সর্বশেষ সংবাদ :

পবা-মোহনপুরের চেয়ারম্যান ডাবলু-বকুল

স্টাফ রিপোর্টার: ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে রাজশাহীতে পবা ও মোহনপুর উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (২৯ মে) সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত টানা ভোটগ্রহণ চলে। বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনার মধ্যে দিয়ে দুই উপজেলায় এ নির্বাচন শেষ হয়। দুই উপজেলাতেই আনারস প্রতীকের প্রার্থী বিজয়ী লাভ করেছে। পবায় বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন ফারুক হোসেন ডাবলু ও মোহনপুর উপজেলায় নির্বাচিত হয়েছেন আফজাল হোসেন বকুল।
রাজশাহীর পবায় আনারস প্রতীক নিয়ে ৩৪ হাজার ৪৬২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন ফারুক হোসেন ডাবলু। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি ঘোড়া প্রতীকে ২৯ হাজার ৮৯৮ ভোট পেয়েছেন এমদাদুল হক। অন্য প্রার্থীদের মধ্যে ওয়াজেদ আলী খাঁন মোটরসাইকেল প্রতীকে নিয়ে ২২ হাজার ৫২২ ভোট পেয়েছেন আর দোয়াত-কলম প্রতীকে ২ হাজার ১২৩ ভোট পেয়েছেন আব্দুর রশিদ, হেলিকপ্টার প্রতীকে ডেভিট রিচার্ড মূর্মু পেয়েছেন এক হাজার ২৭৫ ভোট।
ভাইস চেয়ারম্যান পদে টিউবওয়েল প্রতীক নিয়ে ১৭ হাজার ৩৫৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন ফরিদুল ইসলাম। তার নিকটতম প্রার্থী টিয়া পাখি প্রতীকে ১৪ হাজার ৮৭৬ ভোট পেয়েছেন কামরুজ্জামান। অন্য প্রার্থীদের মধ্যে চশমা প্রতীকে আসাদুজ্জামান পেয়েছেন ৫ হাজার ১৭৯ ভোট, তালা প্রতীকে নাজমুল ইসলাম পেয়েছেন ৭ হাজার ২৬১ ভোট, উড়োজাহাজ প্রতীকে রফিকুল ইসলাম পেয়েছেন ৬ হাজার ৩৪৮ ভোট, বই প্রতীকে শহিদুল ইসলাম পেয়েছেন ১৩ হাজার ৮৭৫ ভোট, গ্যাস সিলিন্ডার প্রতীকে সরওয়ারে আলম মানিক পেয়েছেন ১২ হাজার ৪৯৭ ভোট, মাইক প্রতীকে প্রদীপ কুমার সাহা পেয়েছেন ১১ হাজার ১৯৩ ভোট।
মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বৈদ্যুতিক পাখা প্রতীক নিয়ে ২৪ হাজার ২৭৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন পপি খাতুন। তার নিকটতম প্রার্থী হাঁস প্রতীকে ২২ হাজার ১৮ ভোট পেয়েছেন চেন বানু। অন্য প্রার্থীদের মধ্যে ফুটবল প্রতীক নিয়ে ২১ হাজার ৫৪৫ ভোট পেয়েছেন হাসিনা খাতুন, কলস প্রতীক নিয়ে ২০ হাজার ১৯৬ ভোট পেয়েছেন আরজিয়া বেগম।
পবা উপজেলা নির্বাচনে সর্বমোট ভোট পড়েছে ৯৪ হাজার ৮৯৯টি ভোট। এরমধ্যে বাতিল ভোটের সংখ্যা ৬ হাজার ৮৬১ ভোট। বৈধ ভোটের সংখ্যা ৮৮ হাজার ৩৮ ভোট। ভোটের শতকারা হার ৩৬ দশমিক ৩৮ শতাংশ।
মোহনপুর উপজেলায় আনারস প্রতীক নিয়ে ৩১ হাজার ১১৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী লাভ করেছেন আফজাল হোসেন বকুল। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি কাপ-পিরিচ প্রতীক নিয়ে ২৬ হাজার ২৯৭ ভোট পেয়েছেন আল মোমিন শাহ। অন্য প্রার্থীদের মধ্যে ঘোড়া প্রতীকে ৮ হাজার ৩২৭ ভোট পেয়েছেন এনামুল হক, মোটরসাইকেল প্রতীকে এক হাজার ৬৫১ ভোট পেয়েছেন আলমগীর মোরশেদ, দোয়াত-কলম প্রতীক নিয়ে এক হাজার ৮৫৮ ভোট পেয়েছেন মেহবুব হাসান রাসেল।
ভাইস চেয়ারম্যান পদে টিউবওয়েল প্রতীকে ৩০ হাজার ৩৫৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন মো. বিন বেল্লাহ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি তালা প্রতীকে ১৯ হাজার ১৭৬ ভোট পেয়েছেন হাবিবুর রহমান। অন্য প্রার্থীদের মধ্যে চশমা প্রতীকে কবির হোসেন ৬ হাজার ৪৭২ ভোট, টিয়া পাখি প্রতীকে আব্দুর রউফ পেয়েছেন ৫ হাজার ৪৩৮ ভোট, উড়োজাহাজ প্রতীকে ৫ হাজার ৭৪ ভোট পেয়েছেন খোন্দকার মশিউর রহমান।
মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে পদ্ম ফুল প্রতীকে ৪২ হাজার ৯৮৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন হাবিবা বেগম। তার নিকটতম প্রার্থী ডলি আক্তার ফুটবল প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৮ হাজার ৩১৪ ভোট। অন্য প্রার্থীদের মধ্যে কলস প্রতীকে ৫ হাজার ৮৬৪ ভোট নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন রাবিয়া খাতুন, প্রজাপতি প্রতীকে ৬ হাজার ৯৯৮ ভোট পেয়েছেন সানজিদা রহমান, সেলাই মেশিন প্রতীকে ৩ হাজার ৯৩১ ভোট পেয়েছেন পলিরানী।
মোহনপুরে ভোট পড়েছে ৭১ হাজার ৭০৭ ভোট। যার মধ্যে বাতিল ভোটের সংখ্যা ৫ হাজার ১৯৪ ভোট। বৈধ ভোট ৬৬ হাজার ৫১৫। ভোট প্রদানের হার ৪৯ দশমিক ২৭ শতাংশ।


প্রকাশিত: মে ৩০, ২০২৪ | সময়: ৫:৩১ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ