সর্বশেষ সংবাদ :

প্রতিমন্ত্রী দারার বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দুর্গাপুর) আসনের সংসদ সদস্য ও পল্লী উন্নয়ন এবং সমবায় প্রতিমন্ত্রী আব্দুল ওয়াদুদ দারার বিরুদ্ধে পুঠিয়া উপজেলা নির্বাচনে আচরনবিধি লঙ্ঘন, প্রভাব বিস্তার ও ভোটারদের ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগ উঠেছে। পুঠিয়া উপজেলার বর্তমান চেয়ারম্যান ও চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী জিএম হিরা বাচ্চু (মোটরসাইকেল প্রতীক) বৃহস্পতিবার এসব অভিযোগ করেছেন।
রাজশাহী জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে তিনি এসব নিয়ে একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। দারা রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদেও রয়েছেন। লিখিত পৃথক দুটি অভিযোগে জিএম হিরা বাচ্চু অভিযোগ করেন, আগামী ২১ মে দ্বিতীয়ধাপের পুঠিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তিনি চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে। তার প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী আব্দুস সামাদ মোল্লার পক্ষে কাজ করছেন পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী আব্দুল ওয়াদুদ দারা।
বুধবার দিবাগত রাত থেকে প্রতিমন্ত্রী আব্দুল ওয়াদুদ দারা তার গ্রামের বাড়ী পুঠিয়া উপজেলার বিড়ালদহের বাড়ীতে রাত্রিযাপন করে তার নিকট আত্মীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুস সামাদ মোল্লার পক্ষে কাজ করার জন্য নেতাকর্মীদের নির্দেশ দিচ্ছেন। প্রতিমন্ত্রীর নিজ বাড়ীতে নেতা-কর্মীদের ডেকে এনে সামাদ মোল্লার পক্ষে ভোট করতে নির্দেশ দিচ্ছেন। কেউ আপত্তি করলে তাকে হুমকি-ধামকি ও চাপ দিয়ে আচরণবিধি লঙ্ঘন করছেন। শুধু তাই নয়, সামাদ মোল্লার পক্ষে ভোট করতে প্রতিমন্ত্রী আব্দুল ওয়াদুদ নেতা-কর্মী ও ভোটারদের ফোন করেও প্রভাব বিস্তার করছেন। যা নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনও বটে। তিনি বলেন, ভোটের সময় এমপি বা প্রতিমন্ত্রীর নির্বাচনী এলাকায় থাকার সুযোগ নেই। কিন্তু আব্দুল ওয়াদুদ দারা নিজ বাড়ীতে ভোটারদের ডেকে এনে হুমকি দিচ্ছেন পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দেয়ার জন্য।
জিএম হিরা বাচ্চু বলেন, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী আব্দুল ওয়াদুদ দারা এবং বহিরাগত ডাবলু সরকারের বিরুদ্ধে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক বরাবর দুটি পৃথক অভিযোগ পাঠিয়েছি। তারা ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে পুঠিয়া উপজেলা নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার ও হুমকি ধামকি দিয়ে আচরণবিধি লঙ্ঘন করছেন। ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ নষ্ট করছেন।
এবিষয়ে রাজশাহী জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কল্যান চৌধুরী বলেন, ‘জিএম হিরা বাচ্চুর অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেব।’
অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার বলেন, ‘আমি রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। আমি সবখানে যেতে পারি। বহিরাগত হবো কেন? আমাদের এমপি-মন্ত্রীর মানা আছে, দলীয় পদধারী কারো মানা নেই।’ হুমকি দেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেন তিনি।
এবিষয়ে রাজশাহী-০৫ (পুঠিয়া-দুর্গাপুর) আসনের এমপি পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী আব্দুল ওয়াদুদ দারাকে ফোন করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি।


প্রকাশিত: মে ১৭, ২০২৪ | সময়: ৫:৫১ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ