মাহে রমজান

স্টাফ রিপোর্টার : রহমত, বরকত ও মাগফিরাতের মাস রমজান। এই মাস বিশ্বের সব ধর্মপ্রাণ মুসলমানের কাছেই অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সবাই চায় কীভাবে এ মাস থেকে বেশি সওয়াব লাভ করা যায়। ১৪০০ বছর আগে পবিত্র রমজান মাসে নবী করিম (সা.) এর ওপর আসমানি কিতাব আল কোরআন নাজিল হয়। এটা মুসলমানরা বিশ্বাস করেন। এজন্য পবিত্র রমজান মাসে তাকওয়া এবং আল্লাহর নৈকট্য অর্জনের জন্য একজন মুসলিম ব্যক্তি দিনের বেলা খাবার খাওয়া, কোনো কিছু পান করা এবং যৌন সম্পর্ক স্থাপন থেকে নিজেকে বিরত রাখেন।
হিজরী ক্যালেন্ডারে বারো মাসের মধ্যে শুধুমাত্র একটি মাসের নামই পবিত্র কোরআনে উল্লেখ করা হয়েছে, আর সে মাসটি হলো রমজান।
ফারসি শব্দ রোজার আরবি অর্থ হচ্ছে সওম, বহুবচনে সিয়াম। সওম বা সিয়ামের বাংলা অর্থ বিরত থাকা। আর সিয়াম সাধনার অর্থ: সুবহে সাদিক থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত সব ধরনের পানাহার, পাপাচার এবং খারাপ কাজ থেকে নিজেকে বিরত ও সংযত রাখা। এ পবিত্র মাস মানুষকে সব ধরনের গর্হিত ও অনৈতিক কার্যকলাপ থেকে বিরত রাখে এবং সবাইকে সাধ্যমত ইবাদাত বন্দেগি করার জন্য উৎসাহিত করে।
প্রকৃতপক্ষে রমজান হলো অতীতের সব গুনাহর জন্য ক্ষমা চেয়ে সাচ্চা মুসলমান হয়ে জীবনযাপনের প্রতিজ্ঞা করার মাস। অসংখ্য কারণে পবিত্র রমজান মাস অন্যান্য মাসের ওপর শ্রেষ্ঠত্বের দাবিদার।


প্রকাশিত: মার্চ ২৫, ২০২৩ | সময়: ৬:২৩ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ