কেশরহাট কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে সরকারি জায়গার অর্থ আত্মসাৎ, দুদকে অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার: মোহনপুরের কেশরহাট পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাবের আলী কর্তৃক বাজারের সরকারি জমি অবৈধ দখল করে অর্থ আত্মসাৎ নিয়ে রাজশাহীর বিভাগীয় দুর্নীতি দমন কমিশন কার্যালয়ে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে সাবের আলীর বিরুদ্ধে দখলবাজি নিয়ে এ অভিযোগ দায়ের করেন কেশরহাট পৌরবাসি।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, কেশরহাট এলাকায় কাউন্সিলর সাবের আলী কুখ্যাত ভূমিদস্যু নামে পরিচিত। সে মোহনপুর থানার কেশর মৌজায় বিএস ১৬৪০, ১৬৫০, ১৬৫১, ১৬২১, ১৬৩৮ দাগ গুলো বাংলাদেশ সরকারের সড়ক ও জনপদ নামে রেকর্ডভূক্ত সম্পত্তি হওয়ার পরেও সেই দাগ গুলোতে ৫ তলা ভীত সহ ভবন ও দোকানপাট অবৈধভাবে দখল করে নির্মাণ করেছে। এছাড়াও কেশরহাটের সরকারি খাস জমি প্রায় ১৭ বিঘা অবৈধ ভাবে দখল করে প্রায় ২০০টি দোকান, মার্কেট ও ভবন নির্মাণ করেছে। কাউন্সিলর সাবেরের পেটুয়া বাহিনীর ভয়ে স্থানীয় কেউ মুখ খুলতে সাহস পায়না। বিগত দিনে তার বিরুদ্ধে নানা ধরনের অপকর্ম তুলে ধরে অসংখ্য গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হলেও সরকারি কোন মহল আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি বলেও পত্রিকার কার্টিং সংযুক্ত করে উল্লেখ্য করেছেন তারা।
কাউন্সিলর সাবেরের জায়গায় ভাড়া গ্রহীতা কেশরহাটের মারুফ এন্টার প্রাইজ থেকে জানা গেছে, তারা কাউন্সিলর সাবেরের কাছ থেকে মার্কেটের প্রথম তলা হিরো শোরুমের জন্য ভাড়া নিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। তারা সিকিউরিটি বাবদ ১০ লাখ টাকা জামানত দিয়েছে এবং প্রতি মাসে ২৫ হাজার করে ভাড়া বাবদ টাকা দিয়ে থাকে।
এ বিষয়ে রাজশাহী সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল হাকিম বলেন, ‘আগামী ১৭ জানুয়ারিতে আমরা অভিযান পরিচালানা করবো। এসময় আমাদের জায়গায় যেসকল স্থাপনা থাকবে সেগুলো আমরা ভেঙ্গে দিবো’।


প্রকাশিত: জানুয়ারি ১২, ২০২৩ | সময়: ৬:০৩ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর