হ্যান্ডকাপ লাগানো যুবক খুনের রহস্য উদ্ঘাটন, একজন আটক

বড়াইগ্রাম প্রতিনিধি: বড়াইগ্রামে উদ্ধার হওয়া হ্যান্ডকাপ লাগানো, পা ও গলায় রশি বাঁধা লাশের পরিচয় মিলেছে। একই সঙ্গে হত্যাকান্ডে জড়িত এক আসামীকে গ্রেফতারসহ হত্যা রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ।
নিহত যুবক সিরাজগঞ্জ জেলার বেলকুচি উপজেলার নাকফাটা বয়রা মাসুম গ্রামের সাবের আলীর ছেলে আমিরুল ইসলাম (৩৫)। এ ঘটনায় পুলিশ একই উপজেলার দারপুর গ্রামের আকছেদ আলীর ছেলে গোলাম আজমকে (৩০) আটক করেছে। তবে অপরাধ মুলক কর্মকান্ড থেকে প্রাপ্ত টাকার ভাগাভাগিকে কেন্দ্র করে সহকর্মীদের হাতে তিনি নিহত হয়েছেন বলে পুলিশের দাবি।
জানা যায়, গত ১০ জানুয়ারি মাঝগাঁও বোয়ালের বিলে গমের জমিতে পড়ে থাকা অবস্থায় হ্যান্ডকাফ লাগানো এবং দুই পা ও গলায় বাঁধা লাশটি উদ্ধার করা হয়। এরপর তদন্তে নেমে উদ্ধারের আট দিন পর লাশের পরিচয় সনাক্তসহ হত্যা রহস্য উদঘাটন করে পুলিশ।
বড়াইগ্রাম থানার ওসি আবু সিদ্দিক জানান, নিহত আমিরুল ও আটক গোলাম আজমসহ মোট চারজন মিলে গরু চুরি ও ছিনতাইসহ বিভিন্ন অপরাধ কর্মকান্ড করতো। কিন্তু সে কাজে প্রাপ্ত টাকার ভাগাভাগি নিয়ে তাদের মধ্যে অসন্তোষ সৃষ্টি হয়। এরপর অপর তিনজন আমিরুলকে হত্যার পরিকল্পনা করে। সে অনুযায়ী একটি অপারেশনের প্রস্তাব দিয়ে তারা তিনজন ৯ জানুয়ারি সন্ধ্যায় আমিরুলকে নিয়ে সিরাজগঞ্জ থেকে বাসে বনপাড়া আসে। পরে তারা আত্মীয়তার সুত্রে গোলাম আজমের পরিচিত এলাকা মাঝগাঁওয়ে যায়। এরপর বিলের মধ্যে নিয়ে তিনজন মিলে আমিরুলের হাতে হ্যান্ডকাফ লাগিয়ে, পা ও গলায় রশি বেঁধে শ্বাসরোধে তাকে হত্যা করে লাশ ফেলে রেখে যায়।
তবে এ ব্যাপারে নিহতের ভগ্নিপতি রেজাউল করিম মোবাইলে জানান, আমিরুল আমার ট্রাকে চালকের সহকারী হিসাবে কাজ করতো। সে কোন অপরাধ কর্মকান্ডের সাথে জড়িত নয়। খুনীরা তাকে ডেকে নিয়ে গিয়ে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে। আমরা খুনীদের উপযুক্ত বিচার চাই।
নিহতের ছোট ভাই রবিউল ইসলাম জানান, আমার ভাইয়ের মিম, মিনা ও মিতু নামে তিনটি শিশু বাচ্চা রয়েছে। সহায়-সম্পদ যা ছিলো তা যমুনা নদীতে আগেই বিলীন হয়ে গেছে। এখন আমার বিধবা ভাবী এই তিনটি শিশু সন্তান নিয়ে কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে।
বড়াইগ্রাম থানার ওসি আবু সিদ্দিক আরো জানান, পরিচয় না মেলায় আঞ্জুমানে মফিদুল ইসলামের মাধ্যমে আগ্রান কবরস্থানে লাশটি দাফন করা হয়েছে। ইতিমধ্যে একজন আসামীকে আটক করা হয়েছে। অন্যদেরও আটকের চেষ্টা চলছে। সব খুনীদের গ্রেফতার করতে পুলিশ কাজ করছে বলে তিনি জানান।


প্রকাশিত: জানুয়ারি ২০, ২০২৩ | সময়: ৬:৪০ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর