চিনির দাম কেজিতে তিন টাকা কমালেও অপরিবর্তিত বাজার

মাহফুজুর রহমান প্রিন্স, বাগমারা: সরকার চিনির দাম কেজিতে তিন টাকা কমালেও বাগমারার বাজারে এর প্রভাব পড়েনি। অভিযোগ রয়েছে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে চিনির পূর্ব দামই বহাল রেখেছে। ফলে রমজামে রোজাদাররা চিনি কিনতে হিমসিম খাচ্ছে।
খোজ নিয়ে জানা গেছে, পরিশোধিত চিনির দাম সমন্ময় করেছে বানিজ্য মন্ত্রনায়ল। খোলা চিনির দাম কেজিতে তিন টাকা কমিয়ে ১০৪ টাকা এবং প্যাকেটজাত চিনির দাম প্রতিকেজিতে তিন টাকা কমিয়ে ১০৯ টাকা নির্ধারন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বানিজ্য মন্ত্রনালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে। নতুন দাম শনিবার থেকে কার্যকর করার কথা।
শনিবার থেকে চিনির নতুন দাম কার্যকর করার কথা থাকলেও শনিবার ভবানীগঞ্জ, তাহেরপুর, মোহনগঞ্জ ও শিকদারী সহ কয়েকটি হাট বাজার ঘুরে দেখা গেছে কোথাও হ্রাসকৃত মূল্যে চিনি পাওয়া যায়নি। এসব হাট-বাজার সহ আশেপাশের বিভিন্ন হাট-বাজার ঘুরে দেথা গেছে আগের দরেও চিনি বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা। অর্থাৎ প্রতি কেজি খোলা চিনির দাম রাখা হচ্ছে ১১৫ টাকা এবং প্যাকেটজাত চিনির প্রতিকেজির দাম রাখা হচ্ছে ১২০ টাকা।
জানা গেছে, বিশ্ববাজারে চিনির দাম কমার কারণে বানিজ্য মন্ত্রনালয় নিয়মিত দাম সমন্ময়ের অংশ হিসাবে চিনির নতুন দাম নির্ধারন করা হলেও বাগমারার কোথাও বাস্তবে এর প্রতিফলন না থাকায় হতাশ ও ক্ষোভ ব্যক্ত করেছেন সাধারন ভোক্তারা। তাদের অভিযোগ প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিত্যপন্যের বাজার মনিটরিং ও ভেজাল প্রতিরোধ সহ বাজার পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে অভিযান পরিচালনা করা হলে ব্যবসায়ীরা কিছুটা সতর্ক হবে।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু সুফিয়ান বলেন, আমরা হাট-বাজার পরিস্থিতির উপর গভীরভাবে নজর রাখছি। কোথাও কোন অসংগতি পরিলক্ষিত হলে দ্রুত অভিযানসহ আইনী সকল ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।


প্রকাশিত: এপ্রিল ৯, ২০২৩ | সময়: ৫:৪৭ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ