পঞ্চাশোর্ধ নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা

বড়াইগ্রাম ও লালপুর প্রতিনিধি: নাটোরে পঞ্চাশোর্ধ নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। গত শুক্রবার রাত দশটার দিকে বড়াইগ্রাম ও লালপুরের সীমান্তবর্তী উপজেলার ওয়ালিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে পরদিন ওয়ালিয়া সেন্টারপাড়ার আলাল উদ্দিনের ছেলে খায়রুল ইসলামের (৩২) এর বিরুদ্ধে লালপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত খায়রুল পলাতক রয়েছে।
ভুক্তভোগী নারীর স্বজনরা জানান, সেদিন রাতে তিনি বাড়ির পাশেই তার স্বামীর চা স্টলে পানি দিয়ে ফিরছিলেন। এ সময় একই এলাকার খায়রুল তার মুখ চেপে ধরে পাশের মেহগনি বাগানে নিয়ে হাত ও মুখ বেঁধে ধর্ষণ করে। পরে ওই নারী বাড়ী ফিরে স্বজনদের জানালে তাকে দ্রুত লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।
এদিকে, গত ১৪ এপ্রিল রবিবার সন্ধ্যায় এ বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ভুক্তভোগীর স্বজনরা খায়রুলের পিতা আলাউদ্দিনকে পিটিয়ে আহত করে। পরে স্বজনরা তাকে প্রথমে লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।
এ বিষয়ে লালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাসিম আহমেদ বলেন, ধর্ষণের ঘটনায় মামলা হয়েছে আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। এছাড়া আলাউদ্দিনের উপর হামলার ঘটনায়ও মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।


প্রকাশিত: এপ্রিল ১৬, ২০২৪ | সময়: ৫:২০ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ