশের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে চাকরিতে প্রবেশের সর্বোচ্চ বয়স বাড়ানোর দাবিতে আন্দোলন করে আসছেন শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীরা। তবে এ বিষয়ে উদ্যোগ নেয়নি

বিস্তারিত