নাটোরে সন্ত্রাসী হামলায় উপজেলা চেয়ারম্যান, ছাত্রলীগনেতা আহত

স্টাফ রিপোর্টার, নাটোর: নাটেরে নিজ দলের প্রতিপক্ষের হামলায় নলডাঙ্গা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান আসাদ এবং জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম শাহীন আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার বিকালে নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস এমপির দাফন শেষে ফেরার পথে শহরের পচুর হোটেলে খাবার সময় এ ঘটনা ঘটে। এসময় পচুর হোটেলের খাবার প্লেট গ্লাস ভাংচুর করা হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন এবং হামলার সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করেছে। এদিকে হামলা ও মারপিটের ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।
নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক সৈয়দ মোর্ত্তজা আলী বাবলু জানান, নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা এক সাথে প্রয়াত জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কুদ্দুসের জানাজার নামাজ এবং দাফন শেষে বৃহস্পতিবার বিকালে নাটোরে ফিরছিলেন।
পথে নাটোর শহরের হরিশপুর পুলিশ লাইনের সামনে পৌঁছলে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম শাহীন মোবাইল ফোনে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম রমজানকে জানান পচুর হোটেলে এমপি শিমুলের সমর্থক কয়েকজন তাদের ওপর হামলা করেছে। এরপর লাইন বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।
দ্রুত জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা পচুর হোটেলে পৌছে দেখেন স্টেশন এলাকার কোয়েল, কাউন্সিলর রানা এবং বাপ্পী দ্রুত হোটেল থেকে বের হয়ে আসছে। এ অবস্থায় জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক তাদেরকে দাঁড়াতে বললেও তারা দাঁড়ায়নি। তারা দ্রুত হাইস গাড়িতে করে চলে যান। পরে তারা হোটেলে ঢুকে দেখেন নলডাঙ্গা উপজেলা চেয়ারম্যান রক্তাক্ত গুরুতর আহত। তার মাথায় কাচের গ্লাস দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। ফলে তার মাথা কেটে গুরুতর আহত হয়েছেন। ঘটনার সময় জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম শাহীনকেও আঘাত করা হয়। হোটেলের ভিতরের খাবার সামগ্রী ছড়ানো ছিটানো এবং গ্লাস প্লেট ভাঙ্গা দেখতে পাওয়া যায়।
নলডাঙ্গা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান আসাদ বলেছেন, তিনি ও জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম শাহীনসহ কয়েকজন জানাজা থেকে ফিরে শহরের হোটেলে খাবার সময় কোন কারণ ছাড়াই বাহির থেকে ছুটে এসে শহরের সর্বজন পরিচিত সন্ত্রাসীরা তাদের খাবার সময় মারপিট করে চলে যায়।
জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শরফিুল ইসলাম রমজান জানান, বিষয়টি তিনি নাটোরের পুলিশ সুপার ও নাটোর থানার ওসিকে জানিয়েছেন। নাটোর থানার ওসি এবং কিছু পুলিশ কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে এসে সরজমিনে প্রত্যক্ষ করেছেন। তারা সিসিটভি ফুটেজ সংগ্রহ করেছেন।
এদিকে শফিকুল ইসলাম শিমুল এমপি বলেন, তিনি ঘটনার বিষয়ে কিছুই জানেন না। কারণ তিনিও জানাযা থেকে ঢাকায় যাচ্ছেন। খাবার টেবিলে কি নিয়ে হামলার ঘটনা ঘটলো তা সরজমিনে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন।
তিনি বলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান আসাদ ছাত্রলীগ নেতা জীবন হত্যার আসামী। একারণে তাকে উপজেলা চেয়ারম্যান পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছিল। বুধবার হাইকোর্ট তাকে চেয়ারম্যানের পদ ফিরিয়ে দিতে আদেশ দিলেও তা এখনো কার্যকর হয়নি।
নাটোর থানার ওসি নাসিম আহমেদ বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহ করছেন। তবে এই ঘটনায় এখনো কোন অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।


প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১, ২০২৩ | সময়: ৫:০১ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর