সর্বশেষ সংবাদ :

আরএমপির পুলিশের সহায়তায় বাঁচলো দুই শিক্ষার্থীর শিক্ষা জীবন

স্টাফ রিপোর্টার:

রাজশাহী মহানগরীতে কেন্দ্র ভুল করা এক পরীক্ষার্থীকে মোটরসাইকেলে করে পৌঁছে দিয়েছে আরএমপি’র চন্দ্রিমা থানা পুলিশ। এছাড়াও ভুল করে প্রবেশ পত্র ও রেজিস্টেশন কার্ড কেন্দ্রে না নিয়ে আসা আরও এক পরীক্ষার্থীর প্রবেশ পত্র ও রেজিস্ট্রেশন কার্ড সংগ্রহ করে যথাসময়ে পরীক্ষার ব্যবস্থা করে দিয়েছে কাশিয়াডাঙ্গা থানা পুলিশ।

 

১৭ই আগস্ট বৃহস্পতিবার এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার প্রথম দিন। হাজি জমির উদ্দিন সাফিনা মহিলা কলেজের এক শিক্ষার্থীর কেন্দ্র ছিল রাজশাহী সরকারি মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, রাজশাহীতে। কিন্তু সে ভুলক্রমে চলে যায় রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড সরকারি মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজে। সেখানে রোল নম্বর খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে ভুল বুঝতে পারলেও অনেক সময় অতিবাহিত হয়ে যায়।

 

বিষয়টি পুলিশের নজরে আসলে চন্দ্রিমা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো: মামুনুর রশিদ নিজে সেই পরীক্ষার্থীকে মোটরসাইকেলে করে রাজশাহী সরকারি মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, রাজশাহীতে পরীক্ষা শুরুর পূর্বেই পৌঁছে দেন।

 

এদিকে রাজশাহী মহানগরীর কাশিয়াডাঙ্গা থানা এলাকার এভার গ্রীন মডেল কলেজের এক পরীক্ষার্থী ভুলক্রমে তার প্রবেশপত্র ও রেজিস্ট্রেশন কার্ড সঙ্গে না নিয়ে রাজশাহী কোর্ট কলেজ পরীক্ষা কেন্দ্রে চলে আসে। সেখানে প্রবেশপত্র ও রেজিস্ট্রেশন কার্ড ছাড়া তাকে পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করতে না দিলে বিষয়টি কাশিয়াডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ মোহা: মনিরুজ্জামানের নজরে আসে। পরবর্তীতে তিনি নিজ দায়িত্বে সেই পরীক্ষার্থীর প্রবেশপত্র ও রেজিস্ট্রেশন কার্ড সংগ্রহ করে পরীক্ষার সুব্যবস্থা করে দেন।

 

এই পৃথক দুটি ঘটনায় পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকেরা আবেগাপ্লুত হন এবং রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানান। এছাড়া পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা কেন্দ্রে নির্বিঘ্নে যাতায়াতের জন্য আরএমপি’র ট্রাফিক বিভাগ ও ক্রাইম বিভাগ গুলোকে সম্মিলিতভাবে কার্যকরি ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য নির্দেশ প্রদান করেছেন আরএমপি’র পুলিশ কমিশনার।

উল্লেখ্য, রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের পুলিশ কমিশনার বিপ্লব বিজয় তালুকদার পুলিশ কমিশনার হিসেবে আরএমপিতে যোগদানের পর হতে এই সবুজ সুন্দর নগরীকে একটি নিরাপদ নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে এবং উন্নত ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা চালু করতে বিভিন্ন সচেতনতামূলক কর্মসূচি গ্রহণ করেছেন। ইতোমধ্যে নগরীর বিভিন্ন পেট্রোল পাম্পে “নো হেলমেট, নো ফুয়েল” কর্মসূচি পালিত হচ্ছে। রাজশাহী মহানগরীতে কিশোর অপরাধ, ভেজাল খাদ্যের বিরুদ্ধে সচেতনতা সৃষ্টি এবং আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রনে রাখতে মোটরসাইকেল মহড়া শুরু করেছে আরএমপি। এছাড়াও স্কুল কলেজ শিক্ষার্থীরা ক্লাসের সময় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ব্যতীত যত্রতত্র ঘুরে বেড়াতে দেখলে তাদেরকে সচেতন করছে এবং অভিভাবকদেরকেও সন্তানদের প্রতি নজর দেওয়ার জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে। চালক ও অভিভাবকদের নিয়ে ট্রাফিক আইন প্রতিপালন সংক্রান্তে সচেতনতামূলক সভা করা হয়েছে। চালকের পাশাপাশি আরোহীদের হেলমেট ব্যবহারে সচেতন করা হচ্ছে। খুব শীঘ্রই আরোহীর হেলমেট না থাকলে আইনের আওতায় আনা হবে। আগামীতে স্কুল/কলেজে সচেতনতামূলক কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে। সেখানে শিক্ষার্থীদের ট্রাফিক আইন, রাস্তা পারাপার, ব্যবহার ইত্যাদি সম্পর্কে সচেতন করা হবে। রাজশাহী মহানগরীকে একটি নিরাপদ নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে সকলের সহযোগিতায় প্রত্যাশা করেছেন আরএমপি’র পুলিশ কমিশনার।

সানশাইন / শামি


প্রকাশিত: আগস্ট ১৭, ২০২৩ | সময়: ১০:১৪ অপরাহ্ণ | Daily Sunshine

আরও খবর