সর্বশেষ সংবাদ :

বাগমারায় নিম্নমানের কাজে বাধাঁ দেয়ায় গ্রামবাসীর উপর হামলা ও মামলা

স্টাফ রিপোর্টার, বাগমারা: রাজশাহীর বাগমারায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবনের দীর্ঘ মেয়াদী নির্মান কাজ ও অতিনিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার এবং নিম্নমানের কাজে বাঁধা দেয়ায় গ্রামবাসীর সাথে বাকবিতণ্ডার ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনার পর ওই নির্মাণ শ্রমিকরা গ্রামবাসীর ওপর হামলা ও মামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
গ্রামবাসী ও অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার গোয়ালকান্দি ইউনিয়নের সমসপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নতুন ভবনের নির্মান করা চলমান রয়েছে। এতে ব্যায় হবে এক কোটি ৩১ লাখ টাকা। প্রায় তিন বছর থেকে কাজটি চলমান ছিল। কাজের এত দীর্ঘ ভোগান্তির কারণে অভিভাবক ও এলাকাবাসী ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে।
বিদ্যালয়ের নির্মান কাজ শুরুর পর থেকে সেখানে প্রতিনিয়িত অতি নিম্নমানের সামগ্রি ব্যবহার শুরু করে ঠিকাদারের লোকজন। তারা এক নম্বরের পরিবর্তে তিন নম্বর ইট, অতি নিম্নমানের বালি সিমেন্ট ও ভরাট কাজে বালির পরিবর্তে মাটি ব্যবহার করা শুরু করে। প্রথমেই গ্রামবাসীরা ঠিকাদার ও নির্মাণ শ্রমিকদের কাজে অনিয়ম করতে নিষেধ করে। এতে ঠিকাদার ও নির্মাণ শ্রমিকরা গ্রামবাসীর উপর চড়াও হয় ও মিথ্যা চাঁদাবাজির মামলায় ফাঁসানোর হুমকি দেয়। পরে গ্রামবাসীরা নির্মাণ শ্রমিকের এমন কাজের প্রতিবাদ জানায়। নিম্নমানের কাজে বাঁধা দেয়ায় ঠিকাদার ও শ্রমিকরা মিলে বিদ্যালয়ের পিয়নের ওপর চড়াও হয়ে তাকেও মারপিট করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
প্রতি দিনের মতো ২৫মে সমসপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নির্মানাধীন কাজ করতে যায় শ্রমিকরা। সকাল ৮টায় কাজে যাওয়ার পর তারা আবারও তিন নম্বর ইট দিয়ে কাজ শুরু করে।
এ সময় গ্রামের মজিবর রহমানের ছেলে রাব্বি, মৃত-আব্দুর রহমানের ছেলে শেখ ফরিদ, ময়েন উদ্দিনের ছেলে জুয়েল রানা, জাহিদুল ইসলামের ছেলে জয় এবং আন্টুর ছেলে ইমন আলী সহ ১০/১৫ জন গ্রামবাসী স্কুল চত্ত্বরে গিয়ে অতিনিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার ও কাজের অতি ধীরগতির বিষয়ে প্রতিবাদ জানালে শ্রমিকরা সংঘবদ্ধ হয়ে গ্রামবাসীর উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় শ্রমিকরা অতি দ্রুত মোবাইলে বিষয়টি ঠিকাদারকে জানিয়ে ক্যাডার বাহিনী আনতে বলে।
অল্প কিছুক্ষন পর ঠিকাদার এমদাদুল ঘটনাস্থলে পৌছে তার ক্যাডার বাহিনী নিয়ে গ্রামবাসীর উপর আবারও চড়াও হয় ও হামলা চালায়। এতে বেশ কিছু গ্রামবাসী আহত হয়। এদিকে এই ঘটনায় উল্টো গ্রামবাসীদের আসামী করে চাঁদাবাজির একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন গ্রামের জনগন ও অভিভাবক মহল।
এদিকে উপজেলা প্রকৌশলী খলিলুর রহমান বলেন, সমসপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এলাকায় ক্ষুব্ধ অভিভাবক ও এলাকাবাসীর সাথে ঠিকাদার ও লেবারদের মারপিটের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় স্থানীয় কয়েক জনের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দাখিল করা হয়েছে। কি কারণে সেখানে মারপিটের ঘটনা ঘটেছে তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। আমরা চেষ্টা করছি দ্রুত সময়ের মধ্যে ঠিকাদারদের কাজ শুরু করার জন্য।
এ ব্যাপারে অভিযোগের তদন্ত কর্মকর্তা তাহেরপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই রাশেদ জানান, অভিযোগ পাওয়ার পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। স্থানীয়দের সাথে কথা বলে ঘটনার সত্যতা পাওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।


প্রকাশিত: মে ২৮, ২০২৪ | সময়: ৪:৩৩ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ