চককসবা বিলে প্রভাবশালীদের দখলের বাঁধ ভাঙছে জেলেরা

মান্দা প্রতিনিধি: নওগাঁর মান্দা উপজেলার চককসবা বিলের সরকারি সম্পত্তি দখলমুক্ত করতে কোদাল হাতে বিলে নেমেছে জেলেরা। শনিবার সকাল থেকে বিলের আশপাশের ১৩ গ্রামের অন্তত তিনশর বেশি জেলে প্রভাবশালীদের দেওয়া বাঁধ কেটে অপসারণ কাজ শুরু করেছে। এসময় দুপক্ষের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে উত্তেজনা।
সংবাদ পেয়ে দুপুরের দিকে ওই বিলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জাকির মুন্সী। এসময় প্রশাসনের উপস্থিতি টের পেয়ে খননযন্ত্র পেলে পালিয়ে যায় দখলবাজরা। পরে সেখান থেকে একটি খননযন্ত্র জব্দ করা হয়।
সরজমিনে দেখা যায়, চককসরা বিলের ভেতর দিয়ে পানি নিষ্কাশনের জন্য একটি খাল রয়েছে। সেই খালের মুখ বন্ধ করে খণ্ড খণ্ড বাঁধ দিয়ে সরকারি সম্পত্তি দখল করে নিয়েছে স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি। এতে করে বর্ষা মৌসুমে চককসবা বিলের উজানে থাকা ৬-৭টি বিলের পানি নিষ্কাশন হতে পারবে না। জলাবদ্ধতার কবলে পড়ে উজানের ওইসব বিলের তিন ফসলি জমিতে চাষাবাদ ব্যাহত হবে।
নলতৈড় গ্রামের বাসিন্দা মাহবুব আলম বলেন, শুকনো মৌসুমে খালের পানি ব্যবহার করে বিলে বোরো ধানের চাষ করেন এলাকার কৃষকেরা। খালের মুখে বাঁধ দেওয়ায় বিলের স্বাভাবিক পানি প্রবাহ বাধাগ্রস্থ হয়ে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হবে। আগামিতে বিলে আর বোরো ধানের চাষ হবে না।
চককসবা বিল মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির সভাপতি নজরুল ইসলাম বলেন, ‘সরকারি সম্পত্তি বেদখল হলে বিলে আর মাছ শিকার করতে পারবে না ১৩ গ্রামের অন্তত তিন হাজার জেলে। আয়ের একমাত্র পথ বন্ধ হয়ে গেলে এসব জেলে পরিবারে নেমে আসবে চরম দুর্দিন। পরিবার-পরিজন নিয়ে অনেকেই পথে বসবেন। জেলেদের জীবন জীবিকার স্বার্থে বিলটি দখলমুক্ত করতে নিজেরাই কোদাল হাতে বিলে নেমেছি।’
এ প্রসঙ্গে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জাকির মুন্সী বলেন, ‘চককসবা বিল দখলমুক্ত করতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হয়। কিন্তু প্রশাসনের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায় দখলবাজরা। পরে পরিত্যক্ত অবস্থায় খননযন্ত্রের একটি ব্যাটারি জব্দ করা হয়েছে।
একই সঙ্গে বিলের স্বাভাবিক অবস্থা বজায় রাখতে দখলবাজদের দেওয়া বাঁধ অপসারণের জন্য জেলেদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’


প্রকাশিত: মে ২৮, ২০২৩ | সময়: ৬:১৯ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ