বাগমারায় স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন

স্টাফ রিপোর্টার, বাগমারা: পারিবারিক কলহের জেরে রাজশাহীর বাগমারায় স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন হয়েছে। নিহতের নাম ঝরনা আক্তার লিপি (২২)। তিনি উপজেলার শুভডাঙ্গা ইউনিয়নের বজরুখকৌড় গ্রামের আলীমুদ্দিনের কন্যা। রবিবার দিবাগত রাতে উপজেলার গনিপুর ইউনিয়নের বাগমারা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে। ঘটনায় থানার মামলা হয়েছে। বাগমারা থানার ওসি অরবিন্দ সরকার জানান, ঘটনার পর স্বামী পলাতক রয়েছে।
পুলিশ ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, সাত বছর আগে বাগমারা গ্রামের মৃত উসমান আলীর ছেলে রুবেল হোসেনের (২৮) সঙ্গে পারিবারিক ভাবে লিপির বিয়ে হয়। বিয়ের পরে তাদের একটি সন্তান আসে। ভালই চলছিলো তাদের পরিবার। তবে কিছুদিন থেকে রুবেল লিপিকে নানা ওজুহাতে শারীরিক ও মানসিক ভাবে নির্যাতন করে আসছিল। স্বামীর নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে দুই সপ্তাহ আগে লিপি তার বাবার বাড়ি বজরুখকৌড় গ্রামে চলে যান। পরে স্বামীসহ তার প্রতিবেশীরা আর নির্যাতন করবে না প্রতিশ্রুতি দিয়ে আবারো স্বামীর বাড়িতে নিয়ে আসেন।
তবে রবিবার রাতে রুবেল হোসেন স্ত্রী ঝরনা আক্তার লিপিকে লোহার শাপল দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করতে শুরু করে। এক পর্যায়ে লিপির চিৎকারে প্রতিবেশী এগিয়ে আসলে রুবেল হোসেন পালিয়ে যান। পরে স্থানীয় লোকজন লিপিকে উদ্ধার করে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করে। খবর পেয়ে বাগমারা থানার পুলিশ দ্রুত হাসপাতালে ছুটে যান এবং নিহত ঝরনা আক্তার লিপির লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন।
বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) অরবিন্দ সরকার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মামলার হয়েছে। আসামীকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালাচ্ছে।


প্রকাশিত: জানুয়ারি ৩০, ২০২৪ | সময়: ৬:৩৬ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ