সর্বশেষ সংবাদ :

রাবি শিক্ষার্থীকে মারধরের অভিযোগ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) এক শিক্ষার্থীকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ও চৌকিদারের বিরুদ্ধে। ইউনিয়ন পরিষদে নানা অসঙ্গতির প্রতিবাদ করায় এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে।
গত রোববার বেলা ১২টার দিকে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে কোনো ধরনের অভিযোগ না করতে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী ও তাঁর পরিবারকে নানাভাবে হুমকি দিচ্ছেন অভিযুক্ত চেয়ারম্যানের সমর্থকেরা।
ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর নাম মো. রজব আলী। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। অপরদিকে অভিযুক্ত চেয়ারম্যান হলেন মো. তাহির তাহু। তিনি কাকিনা ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি।
ভুক্তভোগী ও প্রত্যক্ষদর্শী জানান, গতকাল ওই ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ভিজিএফ কার্ডের চাল বিতরণ করা হয়। সেখানে চাল তুলতে যান ওই শিক্ষার্থী। তিনি ২ ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থেকে টোকেন জমা দিতে গেলে সেখানে কর্মরত চৌকিদারেরা তাঁকে বলেন, ১ টোকেনে চাল দেওয়া হয় না। ৩টা টোকেন একসঙ্গে করে লাইনের শেষে দাঁড়ান। তখন রজব লাইনের শেষে দাঁড়াতে না চাইলে চৌকিদারের সঙ্গে বাগ্বিতণ্ডা হয়।
একপর্যায়ে চৌকিদারেরা তাঁকে মারধর করেন। এরপর চাল বিতরণের সময় পুরুষ চৌকিদার কর্তৃক সুবিধাভোগী নারীদের সঙ্গে অশালীন আচরণ, পুরুষদের ওপর লাঠিপেটা ভিডিও করতে গেলে তাঁর ফোন কেড়ে নেওয়া হয়। এমনকি মারধর করে চেয়ারম্যানের কক্ষে নেওয়া হয়। পরে চেয়ারম্যান তাহির তাহু বলেন, ‘তুই ছাত্রলীগের কত বড় নেতা হইছিস? ভিডিও করিস?’ বলে রজবকে চর থাপ্পড় মারেন। পরে তাঁকে একটি কক্ষে প্রায় ৩ ঘণ্টা আটকে রাখা হয়।
ভুক্তভোগী রজব আলী বলেন, ‘ইউনিয়ন পরিষদের নানা অনিয়ম নিয়ে প্রতিবাদ করায় চেয়ারম্যান ও চৌকিদাররা আমাকে মারধর করে। পরে আমার পরিচিতরা আমাকে সেখান থেকে উদ্ধার করে। এ ঘটনার পর থেকেই চেয়ারম্যানের লোকজনেরা আমাকে নানাভাবে হুমকি ধামকি দিয়ে আসছেন। আমি বাড়ি থেকে বের হতে পারছি না। আমি ও আমার পরিবারের লোকজন চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।’
অভিযোগের বিষয়ে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে অভিযুক্ত চেয়ারম্যান তাহির তাহু কথা বলতে অস্বীকৃতি জানান। তিনি আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘আপনি কোন জায়গার কোন সাংবাদিক? আপনি সাক্ষাতে এসে কথা বলেন।’
কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাবিবুর রহমান কে বলেন, ‘ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী আমাকে মৌখিকভাবে বিষয়টি জানিয়েছেন। আমি তাঁকে আশ্বস্ত করেছি। তবে লিখিত অভিযোগ পেলে অবশ্যই ঘটনা তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’


প্রকাশিত: জুন ২৭, ২০২৩ | সময়: ৫:৩৩ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর