শিক্ষক-শিক্ষিকার অনৈতিক কর্মকান্ডের সত্যতা পেয়েছে তদন্ত কমিটি,ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ

বদলগাছী (নওগাঁ) প্রতিনিধি:

নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার বেগুন জোয়ার উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সহকারি শিক্ষিকার অনৈতিক কর্মকান্ডের সত্যতা পেয়েছে তদন্ত কমিটি। ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য তদন্ত কমিটির প্রধান ও উপজেলা সহকারি মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সুপারিশ করেছেন। এ কমিটির আরো দুই সদস্য হলেন- উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার অঞ্জন কুমার কুন্ডু ও বেগুন জোয়ার উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মিঠন কুমার।

 

এ ঘটনায় তদন্ত কমিটি গত ১২ জুলাই প্রতিষ্ঠানে গিয়ে শিক্ষক-কর্মচারী, বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও স্থানীয়দের বক্তব্য নেন। তাদের বক্তব্য; তারা দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে অনৈতিক কর্মকান্ডের কথা জানিয়ে ওই দুই শিক্ষকের বিচার দাবী করা হয়। গত ২৮ জুলাই সহকারি শিক্ষিকা ও ৫ আগস্ট প্রধান শিক্ষক আবু সাদাত শামীম আহমেদ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে গিয়ে তাদের বক্তব্য দিয়ে আসেন। সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওটি এডিট করা হয়েছে বলে তারা দাবী করেন। তদন্ত কমিটি সংশ্লিষ্ট সকলের দেওয়া তথ্য প্রমাণাদি দেড়মাস সময় নিয়ে যাচাই-বাছাই শেষে ভিডিও’র সত্যতা আছে বলে নিশ্চিত করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরে প্রতিবেদন জমা দেওয়া হয়েছে।

 

তদন্ত কমিটির প্রধান ও উপজেলা সহকারি মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে প্রধান শিক্ষক আবু সাদাত শামীম আহমেদ ও একই স্কুলের সহকারি শিক্ষিকার বিরুদ্ধে অসামাজিক কর্মকান্ডের বিষয়ে অভিযোগ উঠে। পরবর্তিতে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে বেশ কিছু ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। তদন্তে ভিডিও’র সত্যতা পাওয়া যায়। এ ঘটনায় তদন্ত প্রতিবেদন গত ২৩ আগস্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরে প্রেরণ করা হয়েছে। পরবর্তীতে তারা প্রয়োজনীয় পদক্ষেগ গ্রহণ করবেন।

 

বদলগাছী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আলপনা ইয়াসমিন বলেন, মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে এবং আমাকে অনুলিপি দেওয়া হয়েছে। পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

 

উল্লেখ্য- উপজেলার ‘বেগুন জোয়ার উচ্চ বিদ্যালয়ের’ প্রধান শিক্ষক আবু সাদাত শামীম আহমেদ ও একই স্কুলের সহকারি শিক্ষিকা রিফাত আরা ইতির বিরুদ্ধে অফিস কক্ষে অসামাজিক কর্মকান্ডের অভিযোগ উঠে। এমন কিছু ভিডিও মঙ্গলবার (৪ জুলাই) বিকেল থেকে ফেসবুক সহ সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। ঘটনায় বৃহস্পতিবার (৬ জুলাই) তাদের সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। শিক্ষক শিক্ষক আবু সাদাত শামীম আহমেদ এর একের পর এক অনৈতিক কান্ডে স্কুলের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে। তার নারী কেলেঙ্কারির ঘটনায় ফুঁসে উঠে এলাকাবাসী। শিক্ষকদের অনৈতিক কর্মকান্ডের বিষয়ে জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করা হয়।

সানশাইন / শামি


প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২, ২০২৩ | সময়: ১:১৩ অপরাহ্ণ | Daily Sunshine

আরও খবর