সর্বশেষ সংবাদ :

সাফের প্রস্তুতিতে এবার কম্বোডিয়ার বিপক্ষে জয় চাই বাংলাদেশের

স্পোর্টস ডেস্ক: প্রস্তুতি ম্যাচের ‘ধকল’ কাটিয়ে উঠতে মঙ্গলবার সে অর্থে ঘাম ঝরায়নি দল। জিমনেশিয়াম, সুইমিংপুলে সময় কাটিয়েছেন জামাল-জিকো-সোহেলরা। বিকালের দিকেও কোনো ট্রেনিং সেশন না থাকায় দিনটা খোশমেজাজেই কাটছে সবার।
কোচ, খেলোয়াড়দের ফুরফুরে মেজাজে থাকার বড় কারণ সোমবার প্রস্তুতি ম্যাচে কম্বোডিয়ান লিগের দল টিফফি আর্মির বিপক্ষে পাওয়া জয়। বৃহস্পতিবার অবশ্য কম্বোডিয়ার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ রয়েছে বাংলাদেশের। আগামী ২১ জুন ভারতের বেঙ্গালুরুতে শুরু হতে যাওয়া সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের আগে এটিই নিজেদের শক্তি, দুর্বলতা খুটিয়ে দেখার শেষ উপলক্ষ। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের মাধ্যমে পাঠানো ভিডিও বার্তায় সহকারী কোচ হাসান আল মামুন জানালেন, আসছে প্রীতি ম্যাচের জন্য প্রস্তুত দল।
“কালকের প্রস্তুতি ম্যাচে আমাদের পুরো দলটাকে দেখার বিষয় ছিল। পুরো দলকে দেখেছি, সবাইকে খেলিয়েছি এবং এটা একটা ইতিবাচক দিক। ম্যাচটা আমরা জিতেছিৃ ছেলেদের মনোবল আরও ভালো হয়েছে বলে আমি আশাবাদী। কম্বোডিয়ার বিপক্ষে আমাদের যে ম্যাচটা আছে, সেই ম্যাচের হোমওয়ার্ক করেছি।”
“আজকে রিকভারি সেশন ছিল। আজকে দলের সঙ্গে বিশ্বনাথ ঘোষ ও ইসা ফয়সাল যোগ দিয়েছে। আজকে আমরা পুরো দলটাকে একসাথে পেয়েছি। রিকভারি সেশন হয়েছে। সবাই ভালো ও অনুপ্রাণিত আছে। কম্বোডিয়ার বিপক্ষে পরের ম্যাচ খেলার জন্য প্রস্তুত সবাই।”
টিফফি আর্মির বিপক্ষে পাওয়া জয়ে দলের আত্মবিশ্বাস বেড়েছে বলেই বিশ্বাস তপু বর্মনের। অভিজ্ঞ এই ডিফেন্ডারের মনে হচ্ছে, কম্বোডিয়ার প্রস্তুতি কাজে লাগবে সাফের মূল লড়াইয়ে। “এই প্রস্তুতি কিন্তু আমরা ঢাকা থেকে শুরু করেছি। এটা ঠিক যে, এখানে আসার পর আমরা ভালো সুযোগ সুবিধার মধ্যে আছি। সবাই খুব অনুপ্রাণিত এবং সক্রিয় আছে (মোটিভেটেড অ্যান্ড অ্যাক্টিভ)। গতকালের ম্যাচটি আমাদের জন্য ভালো একটা ম্যাচ ছিল। কেননা, আমরা কম্বোডিয়ার শীর্ষ লিগের দলের বিপক্ষে খেলেছি। ১-০ গোলে জিতেছি।”
“আমি মনে করি, এই জয় আমাদের বাড়তি অনুপ্রেরণা জোগাবে। সামনে কম্বোডিয়ার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ আছে, এই দুইটা ম্যাচ আমাদের সাফ ফুটবলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের কোন জায়গাতে আরও উন্নতি করা যাবে, কোনটা দুর্বল দিক-এগুলো নিয়ে কাজ করতে পারবে। তো কম্বোডিয়া আসার পর ভালো প্র্যাকটিশ সেশন হচ্ছে, সাথে দুটো ম্যাচ খেলতে পারছি, এটা আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ।”
ভিসা জটিলতা কাটিয়ে সকালে দলের সঙ্গে যোগ দিয়ে দুপুরে রিকভারি সেশন করেছেন বিশ্বনাথ ঘোষ ও ইসা ফয়সাল। বিশ্বনাথ জানালেন, কম্বোডিয়ার বিপক্ষের প্রীতি ম্যাচের লক্ষ্য। “সকালেই কম্বোডিয়া এসেছি। দুপুরে আমাদের রিকভারি ছিল, জিমনেশিয়ামে, সেটা করলাম, এরপর সুইমিং করলাম। সব কিছু মিলিয়ে মনে হচ্ছে, সবাই উজ্জীবিত এবং ভালো আছে। কম্বোডিয়া ম্যাচে লক্ষ্য একটাই-জয় ছাড়া কোনো বিকল্প নেই।” সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে ‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশের সঙ্গে আছে লেবানন, মালদ্বীপ ও ভূটান। ২২ জুন লেবাননের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে মিশন শুরু করবে হাভিয়ের কাবরেরার দল।


প্রকাশিত: জুন ১৪, ২০২৩ | সময়: ৫:২০ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর