সর্বশেষ সংবাদ :

রাজশাহীতে ৫ টাকার হাটে এক টাকায় এক কেজি চাল

স্টাফ রিপোর্টার:
নিত্য প্রয়োজনীয় বাজারে লাগামহীন পণ্যর বাজার। গরিব ও অসহায় মানুষের ক্রয় করার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলছে দিন দিন চাল,ডাল,আটা,চিনি,তেল, মাছ,মুরগির ও সবজিসহ সব পণ্যর দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। বিপর্যস্ত নিম্ন আয়ের মানুষের জীবন। আয়ের তুলনায় ব্যয় বেড়ে যাওয়া মাস শেষে হিসাব মেলাতে বিপাকে পড়ছেন এসব মানুষ। ঠিক এ সময়ে দুঃস্থ মানুষের জন্য কল্যাণমুখী কোন উদ্যোগ নেওয়া হলে তা হবে আশীর্বাদের মতো। এমনই এক ভিন্নধর্মী উদ্যোগ নিয়ে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন। তাঁদের ধারাবাহিক আয়োজন এবার এসেছে রাজশাহী শহরে।  আজ ২৭ সেপ্টেম্বর বুধবার ৫ টাকার হাট’ নামক এই উদ্যোগের আয়োজন করা হয় । জেলার নাইস কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত বিশেষ এই বাজারে ছিলো নানা রকম পণ্য। এগুলো দাম ছিলো এক থেকে পাঁচ টাকার মধ্যে। বঞ্চিত মানুষের জন্য আয়োজিত বিশেষ এই হাটে ছিলো চাল, ডাল, তেল, আটা, লবণ, ডিম, মুরগী, মাছ, শাকসবজি, স্যান্ডেল, টি শার্ট, বা”চাদের শিক্ষা সামগ্রী সহ নানা রকম পণ্য। এমন প্রতিকী মূল্যের বাজারের ব্যবস্থা দেখে ক্রেতাদের মধ্যেও বেশ আগ্রহ দেখা যায়। তারা এমন আয়োজন দেখে ধন্যবাদ জানিয়েছে আয়োজকদের।

 

দিনব্যাপী এই বিশেষ বাজারে প্রায় ২২০টি পরিবার বাজার করার সুযোগ পেয়েছে। এ বাজার থেকে এক টাকায় এক কেজি চাল, দুই টাকায় এক কেজি ডাল, তিন টাকায় এক লিটার তেল, এক টাকায় ১ কেজি আলু, পাঁচ টাকায় একটি ব্রয়লার মুরগি এভাবে নানা রকম পণ্য কেনার সুবিধা পেয়েছে দরিদ্র পরিবারগুলো। এই মূল্যে প্রতিটি পরিবার প্রায় ৬০০ থেকে ৭০০ টাকা সমমূল্যের বাজার কিনতে পারবে এই হাট থেকে।

বিদ্যানন্দের পক্ষ থেকে জানানো হয়, “আমাদের এখানে যে প্রতীকি দাম রাখা হয়েছে, এর মধ্যে সর্বনিম্ন এক টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ পাঁচ টাকায় পণ্য পাওয়া যায়। প্রতিটি পরিবার যেন সমান পরিমাণ জিনিস পায়, সেটা নিশ্চিত করতে আমরা কিছু নিয়ম করে দিয়েছি। ফলে যে যাই নিক, সমান সাতশত টাকার পণ্যই পাবে এই নিয়মে। যেহেতু পণ্যের দাম এক থেকে পাঁচ টাকার মধ্যে, তাই এই হাটের নাম পাঁচ টাকার হাট। মূলত দরিদ্র মানুষকে পণ্য বাছাই করার স্বাধীনতা দেওয়ার জন্যই এই বাজারের আয়োজন। এই বাজারের সুবিধা যেন শুধু গরীবরা পায়, তা নিশ্চিত করতে বিদ্যানন্দের সদস্যরা আগেই বিভিন্ন এলাকায় সার্ভে করে সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের চিহ্নিত করে। তারাই এখান থেকে বাজার করতে পারবেন। বর্তমান পরিস্থিতিতে দেশের দেশের বিভিন্ন এলাকায় ধারাবাহিক ভাবে এই আয়োজন করে চলেছে। বিত্তবানদের সহযোগীতা পেলে এই আয়োজন আরও বাড়ানোর কথা জানান সংশ্লিষ্টরা।

 

 

বিদ্যানন্দের মানবিক ও ভিন্নধর্মী এ আয়োজনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(রাজস্ব) মো: আনিসুল ইসলাম । অনুষ্ঠানে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের ভাইস চেয়ারম্যান ফারুখ আহমেদ সভাপতিত্ব করেন।

উল্লেখ্য বিদ্যানন্দ সারাদেশের খাবার ও ত্রাণ সহায়তার পাশাপাশি দরিদ্র শিশুদের বিনামূল্যে শিক্ষা, চিকিৎসা, আয়মূখী উন্নয়ন কর্মকান্ড, শিক্ষা বৃত্তি প্রদান, বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা, এতিমখানা পরিচালনা সহ নানা রকম জনকল্যাণমুখী কর্মকান্ড পরিচালনা করে থাকে। এসব কর্মকাণ্ডের জন্য প্রতিষ্ঠানটি চলতি বছর একুশে পদকে ভূষিত হয়।

সানশাইন/সোহরাব


প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২৩ | সময়: ৩:৪৯ অপরাহ্ণ | Daily Sunshine