শ্রমিক সংকট নিরসন ও সময় সাশ্রয় সিংড়ায় সমলয় পদ্ধতিতে চাষাবাদ

সিংড়া প্রতিনিধি: নাটোরের সিংড়ায় বোরো ধানের ফলন বাড়ানোর জন্য সমলয় পদ্ধতিতে চাষাবাদ শুরু করছেন কৃষকরা। আধুনিক প্রযুক্তির প্রসারে ট্রেতে চারা উৎপাদনের ফলে ধানের উৎপাদন খরচ কম হয়। এদিকে শ্রমিক সংকট নিরসন ও সময় সাশ্রয় হওয়ায় এ পদ্ধতিতে চাষাবাদে আগ্রহ বাড়ছে কৃষকদের।
শুধু তাই নয়, এ পদ্ধতিতে বিঘাতে প্রায় ৩৩ মণ ধান উৎপাদন হয়। উপজেলা কৃষি অধিদপ্তরের সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে এ বছর প্রথম ৫০ একর জমিতে সমলয় চাষাবাদ করা হয়।
মঙ্গলবার পৌরসভার বালুভরা এলাকায় বোরো ধানের সমলয় চাষাবাদ ব্লক প্রদর্শনীর ধান কর্তনের উদ্বোধন করেন নাটোরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) আবু নাছের ভূঁঞা। নাটোর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আব্দুল ওয়াদুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার সাইফুর রহমান, সিংড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার আল ইমরান, ভাইস চেয়ারম্যান কামরুল হাসান কামরান।
উপস্থিত ছিলেন সিংড়া থানার ওসি মিজানুর রহমান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আল-আমিন সরকার, উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাওলানা রুহুল আমিন, কৃষক আব্দুর রাজ্জাক প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সেলিম রেজা। উপজেলা কৃষি অফিসের তথ্যমতে, প্রথমবারের মতো এ উপজেলায় ৫০ একর জমিতে সমলয় পদ্ধতিতে চাষাবাদ করা হয়েছে। এতে শ্রমিক, সার, বীজ সাশ্রয় হয়েছে। এমনকি ফলনও বেশি হয়েছে।
কৃষক আব্দুর রাজ্জক বলেন, এ পদ্ধতি আগে কখনো দেখিনি। প্রথমবারের মতো কৃষি কার্যালয়ের আগ্রহে এবং তাদের তত্ত্বাবধায়নে সমলয় পদ্ধতিতে বোরো চাষাবাদ করছি। উপজেলায় ৫০ একর জমিতে সমলয় পদ্ধতিতে বোরো ধান চাষাবাদ হয়েছে। আশাকরি ভালো ফলন হবে। এবছর ফলন ভালো হলে কৃষকদের আগ্রহও বাড়বে।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ সেলিম রেজা বলেন, জনসংখ্যার খাদ্যচাহিদা মেটানোর জন্য ধানের আবাদ ও উৎপাদন বাড়ানো প্রয়োজন। সমলয়ে চাষাবাদের মাধ্যমে আধুনিক প্রযুক্তির প্রসারসহ ধানের উৎপাদন খরচ কমানো ও সময় সাশ্রয় হবে।


প্রকাশিত: মে ১০, ২০২৩ | সময়: ৫:২১ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর