সর্বশেষ সংবাদ :

কুনেমানের স্পিনে বিধ্বস্ত ভারতের ব্যাটিং, অস্ট্রেলিয়ার লিড

স্পোর্টস ডেস্ক: সতীর্থের শূন্যতা পূরণে সিরিজের মাঝপথে ডাক পাওয়া ম্যাথু কুনেমান মন্থর, টার্নিং উইকেট পেয়ে বিধ্বংসী হয়ে উঠলেন। বাঁহাতি এই স্পিনারের ছোবলে দলের রান পঞ্চাশ ছোঁয়ার আগেই পাঁচ উইকেট হারানো ভারত গুটিয়ে গেল একশ পেরিয়ে। জবাবে দিনের শেষভাগে দ্রুত কয়েকটি উইকেট হারালেও লিড ঠিকই নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া।
সিরিজের প্রথম দুই টেস্টে জিতে বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফি ধরে রাখা আগেই নিশ্চিত করেছে ভারত। অস্ট্রেলিয়ার জন্য এখন লড়াই তাই মূলত জয়ে ফেরার, ভারতের মাটিতে দীর্ঘ জয়খরা কাটানোর। সেই লক্ষ্যে ইন্দোরে সিরিজের তৃতীয় টেস্টে বুধবার দুর্দান্ত শুরু করে সফরকারীরা। মন্থর উইকেটে প্রথম দিন থেকে টার্নিংও মেলে সমানে, সেই সঙ্গে ছিল অসমান বাউন্স। সেই সুবিধা কাজে লাগিয়ে ভারতকে মাত্র ১০৯ রানে গুটিয়ে দেয় অস্ট্রেলিয়ার তিন স্পিনার।
বোলারদের তৈরি করে দেওয়া ভিতের ওপর দাঁড়িয়ে অস্ট্রেলিয়া দিন শেষ করেছে ৪ উইকেটে ১৫৬ রান নিয়ে। ৪৭ রানে এগিয়ে আছে তারা। ক্যারিয়ারে দ্বিতীয় টেস্ট খেলতে নেমে ১৬ রানে পাঁচ উইকেট নেন কুনেমান, যা তার ক্যারিয়ার সেরা। আরেক স্পিনার ন্যাথান লায়ন নেন তিন উইকেট।
চোট কাটিয়ে দীর্ঘ সময় পর এই সিরিজ দিয়ে ফেরা জাদেজা আবারও বল হাতে জ্বলে উঠেছেন। ৪ উইকেট নিয়েছেন তিনি। তার বিষাক্ত বোলিংয়ের মাঝেই ৬০ রানের দারুণ ইনিংস খেলে দলকে লিড পাইয়ে দেন উসমান খাওয়াজা। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে প্রথম ওভারেই উইকেট হারাতে পারত ভারত। পারিবারিক কারণে দেশে ফেরা অধিনায়ক প্যাট কামিন্সের জায়গায় খেলতে নামা মিচেল স্টার্কের ওই ওভারে দুবার বেঁচে যান রোহিত শর্মা।
ম্যাচের প্রথম বল রোহিতের ব্যাটের বাইরের কানা নিলেও আম্পায়ার সাড়া দেননি, অস্ট্রেলিয়াও নেয়নি রিভিউ। আল্ট্রা এজে দেখা যায়, আউট ছিলেন ভারত অধিনায়ক। তিন বল পর আবারও পরাস্ত হন রোহিত, এবার বল তার ব্যাটকে ফাঁকি দিয়ে আঘাত হানে পেছনের পায়ে। কিন্তু এলবিডব্লিউরে আবেদনে আম্পায়ার সাড়া দেননি, অস্ট্রেলিয়াও নেয়নি রিভিউ। বল ট্র্যাকিংয়ে দেখা যায়, আঘাত হানত স্টাম্পে।
ভাগ্যকে ওভাবে পাশে পেলেও তা কাজে লাগাতে পারেননি রোহিত। ষষ্ঠ ওভারে কুনেমানের হাতে বল তুলে দেন এই ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াকে নেতৃত্ব দেওয়া স্টিভেন স্মিথ। ওভারের ষষ্ঠ বলেই স্টাম্পড হয়ে ফেরেন রোহিত। এক ওভার পর কুনেমানের বলেই স্লিপে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন শুবমান গিল।
এরপর নিজের পরপর দুই ওভারে চেতেশ্বর পুজারাকে বোল্ড করার পর রবীন্দ্র জাজেদাকে বিদায় করেন লায়ন। আর কুনেমান দ্বাদশ ওভারে শ্রেয়াস আইয়ারের স্টাম্পস ভেঙে দিলে প্রথম ঘণ্টা শেষে ভারতের স্কোর দাঁড়ায় ৪৫/৫। সেখান থেকে আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি তারা। শ্রিকর ভারতকে নিয়ে ধাক্কা সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন বিরাট কোহলি; কিন্তু পারেননি তিনি। এই সিরিজেই আরেক অভিষিক্ত টড মার্ফির স্পিনে এলবিডব্লিউ হয়ে ফেরার আগে ইনিংস সর্বোচ্চ ২২ রান করেন কোহলি।
রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও উমেশ যাদবকে ফিরিয়ে পাঁচ উইকেটের কোটা পূরণ করেন ২৬ বছর বয়সী কুনেমান। প্রতিপক্ষ স্পিনারদের সাফল্য দেখেই হয়তো অশ্বিন ও জাদেজাকে দিয়ে বোলিং আক্রমণ শুরু করেন রোহিত। সাফল্যও মেলে দ্রুত। প্রথম দুই টেস্ট মিলিয়ে ১৭ উইকেট নেওয়া এবং গত টেস্টে ম্যাচ সেরা হওয়া জাদেজা বল হাতে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই আঘাত হানেন, এলবিডব্লিউ করে ফেরান ট্রাভিস হেডকে। আবেদনে আম্পায়ার সাড়া না দিলে রিভিউ নিয়ে সফল হয় ভারত।
জাজেদার দ্বিতীয় ওভারে বল মার্নাস লাবুশেনের ব্যাটে লেগে স্টাম্প ভেঙে দেয়, তবে জাদেজার ওভারস্টেপিংয়ের জন্য বলটি ছিল ‘নো।’ তখন শূন্য রানে ছিলেন লাবুশেন। বেঁচে গিয়ে দ্বিতীয় উইকেটে খাওয়ার সঙ্গে মহামূল্যবান ৯৬ রানের জুটি গড়েন লাবুশেন। পরে অবশ্য তাকে বোল্ড করেই ফেরান জাদেজাই। দিনের শেষ আধা ঘণ্টায় আরও দুটি উইকেট তুলে নেয় স্বাগতিকরা, ফিরে যান খাওয়াজা ও স্মিথ। তবে হাতে এখনও ৬ উইকেট থাকায় লিড আরও বড় করার সম্ভাবনাই দেখছে অস্ট্রেলিয়া। পিটার হ্যান্ডসকম ৭ ও ক্যামেরন গ্রিন ৬ রানে ব্যাট করছেন।


প্রকাশিত: মার্চ ২, ২০২৩ | সময়: ৬:০৩ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ