অপরাজিত ১৮৪ রান করেও অন্য এক সেঞ্চুরি ব্রুকের

স্পোর্টস ডেস্ক: নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টে এসেও রীতিমত ওয়ানডে-টি-টোয়েন্টি স্টাইলে ব্যাটিং করতে শুরু করেছে ইংল্যান্ড। এই অসাধারণ ব্যাটিংয়ে সবচেয়ে বড় অবদান জো রুট এবং হ্যারি ব্রুকের। এই দু’জনই করেছেন জোড়া সেঞ্চুরি। শুধু তাই নয়, ১০১ রানে রুট এবং ১৮৪ রানে অপরাজিত রয়েছেন হ্যারি ব্রুক। প্রথম দিন খেলা হয়েছে ৬৫ ওভার। তাতে ইংল্যান্ডের রান ৩ উইকেট হারিয়ে ৩১৫।
তবে, ১৮৪ রান করলেও এই ইনিংস খেলার পথে অন্যরকম অসাধারণ একটি সেঞ্চুরি করে ফেললেন ইংল্যান্ডের এই মিডল অর্ডার। টেস্ট ক্রিকেটে ব্রুকের ইনিংস প্রতি গড় রান ছাড়িয়ে গেলো ১০০ এর মাইলফলক।
১৬৯ বলে ২৪টি চার এবং ৫টি ছক্কার সাহায্যে তিনি ১৮৪ রান করার পর তার গড় দাঁড়িয়েছে ১০০.৮৮। এখনও পর্যন্ত ছয়টি টেস্ট খেলে ব্রুকের সংগ্রহ ৮০৭ রান। এর মধ্যেই সেঞ্চুরি করেছেন চারটি। রয়েছে তিনটি অর্ধশতরানের ইনিংসও। শুক্রবারের ইনিংসই টেস্টে ব্রুকের সর্বোচ্চ রানের ইনিংস। শনিবার তার সামনে টেস্টে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি করার সুযোগ থাকছে।
টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি গড় ডন ব্র্যাডম্যানের। তিনি ৫২ টেস্ট খেলে ৯৯.৯৪ গড়ে করেছিলেন ৬৯৯৬ রান। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন অস্ট্রেলিয়ারই অ্যাডাম ভোজেস। ২০ টেস্টে ৬১.৮৭ গড়ে করেছিলেন ১৪৮৫ রান। তৃতীয় স্থানে রয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক ক্রিকেটার গ্রায়েম পোলক। তিনি ২৩টি টেস্টে ৬০.৯৭ গড়ে করেছিলেন ২২৫৬ রান।
নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম ইনিংসে অপরাজিত থাকায় টেস্ট ক্রিকেটে গড় রানে সকলকে ছাপিয়ে গেলেন ব্রুক। এই টেস্টের আগে পাঁচটি টেস্টে ব্রুক ৭৭.৮৭ গড়ে ৬২৩ রান করেছিলেন। এখন যে অবস্থায় রয়েছেন এ অবস্থায় আউট হয়ে গেলে অবশ্য ১০০’র বেশি গড় ধরে রাখতে পারবেন না তিনি।
২২ গজে ব্রুকের সঙ্গে অপরাজিত রয়েছেন রুট। প্রথম দিনের শেষে তার সংগ্রহ ১০১ রান। ইংল্যান্ডের শুরুটা অবশ্য এতটা ঝকঝকে ছিল না। মাত্র ২১ রানেই ৩ উইকেট হারিয়েছিলেন সফরকারীরা। দুই ওপেনার জ্যাক ক্রাউলি (২) এবং বেন ডাকেট (৯) শুরুতেই আউট হয়ে যান। রান পাননি তিন নম্বরে নামা অলি পোপও (১০)।
চাপের মুখে দলের ইনিংসের হাল ধরেন রুট এবং ব্রুক। তারাই সামলান শুরুর ধাক্কা। চতুর্থ উইকেটে তাদের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে উঠেছে ২৯৪ রান। খারাপ আবহাওয়ার জন্য প্রথম দিন খেলা হয়েছে ৬৫ ওভার। যদিও তা ইংল্যান্ডের স্কোরবোর্ডের দিকে তাকালে বোঝা সম্ভব নয়। ওভার প্রতি ৪.৮৪ গড়ে রান তুলেছেন ইংল্যান্ডের ব্যাটাররা।
সবচেয়ে আগ্রাসী ছিলেন ব্রুকই। তার দাপুটে ব্যাটিংয়ের সামনে নিউজিল্যান্ডের কোনও বোলারই তেমন সুবিধা করতে পারেননি। নিউজিল্যান্ডের পক্ষে ম্যাট হেনরি ৬৪ রান দিয়ে ২ উইকেট নিয়েছেন। টিম সাউদি ৪৮ রানে ১ উইকেট পেয়েছেন। একমাত্র তার বলই কিছুটা সমীহের সঙ্গে খেলেছেন ইংল্যান্ডের ব্যাটাররা। কোচ ব্রেন্ডন ম্যাকালামের পরামর্শ মতো টেস্টেও আগ্রাসী ব্যাটিং করছেন বেন স্টোকসরা। যাকে বলা হচ্ছে বাজবল ক্রিকেট। ইংরেজদের আগ্রাসন থেকে রেহাই পাচ্ছে না কোচের দেশও (নিউজিল্যান্ড)!


প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২৩ | সময়: ৫:৫৯ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ