সর্বশেষ সংবাদ :

প্রচারপত্র নিয়ে মাঠে লিটন, জনসভায় যোগ দেওয়ার আহ্বান : রাজশাহীতে ব্যাপক প্রচার-শোডাউন

স্টাফ রিপোর্টার : আগামী ২৯ জানুয়ারি রাজশাহীতে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার জনসভা সফল করতে নানা আয়োজন শুরু হয়েছে। মাইকিং মিছিল স্লোগানে এখন মুখর রাজশাহী।
রাজশাহী নগর ছাড়াও জেলা-উপজেলা ও ওয়ার্ড পর্যায়ে প্রতিদিন নানা কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে। জনসভা সফল করতে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা মাঠে সোচ্চার হয়েছেন।
এরই অংশ হিসেবে রবিবার রাজশাহীতে প্রচারপত্র বিলি করেছেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।
রাজশাহী জেলা ও মহানগরের জনসভা প্রস্তুত প্রচার উপ-কমিটির উদ্যোগে নানা আয়োজনের পাশাপাশি শহরজুড়ে প্রচারপত্র বিলি করা হচ্ছে। দুপুরে রাজশাহী মহানগরীর নওদাপাড়া বাজার এলাকায় জনসাধারণের মাঝে প্রচারপত্র বিলি করেন এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।
এ সময় আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, যুগ্ম সম্পাদক আহ্সানুল হক পিন্টু, জনসভা প্রস্তুত প্রচার উপ-কমিটির আহ্বায়ক ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর ইসতিয়াক আহমেদ লিমন, শাহ মখদুম থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহাদত আলী শাহু, রাজপাড়া থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আনসারুল হক খিচ্চু সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।
মেয়র লিটন সাধারন মানুষকে রাজশাহীর উন্নয়নের সার্থে প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় উপস্থিত হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, রাজশাহীর জনসভা হবে অতিতের সবচেয়ে স্মরনীয় ও ঐতিহাসিক। রাজশাহীর মাদ্রাসা মাঠে জনসভা হলেও পুরো রাজশাহী নগরীতে মানুষের ঢল নামবে। সে টার্গেট নিয়েই রাজশাহী ছাড়াও পুরো উত্তরাঞ্চলে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরাা মাঠে কাজ করছেন।
এদিকে প্রধানমন্ত্রীর এই জনসভা সফল করতে রাজশাহী বিভাগজুড়ে ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে। এরই অংশ হিসেবে বর্তমান সরকারের উন্নয়ন চিত্রের ব্যানার, ফেস্টুন, তোরণে সাজতে শুরু করেছে পুরো উত্তরাঞ্চল। দেশের সরকার প্রধানকে বরণ করে নিতেই চলছে লাগামহীন প্রস্তুতি।
প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার আগমন ঘিরে ইতিমধ্যে বর্ণিল রূপে সাজতে শুরু করেছে নগর। স্থানীয় নেতাকর্মীদের মধ্যেও নতুন করে প্রাণের সঞ্চার হয়েছে। দলীয় সভাপতির নজরে আসতে রঙ-বেরঙের ব্যানার, ফেস্টুন, নিশান, তোরণ টানানোসহ নানা কর্মসূচি পালনে তাদের মাঝে রীতিমত প্রতিযোগিতা চলছে। স্থানীয় নেতারা আগমনী শুভেচ্ছা বার্তার প্রচারণা চালাচ্ছেন। পথে ঘাটে, অলিতে-গলিতে, হাটে-বাজারে এমন কোনো জায়গা নেই যেখানে ব্যানার ফেস্টুন নেই। সবখানেই এখন প্রধানমন্ত্রী আগমনের শুভেচ্ছা ও উন্নয়ন বার্তা।
প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর পদ্মা ও মল্লিকা ক্লাস্টারের সিডিসি নেতৃবৃন্দের সঙ্গে মতবিনিময় :আগামী ২৯ জানুয়ারি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজশাহীতে আগমন উপলক্ষ্যে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর পদ্মা ও মল্লিকা ক্লাস্টারের সিডিসি নেতৃবৃন্দের সঙ্গে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার বেলা ১২টায় মেট্রোপলিটন কলেজ অডিটোরিয়ামে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী পাঁচবছর পর রাজশাহীতে আসছেন। এ মেয়াদে দেশে নানা উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়িত হয়েছে। নানা বাঁধা পেরিয়ে নিজের টাকায় পদ্মা সেতু নির্মিত হয়েছে। মেট্রোরেল চালুর মধ্যে দিয়ে ইতোমধ্যে আরেকটি স্বপ্ন বাস্তবায়ন হয়েছে। চলতি বছরেই বঙ্গবন্ধু রেল সেতু শেষ হলে উত্তরাঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থায় আর একটি নতুন মাত্রা যোগ হবে। এরমধ্যে দিয়ে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ঘটবে।
তিনি আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষের কল্যানে কাজ করে যাচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রীর সুযোগ্য নেতৃত্বে দেশে ব্যাপক উন্নয়ন দৃশ্যমান হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতিশীল নেতৃত্বে দেশের অবকাঠামোগত উন্নয়নই নয়; নারীর ক্ষমতায়ন করা হয়েছে। নারীরা সর্বক্ষেত্রে এগিয়ে গেছে রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ পদে আসীন হয়েছে।
মেয়র আরো বলেন, প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্পটির নামকরণ করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাজশাহীতে এই প্রকল্পের মাধ্যমে গৃহিত তহবিল দিয়ে ব্যাংক গঠন কাজ এগিয়ে চলেছে। যার মাধ্যমে সিডিসির সদস্যরা উপকৃত হবেন। ইউএনডিপির এলইউপিসি প্রকল্পের মেয়াদ আরও বৃদ্ধি হচ্ছে। এর মাধ্যমে আগামীতে আরও কাজ করার সুযোগ সৃষ্টি হবে। এসএমই ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে নারী উদ্যোক্তাদের উৎসাহিত করতে কাজ করছে সরকার। রাজশাহী মহানগরীর উন্নয়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২ হাজার ৯শ কোটি টাকার বৃহৎ প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছেন। আগামী ২৯ জানুয়ারি রাজশাহীর ঐতিহাসিক মাদ্রাসা মাঠের জনসভায় উপস্থিত হয়ে আমরা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে চাই।
সভায় বক্তব্য দেন প্রান্তিক জনগোষ্ঠী সংগঠনের উপদেষ্টা আরিফুল হক কুমার, ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম, প্রকল্পের সদস্য সচিব ও রাসিকের প্রধান প্রকৌশলী নুর ইসলাম তুষার, মেট্রোপলিটন কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ সাইফুর রহমান, চীফ কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট অফিসার আজিজুর রহমান। মল্লিকা ক্লাস্টারের নেত্রী কবরী রানীর সঞ্চালনায় উন্মুক্ত আলোচনায় পদ্মা ও মল্লিকা ক্লাস্টারের বিভিন্ন সিডিসির নেতৃবৃন্দ অংশ নেন। মতবিনিময় সভায় পদ্মা ও মল্লিকা ক্লাস্টারের বিভিন্ন সিডিসির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের প্রচারপত্র বিতরণ : আগামী ২৯ জানুয়ারী রাজশাহীতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা‘র জনসভা সফল করার লক্ষ্যে মহানগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে প্রচার পত্র বিতরণ করেছেন রাজশাহী জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল।
রোববার দুপুরে নগরীর কোর্ট চত্বরে রাজশাহী মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের বিশাল জনসভা সফল ও জনগণকে উদ্বুদ্ধ করার লক্ষ্যে মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচারপত্র বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয় কমিটির সদস্য ও রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এবং রাজশাহী জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল। প্রচারপত্র বিতরণকালে কোর্ট এলাকায় অ্যাডভোকেট সহ জনসাধারণকে ২৯ জানুয়ারীর বিশাল জনসভায় উপস্থিত হওয়ার জন্য বিশেষ ভাবে অনুরোধ করেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল। এসময় উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ডাবলু সরকার, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা, রেজাউল ইসলাম বাবুল, ডাঃ তবিবুর রহমান শেখ, বদরুজ্জামান খায়ের ও যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আহসনুল হক পিন্টু। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের মহানগর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইফাতারা কামাল, সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাড. আসলাম সরকার ও মীর ইশতিয়াক আহমেদ লিমন, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক রবিউল ইসলাম রবি, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক মীর তৌফিক আলী ভাদু, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মকিদুজ্জামান জুরাত, উপ-প্রচার সম্পাদক সিদ্দিক আলম ও পংকজ দে, মহানগর যুব মহিলা লীগের সভাপতি ্অ্যাডভোকেট ইসমত আরা জাহান ও সাধারণ সম্পদক নিলুফা সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।
হরিপুর ইউনিয়ন আ’লীগের বর্ধিত সভা : আগামী ২৯ জানুয়ারি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজশাহীতে আগমন উপলক্ষে হরিপুর ইউনিয়ন আ’লীগের উদ্যোগে বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার বিকালে হরিপুর ইউনিয়ন পরিষদের সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন রাজশাহী-৩ আসনের সংসদ সদস্য মো. আয়েন উদ্দিন। সভায় হরিপুর ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি মো. বাবর আলী’র সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন, পবা উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ও নওহাটা পৌর মেয়র মো. হাফিজুর রহমান হাফিজ, হরিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বজলে রেজবি আল হাসান মুঞ্জিল, পবা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি এমদাদুল হক এমদাদ, নওহাটা পৌর যুবলীগের আহ্বায়ক শেখ ফরিদ।
হরিপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান মাহফুজের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, হরিপুর ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন পান্না, সাবেক সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান নবাব, আ’লীগ নেতা ও ইউপি সদস্য রাজু আহমেদ, এজদুল ইসলাম, মুসফিকুর রহমান রাশেল, নওসাদ আলী। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, আ’লীগ নেতা গোলাপ আলী, আসলাম, বাবু, কোরবান আলী, মিলন হোসেন, আব্দুস সালাম, লিটন আলী প্রমুখ।


প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৩, ২০২৩ | সময়: ৫:৪৬ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ