সর্বশেষ সংবাদ :

নাড়ির টানে বাড়ির পথে মানুষ

স্টাফ রিপোর্টার: পবিত্র ঈদুল আজহা কড়া নাড়ছে দুয়ারে। তাই নাড়ীর টানে বাড়ি ফিরছেন শহরবাসী। গ্রামগুলোতে উৎসবের আমেজ। বাবা-মা, আত্মীয়স্বজনদের সঙ্গে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করতে ঘরে ফিরছে মানুষ। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রেল, বাসে ঘরমুখো মানুষের ভিড় বেড়েছে। শুক্রবার এ ভিড় ছিলো চোখে পড়ার মতো।
রাজশাহীর শিরোইল বাস টার্মিনাল, নওদাপাড়া বাস টার্মিনাল থেকে শুরু করে শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান চত্ত্বর, ঘোড়া চত্ত্বর থেকে শুরু সব জায়গায় ছিলো ঘরমুখো মানুষের স্রোত। কেউ বাসে, কেউ সিএনজিচালিত অটোরিকশায় কেউ বা ট্রেনে চেপে শহর ত্যাগ করছেন।
রাজশাহী মহানগরী বৃহস্পতিবার থেকে ফাঁকা হতে শুরু করে। প্রধান সড়কে ব্যক্তিগত গাড়ির সংখ্যাও কমেছে। কমেছে গলির ভেতরের সড়কে রিকশার সংখ্যাও। শুক্রবার সকাল থেকে ঘরমুখো মানুষের সংখ্যা ছিল অনেক। নিজেদের ব্যাগ নিয়ে অনেককেই পরিবার নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে বাসের অপেক্ষায়।
রাজশাহী রেল স্টেশনে কথা হয় দীল নূর নামে এক যাত্রীর সঙ্গে। ট্রেনের অপেক্ষায় আছেন। যাবেন নীলফামারি। সঙ্গে তার দুই মেয়ে ও স্বামী। দীল নূর বলেন, রোজার ঈদে অসুস্থ থাকার কারণে বাড়ি যাওয়া হয়নি। দীর্ঘ আট মাস পর বাড়ি ফিরছেন তিনি। অনেক ভালো লাগছে। প্রথমে শ^শুরবাড়ি যাবেন এরপরে ঈদ করে বাবা’র বাড়ি যাবেন।
শুক্রবার সকালে শিরোইল বাস টার্মিনালে দাঁড়িয়ে ছিলেন করিমন বেওয়া। তিনি বলেন, আমার বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জ। রাজশাহীতে একটি খাবারের হোটেলে আমি রান্নার কাজ করি। অনেকদিন পর বাড়ি ফিরছি। অনেকের সঙ্গে দেখা হবে ভাবতেই ভালো লাগছে।
রবিউল ইসলাম নামে আরো একজন অপেক্ষা করছেন। তার বাড়ি সিরাজগঞ্জে। তিনি বলেন, রাজশাহীতে রাজমিস্ত্রির কাজ করি। তিন মাস বাড়ি যাই না। বাড়িতে ৪ বছরের মেয়ে অপেক্ষা করছে বাবা বাড়ি আসবে। মেয়েটাকে দ্যাখার জন্য মন ছটপট করছে। কোরবানি দিতে পারিনি। ততো টাকাও নাই। মেয়ে ও বউয়ের জন্য নতুন জামা নিয়েছি। ১৭ জুন (সোমবার) উদযাপিত হবে ঈদুল আজহা। সরকারি ছুটির তালিকা অনুযায়ী, কোরবানির ঈদের ছুটি শুরু হবে ঈদের আগের দিন অর্থাৎ ১৬ জুন (রবিবার) থেকে। ছুটি চলবে ১৮ জুন (মঙ্গলবার) পর্যন্ত। তার আগে ১৪ ও ১৫ জুন সাপ্তাহিক ছুটি। এরসঙ্গে দুই দিন ম্যানেজ করলে ঈদের ছুটি বেড়ে দাঁড়াতে পারে ৯ দিনে।


প্রকাশিত: জুন ১৫, ২০২৪ | সময়: ৬:০৪ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ