সর্বশেষ সংবাদ :

ধর্ষণের মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগীর পরিবার

গোমস্তাপুর প্রতিনিধি:
চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার গোমস্তাপুর ইউনিয়নের বেগমনগর গ্রামের দিনমজুর শফিকুল ইসলাম কাটুর বিরুদ্ধে ধর্ষণের একটি মামলা দায়ের করায় সেটিকে মিথ্যা মামলা দাবী করে প্রত্যাহারের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেছে ভুক্তভোগীর পরিবার। সোমবার(১১ সেপ্টেম্বর) সকালে রহনপুর জেলা পরিষদ ডাক বাংলোয় এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

 

 

 

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য রাখেন, শফিকুল ইসলাম কাটুর স্ত্রী মোসাঃ রুবেদা খাতুন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন শফিকুল ইসলাম কাটুর পিতা আব্দুর রহিম। লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, গত ১৪ আগষ্ট একই গ্রামের আনারুল ইসলামের স্ত্রী মোসাঃ তাসলেমা বেগম গোমস্তাপুর থানায় তার ৯ বছরের শিশুকন্যা ফাতেমা আক্তার মিম কে ধর্ষণের কারণে আমার স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। তিনি দাবী করেন, ধর্ষণের কোন ঘটনায় ঘটেনি। এটি একটি ষড়যন্ত্রমূলক সাজানো ঘটনা। আমার স্বামী সেদিন কাজ শেষে বাড়ী এসে অসুস্থ হয়ে পড়ে। ঔষধ খেয়ে সে ঘুমিয়ে যায়। ঘটনার দিন ও সময়ে আমার স্বামী বাসায় ছিল। তিনি আরও বলেন, ঘটনার আগে বাদীর আত্মীয় ইউনিয়ন ছাত্রলীগের নেতা ইমনের নেতৃত্বে সুজন, তাহির, মনির সহ কয়েকজন আমাদের বাড়ী এসে চাঁদা দাবী করে। আমরা চাঁদা দিতে রাজি না হলে এই মিথ্যা মামলা করা হয়েছে। এ ব্যাপারে বাদীর মোবাইল ০১৭৬২-৩১৯২৫৮ নাম্বার এ বারবার রিং দিয়েও মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়।

 

 

 

এ বিষয়ে ছাত্রলীগ নেতা ইমনের সাথে কথা হলে তিনি সাংবাদিকদের সাথে উচ্চস্বরে কথা বলেন এবং এ বিষয়ে কোন কথা বলতে অস্বীকৃতি জানান। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক আরেফিন বলেন, মামলার তদন্ত চলছে। গোমস্তাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুর রহমান বলেন, কোন  স্থানে কোন শিশুকন্যা ধর্ষণের জন্য কেউ থানায় অভিযোগ করতে এলে সেটা নেয়া হয়। মিম এর ক্ষেত্রে তাই হয়েছে। মেয়েটির ডাক্তারী পরীক্ষা করা হয়েছে। মামলার তদন্ত চলমান। তদন্তের মাধ্যমে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সানশাইন/সোহরাব


প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১১, ২০২৩ | সময়: ৫:২৬ অপরাহ্ণ | Daily Sunshine