বাগমারায় আচরণবিধি ভঙ্গের অভিযোগে নৌকার প্রাথী কালাম এবং চেয়ারম্যান আলমগীরকে শোকজ

স্টাফ রিপোর্টার, বাগমারাঃ

আগামী ৭ জানুয়ারি ২০২৪ সালে অনুষ্ঠিত হবে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। গত ২৬ নভেম্বর দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী চূড়ান্ত করে আওয়ামী লীগ। রাজশাহী-৪(বাগমারা) আসনে নৌকা প্রতীক পান তাহেরপুর পৌরসভার মেয়র আবুল কালাম আজাদ। নৌকা প্রতীক ঘোষণার পর থেকে প্রচারনায় মেতে উঠে আবুল কালাম আজাদ সহ তার কর্মীরা।

সেই সাথে নৌকা প্রার্থীর পক্ষ নিয়ে গোয়ালকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলমগীর সরকারও একই ভাবে ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে স্বতন্ত্র প্রার্থীকে হুমকী প্রদান করেন। যেটি নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গ করেছে। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের আরেক প্রাথী তিন বারের সংসদ সদস্য এবং দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হককে হুমকী প্রদান করে আসছিল। একের পর এক আচরণবিধি ভঙ্গের ঘটনায় স্বতন্ত্র প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক এমপির পক্ষ থেকে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০২৪ এর ইলেকশন ইনকোয়ারী কমিটির নিকট লিখিত আবেদন করা হয়।

 

ওই আবেদনের পরিপেক্ষিতে সোমবার ইলেকশন ইনকোয়ারী কমিটির পক্ষ থেকে আচরণবিধি ভঙ্গের অভিযোগে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ এবং গোয়ালাকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলমগীর সরকারের নিকট শোকজ নোটিশ পাঠানো হয়েছে। আজকের মধ্যে সেই শোকজ নোটিশের কারণ দেখিয়ে যাথাযথ জবার দিতে বলা হয়েছে। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, নৌকার প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ গত ১ ডিসেম্বর শুক্রবার বিকেলে তাহেরপুর পৌর আওয়ামলীগের দলীয় কার্যালয়ে এক মতবিনিময় সভায় দেয়া বক্তব্যে তিনি বলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক এমপিকে ১৮ ডিসেম্বরের পর বাগমারায় ঢুকতে দেয়া হবে না হুশিয়ারী দেন।

 

সেই সাথে ২ ডিসেম্বর গোয়ালকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলমগীর সরকার আরেকটি মতবিনিময় সভায় বলেন যে ১৮ ডিসেম্বরের পর ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক এমপিকে গোয়ালকান্দি ইউনিয়নে প্রবেশ করবে দেয়া যাবে না। তাদের দেয়া এ সকল বক্তব্য এরই মধ্যে ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

এ ব্যাপারে সহকারী রিটানিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ,এফ,এম, আবু সুফিয়ান বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হকের পক্ষ থেকে রাজশাহীর যুগ্ম মহানগর দায়রা জজ ও দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ইলেকশন ইনকোয়ারী কমিটি বরাবর লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছিলেন। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গের কারণে নৌকার প্রার্থী সহ এক চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে কারণ দর্শানো নোটিশ প্রদান করেছে ইলেকশন ইনকোয়ারী কমিটি।

 

 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে এমপি প্রার্থী মেয়র কালাম বলেন, আমরা যথাযত ভাবে শোকজের জবাব দিয়েছে। আমরা দলীয় ফোরামে পার্টি অফিসে দলের নেতা কর্মীদের নিয়ে খুব ছোট পরিসরে মিটিং করছিলাম। কোন প্রার্থীর সম্মানহানী ও বা কাউকে উদ্দেশ্যমূলক ভাবে কিছু বলতে চাইনি। আগামীতে আমরা নির্বাচনের সকল আচরনবিধি মেনে চলবো। এ বিষয়ে আমরা কোন গাফলতি করব না।

 

 

সানশাইন / শামি


প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৬, ২০২৩ | সময়: ৬:৫৩ অপরাহ্ণ | Daily Sunshine

আরও খবর