বাঘায় পুকুর থেকে নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ

স্টাফ রিপোর্টার, বাঘা: রাজশাহীর বাঘায় পুকুর থেকে এক নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার সকালে উপজেলার বাজিতপুর এলাকা থেকে এই লাশ উদ্ধার করা হয়। স্থানীয়রা বলছেন, এই হত্যাকান্ডের সাথে মৃত নারী রেহেনার জামাই তছিকুল ইসলাম সম্পৃক্ত থাকতে পারে।
স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার নিশ্চিন্তপুর গ্রামের সাদু ফকিরের ছেলে তছিকুল(৩৫) এর সাথে পাশ্ববর্তী বাজিতপুর গ্রামের রেহেনার মেয়ে মালেকা (২৪) এর কয়েক বছর পূর্বে বিয়ে হয়। বিয়ের পর প্রথম দিকে তাদের সম্পর্ক ভালো গেলেও গত একবছর ধরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দ্বন্দ্ব ফেসাদ চলছে। এ কারণে মালেকা তছিকুলের সাথে সম্পর্ক রাখবে না বলে বর্তমানে তিনি ঢাকায় একটি গ্রার্মেন্টস ফেক্টরিতে চাকরি করছে।
এ ঘটনায় গৃহবধূ মালেকা বেগম জানান, আমি আমার স্বামীর অত্যাচার থেকে বাঁচতে বর্তমানে ঢাকায় একটি গ্রার্মেন্টস ফেক্টরিতে চাকরি করছি। আমার স্বামী আমাকে তার বাড়িতে নেওয়ার জন্য বার-বার মায়ের কাছে ঠিকানা চেয়ে আসছে। কিন্তু আমার মা কোন ভাবেই তাকে আমার ঠিকানা দেয়নায়। এ কারনে সে আমার মাকে থালা বাসুন মাজা অবস্থায় পানিতে ডুবিয়ে হত্যা করে পালিয়েছে।
এ ঘটনায় বাজুবাঘা ইউপি চেয়ারম্যান ফিরোজ আহাম্মেদ রঞ্জু ও সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য রবিউল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে আমরা ঘটনা স্থলে এসে দেখি বাড়ির সাথে লাগনো পুকুর পাড়ে থালা ও পাতিল সহ রেহেনার ব্লাউজ-পেটিকট পরিহিত লাশ পড়ে আছে। তখন আমরা পুলিশকে খবর দেই। পরে পুলিশ এসে পুকুর থেকে শাড়ি উদ্ধার করে এবং লাশ থানায় নিয়ে যায়।
বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আমিনুল ইসলাম জানান, আমরা লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রামেক হাসপাতালে প্রেরণ করেছি। পোস্টমর্টাম রিপোট এলে বিস্তারিত জানা যাবে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। মৃত রেহেনার জামাই তছিকুল ইসলাম পলাতক রয়েছে।


প্রকাশিত: এপ্রিল ২৮, ২০২৪ | সময়: ৪:২৭ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ