সর্বশেষ সংবাদ :

অবশেষে পাগলার ঝুঁকিপূর্ণ বেইলী ব্রিজটি ভেঙ্গে হচ্ছে নতুন সেতু

স্টাফ রির্পোটার, শিবগঞ্জ: অবশেষে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ-মনাকষা সড়কের পাগলা নদীর ওপর ৩৫ বছরের ঝুঁকিপূর্ণ জরাজীর্ণ বেইলী ব্রিজটি ভেঙ্গে নতুন সেতু নির্মাণের ভিত্তি স্থাপন করা হলো।
শনিবার বেলা ৩ টায় ১৭২ মিটার দীর্ঘ ২৭ কোটি ৫৫ লাখ টাকা ব্যয়ে সেতুটি নির্মানের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন শিবগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল। বর্তমান সংসদ সদস্যের পিতা প্রয়াত সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. মইন উদ্দিন আহম্মেদ মন্টু সেতু নামে ব্রীজটির উব্ধোধন করা হয়। এ সময় সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার আব্দুল মান্নান, এলজিইডির জেলা নির্বাহী প্রকৌশলী মোজাহার আলী প্রামাণীক শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবুল হায়াত সহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।
উজিরপুর কলেজের সহকারী অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম জানান, উপজেলার একমাত্র সরকারী কলেজ আদিনা ফজলুল হক সরকারি কলেজ সহ ৭০ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৮টি কলেজ ও ২০টি উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং মাদ্রাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন পেশার মানুষ যাতায়াত করতেন ঝুঁকি নিয়ে। যান জটের কারণে ঘণ্টার পর ঘণ্টা বসে থাকতে হতো তাদের। সেতুটি চালু হলে এ দুর্ভোগের লাঘব হবে।
পাঁকার কৃষক লাল মোহাম্মদ সেতু উদ্বোধনের খবর জেনে উচ্ছাস প্রকাশ করে বলেন, হাঁরা (আমরা) তো ফসল এক বছর থেকে ১৬ কিলোমিটার দুর বিনোদপুর ঘুর‌্যা শিবগঞ্জ বেচতে যাতুন (বিক্রি করতে)। এতে পরিবহন খরচ বাড়ত। সেতু হলে হাঁরঘে মেলা (আমাদের অনেক) উপকার হবে।
এ বিষয়ে এলজিইডির জেলা নির্বাহী প্রকৌশলী মোজাহার আলী প্রামাণীক জানান, কয়েকদিন আগে ঢাকা থেকে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা এসে সার্বিক পরিস্থিত পর্যবেক্ষণ করে গেছেন। ইতোমধ্যেই টেন্ডার ডেকে ঠিকাদার নিয়োগ সম্পন্ন হয়েছে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে শনিবার ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের পর নভেম্বর মাসে নির্মাণ কাজ শুরু হবে এবং ৩ বছরের মাথায় আগামী ২০২৭ সালের জুলাই মাসে এর নির্মাণ কাজ শেষ করা হবে।
ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল বলেন, জনগণের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে ১৯৮৬ সালে আমার পিতা তৎকালীন সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা প্রয়াত ডা. মইন উদ্দিন আহম্মেদের (মন্টু ডাক্তার) উদ্যোগে পাগলা নদীর উপর বেইলী ব্রীজ নির্মাণ কাজ শুরু হয়ে ১৯৮৮ সালে শেষ হয়। ১৫০ মিটার দীর্ঘ ও ১২ ফিট প্রস্থ বেইলী ব্রীজটি দীর্ঘ ৩৫ বছরে অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ হয় যায়।
অতিরিক্ত ও মানুষের চাপ বাড়ায় এবং সংস্কারের অভাবে বেইলী ব্রিজটি দিয়ে চলাচল করা ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছিল। পাগলা নদীর পূর্বপাড়ের প্রায় তিনলাখ মানুষের কথা চিন্তা করে সেখানে একটি নতুন ব্রিজ নির্মাণের উদ্যোগের প্রেক্ষিতে সরকারের উদ্ধতর্ন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা নির্মাণে ৩২ কোটি ৭৫ লাখ টাকা বরাদ্দ দেন। এ ব্রিজটি পূনঃনির্মাণ হলে এ অঞ্চলের আর্থসামাজিক, কৃষি, শিক্ষা স্বাস্থ্যখাতে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আসবে।


প্রকাশিত: অক্টোবর ১৫, ২০২৩ | সময়: ৭:১১ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ