চাকরির প্রলোভন দিয়ে টাকা হাতিয়ে নেয়া প্রতারক গ্রেপ্তার

আক্কেলপুর প্রতিনিধি: জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে প্রাইমারি স্কুলে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে তিন লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়া মুল হোতা নুর নবী (৪০) নামের এক প্রতারককে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৫।
সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় উপজেলার তিলকপুর বাজার থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি উপজেলার তিলকপুর ইউনিয়নের রায়নগর গ্রামের মৃত উজির উদ্দিনের ছেলে।
এ ছাড়া চাকরি দেয়ার নামে প্রতারণার অভিযোগে তিন জনকে সোমবার বিকেলে উপজেলার কলেজ বাজার এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। তারা হলেন, আক্কেলপুর পৌরশহরের মৃধাপাড়া মহল্লার বাসিন্দা ও আক্কেলপুর সরকারি মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরি রায়হানুল হক মৃধা (৪২), কেশবপুর গ্রামের জুয়েল হোসেন (৩৭) ও একই গ্রামের ফিরোজ হোসেন (৩৮)।
মঙ্গলবার জয়পুরহাট র‌্যাব ক্যাম্পের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।
জয়পুরহাট র‌্যাব ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক মেজর মোস্তফা জামান জানান, জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার তিলকপুর বাজার এলাকা থেকে ভুয়া নিয়োগপত্র প্রদানের মাধ্যমে তিন লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়া প্রতারক চক্রের প্রধান নুরনবীকে গ্রেপ্তার করা হয়।
তার চাচাতো ভাই একজন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক। সে সুযোগ কাজে লাগিয়ে চাকরির মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে কখনো বা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চাকরির ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে প্রার্থীদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিত।
মেজর মোস্তফা জামান আরও জানান, নুর নবী এবং ওয়াকিল উদ্দিন উভয়েই একটি প্রতারক সিন্ডিকেট হিসাবে কাজ করছেন। ২০১৮ সাল থেকে দরিদ্র লোকদের সাথে প্রতারণামূলক কার্যকলাপ করছেন নুর নবী। ওয়াকিল উদ্দিন তার সহকারি হিসেবে কাজ করেন এবং জাল কাগজপত্র তৈরির দায়িত্ব পালন করেন। নুর নবী ২০২১ সালে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চাকরি দেওয়ার জন্য শাহজাহান আলী (২৮) নামে এক ব্যক্তির কাছ থেকে ৩ লাখ টাকা নেন।
পরে ওয়াকিল উদ্দিনের মাধ্যমে তাকে ভুয়া নিয়োগপত্র দেন। ঢাকায় ওই চাকরিতে যোগ দিতে গেলে ওই ভুয়া নিয়োগপত্রের কথা জানতে পারেন তিনি। পরে ভুক্তভোগী বাদী হয়ে জয়পুরহাট র‌্যাব ক্যাম্পে অভিযোগ করেন। এরপর র‌্যাব-৫ এর একটি অভিযানিক দল জাল কাগজপত্রসহ তাকে আটক করে।
এছাড়া জয়পুরহাট র‌্যাব ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক মেজর মোস্তফা জামান আরও জানান, অভিযান চালিয়ে কলেজ বাজার এলাকা থেকে সেনাবাহিনীতে চাকরী দেওয়ার নামে প্রতারণার দায়ে আরও তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এই প্রতারক চক্র ২০১৪ সাল থেকে বিভিন্ন লোকজনের সঙ্গে চাকরি দেয়ার নামে প্রতারণা করে আসছে।
বিশেষ করে ভুয়া নিয়োগপত্র দেয়ার মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিত তারা। কখনো নিয়োগের মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে, কখনো জাল নিয়োগপত্র দিয়ে প্রার্থীদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিত।
তিনি প্রার্থীদের আশ্বস্ত করেন, ঢাকা সেনানিবাসের উচ্চপদস্থ সেনা কর্মকর্তাদের সঙ্গে তার দৃঢ় সম্পর্ক রয়েছে। অন্য আসামি জুয়েল এবং ফিরোজ অনেক প্রার্থীর কাছ থেকে টাকা আদায় করে রায়হানকে দেন।
র‌্যাবের এই কর্মকর্তা আরও জানান, ২০২১ সালে সেনাবাহিনীতে সৈনিক পদে চাকরি দেয়ার নামে এক প্রার্থীর কাছ থেকে সাড়ে ৭ লাখ টাকা নেন এবং জাল নিয়োগপত্র দেন। পরে ওই প্রার্থী তার চাকরিতে যোগ দিতে গেলে ভুয়া নিয়োগপত্রের কথা জানতে পারেন।
পরে ভুক্তভোগী বাদী হয়ে জয়পুরহাট র‌্যাব ক্যাম্পে অভিযোগ করলে কয়েকটি জাল নিয়োগপত্র ও অন্য নথিসহ তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে আক্কেলপুর থানায় মামলা হয়েছে।
আক্কেলপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু বকর সিদ্দীক বলেন, ‘র‌্যাব সদস্যরা তাদের আটক করে থানায় সোপর্দ্দ করেন। পরে তাদের আইনী প্রক্রিয়ার মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে’।


প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০২৩ | সময়: ৬:২৬ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর