বাঘা সীমান্তে মজুত হচ্ছে মাদক,ঈদের সময় ঝাঁকে-ঝাঁকে আসবে সেবনকারী !

স্টাফ রিপোর্টার,বাঘা :

এবার খোদ উপজেলা প্রশাসনের মাসিক সভায় মাদক মজুতের তথ্য দিলেন ইউপি চেয়ারম্যান। সোমবার (১২ জুন) সকালে বাঘা উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে অনুষ্ঠিত আইন শৃংখলা নিয়ন্ত্রন, মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন, চোরাচালান প্রতিরোধ ও নাশকতা প্রতিরোধ নিয়ে পৃথক চারটি মাসিক সভায় এ তথ্য দেন মনিগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম । তিনি বলেন, এবার কোরবানীর ঈদকে সামনে রেখে বাঘা সীমান্ত এলাকায় মজুত হচ্ছে মাদক। ঈদের সময় পাখির ন্যায় ঝাঁকে-ঝাঁকে আসবে সেবনকারীরা। তাঁর এ কথা শুনে উদ্বেগ প্রকাশ করেন সভার অন্যান্য সদস্যরা।

 

 

এর আগে বাঘা উপজেলা সীমান্তরক্ষী আলাইপুর বিজিবি ক্যাম্প কমান্ডার আব্দুর রশিদ তাঁর বক্তব্যে পূর্বের চেয়ে মাদকের প্রবনতা কমেছে দাবি করে বলেন , গত এক মাসে তাঁরা বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে পৃথক-তিনটি অভিযানে ৫ কেজি ৯শ’ গ্রাম হেরোইন,এ ছাড়াও অপর দু’টি অভিযানে ১ কেজি ভারতীয় কোকেন এবং একটি নৌকা সহ-১০৯ বোতল ফেন্সিডিল জব্দ করেন। তবে এসব ঘটনার সাথে কোন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক দেখাতে না পারায় প্রশ্নে সম্মুখিন হন তিনি। অপর দিকে বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ(ওসি) খাইরুল ইসলাম জানান, গত এক মাসে তাঁর থানায় মোট ২৩ টি মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। এর মধ্যে ১৬ টি মাদক।

 

সকাল ১১ টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আখতারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত মাসিক সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভুমি) জুয়েল আহাম্মেদ, বাঘা পৌর মেয়র আক্কাস আলী, বাঘার সীমান্তবর্তী পাকুড়িয়া ও মনিগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান যথাক্রমে-মেরাজুল ইসলাম মেরজা ও সাইফুল ইসলাম, বাঘা মোজাহার হোসেন মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ নছিম উদ্দিন, রহমতুল্লা বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বাবুল ইসলাম, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আ.ফ.ম মাহামুদুল হাসান ও বাঘা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নুরুজ্জামান। উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল মোকাদ্দেস, সকল ইউপি চেয়ারম্যান, উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের প্রধান কর্মকর্তা বৃন্দ,শিক্ষক মন্ডলী ও ইমাম-সহ সুশীল সমাজের নেত্রীবৃন্দ।

 

সভায় মাদক সেবন ও বিক্রী, হাটে অতিরিক্ত টোল আদায়, গণহারে যে কোন বিষয় নিয়ে মাইকিং, বাল্য বিয়ে প্রতিরোধ, দ্রব্য মুল্যের বাজার মনিটরিং ,যানজট নিরসন, ইমো-বিকাশ হ্যাকিং, উন্নয়ন কাজে অনিয়ম এবং মাদক উদ্ধারে বাঘার দু’টি সীমান্তরক্ষী বিজিবি ক্যাম্পের অসন্তষ্ট জনক কার্যক্রম ও দলিল লেখকদের-অনিয়ম দুর্ণীতি নিয়ে আলোচনা হয়। তবে সীমান্তরক্ষী বিজিবি ক্যাম্প কর্তৃক আসামী গ্রেফতারে ব্যর্থতা এবং ইউপি চেয়ারম্যান কর্তৃক কোরবানীর ঈদকে সামনে রেখে মাদক মজুতের বক্তব্য শুনে উদ্বেগ প্রকাশ করেন উপস্থিত সদস্যরা।

 

এদিকে পৃথক চারটি সভার সভাপতি ও বাঘা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আখতার বলেন, আজকের সভায় অনেক গুরুত্বপূর্ন কিছু বিষয় উঠে এসছে। পর্যায় ক্রমে সব গুলোয় দেখভাল করা হবে। তিনি নানা অভিযোগের প্রেক্ষিতে বাঘা থানা পুলিশ-সহ উপস্থিত সকলের সহোযোগিতা কামনা করেন।

সানশাইন / শামি

 


প্রকাশিত: জুন ১২, ২০২৩ | সময়: ৯:৩৩ অপরাহ্ণ | Daily Sunshine