নাতিকে বাঁচাতে হাতুড়ির ঘায়ে প্রাণ হারালেন দাদা

স্টাফ রিপোর্টার, বাগমারা: নাতিকে বাঁচাতে গিয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় প্রাণ গেলো বৃদ্ধ দাদা গয়ের আলীর (৬৫)। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার নরদাশ ইউনিয়নের জয়পুর গ্রামে। ঘটনার পর থেকেই এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। অঘটন এড়ানোর জন্য ওই এলাকায় পুলিশী টহল জোরদার করা হয়েছে বলে বাগমারা থানার (ওসি) অরবিন্দ সরকার জানিয়েছেন। হত্যার ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে বাগমারা থানার পুলিশ জানিয়েছেন।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, রবিবার রাত নয়টার দিকে জয়পুর বাজার মোড়ে গয়ের আলীর নাতি রাজু আহম্মদসহ (২৫) কয়েকজন বন্ধু বান্ধব মিলে কথা বলছিল। রাজুর নতুন পেশা মটরসাইকেল মেরামতের কাজ করা। একই গ্রামের আব্দুল হাকিমের ছেলে রাজমিস্ত্রী শরিফুল ইসলাম (৩৮) বাই সাইকেল নিয়ে সেখানে উপস্থিত হয় এবং মটরসাইকেল মেকার রাজুকে হেয়প্রতিপন্নের মাধ্যমে তার বাই সাইকেলটি মেরামতের কথা বলে। ওই সময় রাজু আহম্মদ শরিফুল ইসলামের উপর ক্ষিপ্ত হয়। দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে হাতাহাতি শুরু হয়।
হাতাহাতির বিষয়টি ছড়িয়ে পড়লে বাজারের লোকজন দু’পক্ষকেই শান্ত করা চেষ্টা করে। মারামারির ঘটনাটি জানতে পেরে দাদা গয়ের আলী ঘটনাস্থলে পৌঁছে নাতি রাজুকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এমন সময় রাজমিস্ত্রী শরিফুল ইসলাম হাতুড়ি দিয়ে দাদা গয়ের আলীর উপর হামলা চালায়।
শরিফুল ইসলামের হামলায় গয়ের আলী মাটিতে লুটিয়ে পড়লে বাজারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে এক পল্লী চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। গয়ের আলীর মৃত্যুর খবর জানতে পেরে রাজমিস্ত্রী শরিফুল ইসলাম সেখান থেকে পালিয়ে যায়।
খবর পেয়ে বাগমারা থানার পুলিশ রাতেই ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহত গয়ের আলীর লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। সোমবার দুপুরে বাগমারা থানার পুলিশ নিহত গয়ের আলীর লাশটি ময়না তদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে। ওই ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।
জানতে চাইলে বাগমারা থানার ওসি অরবিন্দ সরকার বলেন, নিহত গয়ের আলীর লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপপতালে পাঠানো হয়েছে। ওই ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। হত্যাকারীকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশী অভিযান চলমান রয়েছে।


প্রকাশিত: মে ৭, ২০২৪ | সময়: ৪:১৩ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ