ইন্দোনেশিয়া থেকে সরিয়ে নেয়া বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে আর্জেন্টিনায়

স্পোর্টস ডেস্ক: অনূর্ধ্ব-২০ ফুটবল বিশ্বকাপের পরিবর্তিত আয়োজক হিসেবে লাতিন আমেরিকান দেশ আর্জেন্টিনার নাম ঘোষণা করেছে ফিফা। ইন্দোনেশিয়ার কাছ থেকে বিশ্বকাপ আয়োজনের মর্যাদা কেড়ে নেয়ার পর আর্জেন্টিনাকে নতুন আয়োজক নির্ধারণ করা হলো। ২০ মে থেকে ১১ জুন পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে এই বিশ্বকাপটি।
ইসরায়েলকে নিয়েই মূল ঝামেলা বেধেছিলো ইন্দোনেশিয়ায়। অনুর্ধ্ব-২০ বিশ্বকাপের মূল আয়োজক ছিল ইন্দোনেশিয়া। কিন্তু এই বিশ্বকাপে একটি অংশগ্রহণকারী দেশ হলো ইসরায়েল। টুর্নামেন্টের ড্র করতে গিয়ে দেখা গেলো ইন্দোনেশিয়ার বেশ কয়েকটি রাজ্য ইসরায়েলের ম্যাচ আয়োজন করতে রাজী নয়।
এ সমস্যা সামনে আসার সঙ্গে সঙ্গেই ফুটবলের আন্তর্জাতিক সংস্থা ফিফা ইন্দোনেশিয়াকে বিশ্বকাপ আয়োজকের মর্যাদা থেকে বাতিল করে দেয়। ওই সময়ই তারা ঘোষণা দেয়, পূর্বঘোষিত সময় অনুযায়ই অনুষ্ঠিত হবে বিশ্বকাপ এবং খুব দ্রুতই আয়োজক দেশের নাম ঘোষণা করা হবে।
এরই মধ্যে আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য আবেদন জানায় ফিফার কাছে। এরপরই গত সপ্তাহে ফিফার ডেলিগেশন দল আর্জেন্টিনার প্রস্তাবিত ভেন্যু এবং অবকাঠামোগত অব্স্থান পর্যবেক্ষণ করতে যায়। সেই ডেলিগেশন দলের রিপোর্ট পেয়েই ফিফা আর্জেন্টিনাকে আয়োজক দেশ হিসেবে নাম ঘোষণা দেয়।
২০ মে থেকে ১১ জুন অনুষ্ঠিতব্য এই টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণকারী দেশ ২৪টি। আর্জেন্টিনার ভাগ্য ভালো যে, এবার আয়োজক হিসেবে তারা টুর্নামেন্টে খেলতে পারছে। এমনিতে আর্জেন্টিনা অনুর্ধ্ব-২০ বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে পারেনি। কিছুদিন আগেই লাতিন আমেরিকা অনুর্ধ্ব-২০ টুর্নামেন্টে খুবই বাজে পারফরম্যান্স করেছিলো। যে কারণে তারা বিশ্বকাপেই খেলার যোগ্যতা অর্জন করেনি।
কিন্তু এবার আয়োজক হওয়ার কারণে ইন্দোনেশিয়ার জায়গায় অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্বকাপে খেলবে আর্জেন্টিনাই। যদিও এই ফরম্যাটের টুর্নামেন্টে আর্জেন্টিনা সবচেয়ে সফল দল। এখনও পর্যন্ত ৬বার চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলো তারা। সর্বশেষ জিতেছিলো ২০০৭ সালে। আর ট্র্নুামেন্টটি তারা সর্বশেষ আয়োজন করেছিলো ২০০১ সালে।


প্রকাশিত: এপ্রিল ১৯, ২০২৩ | সময়: ৫:৫৮ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর