সর্বশেষ সংবাদ :

মোহনপুরে সরকারি সড়ক নষ্ট করে পুকুর খননের মাটি পরিবহন

মোহনপুর প্রতিনিধিঃ

 

“ভোট আইল্যে হবাই কয় হামি আপনাগো অভিভাবক, কিন্তু এই যে এই সরকারি রাস্তাগুলিন হইছ্যে নষ্ট, এখন আর কাউরে অভিভাবক হিসেবে পাওন যায় না, আপনেরা কন এই রাস্তায় কি মাইনষ্যে যাইতে পারে” বিলকিস বেগম নামের এক বৃদ্ধা অভিযোগ করে বলছিলেন কথাগুলো ।

 

রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার মোগাছি ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের বাটুপাড়া গ্রামে চলছে দিনে-রাত্রিতে সমান তালে পুকুর খননের ধুম। সোমবার (৯ ই জানুয়ারি) বিকেলে সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় বাটুপাড়া গ্রামের পাশাপাশি দুটি বিলে চলছে দুইটি পুকুর সংস্কারের নামে অতিরিক্ত জায়গা নিয়ে পুকুর কাটা। এই পুকুর খননের মাটি দিনের বেলায় ট্রাক্টরে করে পরিবহণ করা হচ্ছে এবং রাতে ড্রাম ট্রাকে। ভোর থেকে শুরু হয়ে এই মাটি পরিবহণ চলে মধ্যরাত্রি পর্যন্ত। এইভাবে ওভারলোড মাটি গ্রামের সাধারণ রাস্তা দিয়ে পরিবহণ করায় রাস্তার দায়িত্ব কমে আসছে এবং রাস্তার পাথর উঠে গর্ত হয়ে যাচ্ছে। এই নিয়ে গ্রামবাসীদের ভিতরে তীব্র ক্ষোভ থাকলেও কেউ কিছু বলতে পারছে না তার কারণ হচ্ছে পুকুর খনন কারীরা হচ্ছে প্রভাবশালী এবং রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় জড়িত।

 

বাটুপাড়া গ্রামের বাসিন্দা আলম ( ছদ্ম নাম) বলেন, “এইভাবে দিনে রাতে যেভাবে এই রাস্তা দিয়ে মাটি পরিবহণের গাড়িগুলো চলছে তাতে আমরা নানাবিধ সমস্যায় জর্জরিত হচ্ছি। এখন শীতকাল রাস্তাঘাটে এমনিতেই ধূলা বেশি তারপরে আবার রাস্তায় সবসময় চলছে মাটি পরিবহণের গাড়ি, এই গাড়িগুলো থেকে মাটি ঝরে ঝরে রাস্তায় পড়ছে এবং এই মাটিগুলো রৌদে গরমে শক্ত হয়ে রাস্তায় পড়ে থাকছে। রাস্তায় চলাচলকারী গাড়ি নিচে মাটিগুলো পৃষ্ট হয়ে হচ্ছে তীব্র ধূলা। আর এই ধূলায় জনজীবন হচ্ছে অতীষ্ঠ। এগুলো যেন দেখার কেউ নেই”।

 

 

নাম প্রকাশে অনি”ছুক এক ব্যাক্তি অভিযোগ করে বলেন, ” এখন যে পুকুর খনন হচ্ছে, এইগুলো ভালো রাস্তা পুকুর খননের মাটি পরিবহণের কারণে রাস্তাগুলো চলাচলের অনুপযোগী হয়ে যাচ্ছে। কিন্তু এখানে রাস্তা নিয়ে কারো কোন মাথা ব্যাথা নেই, এই ওয়ার্ডের মেম্বার থেকে শুরু করে চেয়ারম্যান কেউ ই রাস্তা নষ্ট করার জন্য কোন প্রতিবাদ করছে না। জনপ্রতিনিধি হিসেবে তাদের রাস্তা আরো নতুন করে ঠিক করে দেওয়ার কথা অথচ এইগুলো রাস্তা পুকুর খননের কারণে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে এই দিকে কোন নজর নেই তাদের “।

 

 

স্থানীয় মানুষদের মুখে থেকে জানা যায়, এই বিল বাবু বলে বেড়ান, এখানে ১২ লাখ টাকা খরচ করলে ২৭ লাখ টাকা আনা যাবে সিস্টেম করে। এগুলো পুকুর খনন করছেন বিলবাবু নামের ব্যাক্তি যাকে সরজমিনে পুকুর খননের স্থানে পাওয়া যায়নি। পরবতীর্তে তাকে মুঠোফোনে তার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ” আমার পুকুরে মাটি পুকুরের পাশে এবং পার্শ্ববর্তী জমিতে দিয়ে দেওয়া হচ্ছে। তাছাড়া আমার পুকুর পাশেও অনেক পুকুর খনন করা হচ্ছে ঐ তারাই রাস্তা দিয়ে মাটি পরিবহণ করছে। রাস্তা নষ্ট হওয়ার সাথে আমার পুকুরের কোন সম্পর্ক নেই”।

 

 

এ বিষয়ে বিস্তারিত জানার জন্য মুঠোফোনে কথা হয় মোগাছি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আল আমিন বিশ্বাস এর সাথে। তিনি বলেন, ” এই পুকুর খননের কারণে রাস্তা নষ্ট হচ্ছে সে বিষয় টা আমরা জানি। আমরা ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে পুকুর খননকারীদের বাঁধা দিতে গেলে তার বলেন এই পুকুর নাকি তারা সরকারি ভাবে লিজ নিয়ে তারপরে খনন করছে। আমি ব্যাক্তিগত ভাবে তাদের কে রাস্তা নষ্ট হচ্ছে এই বিষয়ে জানালে তারা বলেন এই পুকুরের মাটি নাকি সরকারি বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজে ব্যাবহার হচ্ছে। পরবর্তীতে আমি আমাদের মোহনপুর উপজেলা এলজিআরডি অফিসে অভিযোগ জানাই। অভিযোগ জানালে অফিস থেকে আমাকে বলেছে এই রাস্তা ৩ ফিট বাড়িয়ে নতুন করে সংস্কার করা হবে তাই তারা পুকুর খননকারীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়নি। আমি আমার ক্ষেত্রে থেকে যতটুকু করার করেছি কিন্তু তাও এগুলো পুকুর খনন বন্ধ হচ্ছে না। আসলে এগুলো পুকুর খননের ফলে এলাকার অনেক ক্ষতি হচ্ছে”।

 

 

রাস্তার ক্ষতি সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে মোহনপুর উপজেলা উপ-সহকারী প্রকৌশলী সিরাজুল ইসলাম বলেন, “আমি এগুলো পুকুর খনন কিংবা রাস্তা নষ্ট হওয়ার ব্যাপারে সেরকম ভাবে কিছুই জানি না কিংবা আমাকে কেউ অভিযোগ জানাই যায়নি। এই প্রথম আপনার কাছে একটা অভিযোগ পেলাম। আমি আগামীকালকেই ঐ পুকুর খননের স্থান পরিদর্শনে যাবো সেখানে যদি পুকুরের মাটি পরিবহণের জন্য রাস্তার ক্ষতি হয় তাহলে ইউএনও স্যারের সাথে এই বিষয়ে কথা বলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে মোহনপুর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে”।

 

 

 

এ বিষয়ে মোহনপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) প্রিয়াংকা দাস এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, “এই পুকুর খননের বিষয় সম্পর্কে সেইরকম ভাবে আমার জানা নেই, আপনি বললেন এইমাত্র জানতে পারলাম। যেহেতু গ্রামবাসী’র সমস্যা হচ্ছে আমরা উপজেলা প্রশাসন অতিদ্রুত সেই জায়গা পরিদর্শন করবো এবং এই বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো”।

 

 

 

 

সানশাইন/টিএ


প্রকাশিত: জানুয়ারি ১০, ২০২৩ | সময়: ৯:৪৮ অপরাহ্ণ | Daily Sunshine

আরও খবর