সর্বশেষ সংবাদ :

শেখ হাসিনার দিল্লি সফরে সই হবে তিন সমঝোতা

সানশাইন ডেস্ক: জি-২০ শীর্ষ সম্মেলনে অংশ নিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিল্লি সফরকালে তিনটি সমঝোতা স্মারক সই হবে। এরমধ্যে অন্যতম হচ্ছে, টাকা ও রুপির লেনদেন সহজ করার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক ও ভারতের এনপিসিআই’র মধ্যে সমঝোতা।
বৃহস্পতিবার শেখ হাসিনার দিল্লি সফর উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। প্রধানমন্ত্রী ৮ থেকে ১০ সেপ্টেম্বর জি-২০ শীর্ষ সম্মেলনে অংশগ্রহণের জন্য দিল্লি যাবেন। সেখানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হবে। এছাড়া সম্মেলনের সাইডলাইনে সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স, আর্জেন্টিনা, দক্ষিণ কোরিয়া ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকের সম্ভাবনা আছে। তিনি দিল্লিতে বাংলাদেশের হাঁড়িভাঙা জাতের আমের চারা রোপণ করবেন।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, যে তিনটি সমঝোতা স্মারক হবে, তা হলো-কৃষি গবেষণা ও শিক্ষা সহযোগিতা, সাংস্কৃতিক চুক্তির মেয়াদ ২০২৩ থেকে ২৫ পর্যন্ত বাড়ানো এবং বাংলাদেশ ব্যাংক ও এনপিসিআইর মধ্যে সমঝোতা স্মারক। তিনি বলেন, ‘ভারতের এনপিসিআই ও বাংলাদেশ ব্যাংকের মধ্যে সমঝোতা স্মারক সই হলে দুই পক্ষের মধ্যে নেটওয়ার্ক-টু-নেটওয়ার্ক সংযোগের মাধ্যমে রুপি-টাকায় পারস্পরিক লেনদেনের কাজ সহজ হবে।’
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। ওই বৈঠকে সব ধরনের দ্বিপক্ষীয় বিষয় আলোচনা হবে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। নির্বাচন নিয়ে আলোচনা হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি জানি না। আমরা যেটি চাই আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতা। আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ— অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন করার জন্য। আমরা কোনও কারচুপি চাই না।’
এ কে মোমেন বলেন, ‘আমরা স্বচ্ছ ও সুন্দর নির্বাচন চাই। সেখানে কেউ যদি আমাদের দিকে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেয়, সেটিকে আমরা স্বাগত জানাই। তবে কেউ যদি মাতব্বরির ভূমিকা নিয়ে আসে, আমরা সেটি সহ্য করবো না। আমরা স্বাধীন ও সার্বভৌম দেশ। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা কাউকে ভয় পায় না।’
তিনি বলেন, ‘আমরা কোনও চাপের মুখে নেই। কারণ, আমরা অত্যন্ত পরিষ্কার যে সুন্দর একটি নির্বাচন করবো। অন্যরা পছন্দ করুক বা না করুক, এটি তাদের সমস্যা।’ তারা চাপের মুখে পড়ে ছাই হয়ে যাবে। কিন্তু আমরা টিকে থাকবো বলে তিনি উল্লেখ করেন। রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ ঢাকা আসছেন। এ বিষয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্ল্যান্ট ঠিক সময়ে শেষ করার তাগাদা দেবো। আমাদের কিছু সমস্যা ছিল মাঝখানে। এগুলো সমাধান হয়েছে। আমরা তাদের দেশ থেকে সার কিনি। এটি আনা নিয়ে কিছু ঝামেলা আছে। তা নিয়ে আলোচনা হবে।’


প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ৮, ২০২৩ | সময়: ৬:৩০ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ