অনলাইনের আওতায় আসছে রাবির একাডেমিক কার্যক্রম

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) সেমিস্টার কিংবা বর্ষের ফাইনাল পরীক্ষার আগে প্রতিটি শিক্ষার্থীকে ফরম পূরণের জন্য বিভাগের চেয়ারম্যান এবং আবাসিক হলের প্রাধ্যক্ষের স্বাক্ষরের প্রয়োজন হয়। সেজন্য বিভাগ এবং হল অফিসে সশরীরে উপস্থিত থেকে একটি স্বাক্ষরের জন্য দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়। সকালে অফিসে গেলে, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অফিস থেকে জানানো হয়—‘লাঞ্চের পর আসেন।’
তথ্যপ্রযুক্তির এই যুগে এসেও বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম পূর্ণাঙ্গ ডিজিটালাইজেশনের আওতায় না আসায় শিক্ষার্থীদের নানা ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের এসব ভোগান্তির দিকগুলো বিবেচনায় নিয়ে একাডেমিক কার্যক্রম অনলাইনের আওতায় নিয়ে আসার পরিকল্পনা নিয়েছে রাবি প্রশাসন।
রোববার (৮ জানুয়ারি) বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক ড. বাবুল ইসলাম।
তিনি বলেন, সব একাডেমিক কার্যক্রম অনলাইনে সম্পন্ন করা যাবে। বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন হলের আবাসিক ফি, ফরম পূরণ, সার্টিফিকেট এবং মার্কশিট উত্তোলনের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি নিরসনে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এতে শিক্ষার্থীরা ঘরে বসেই এসব কাজ করতে পারবে।
তিনি আরও বলেন, আমরা একটি পেমেন্ট গেটওয়ে ইন্টিগ্রেট করে দেব, যাতে শিক্ষার্থীরা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ঘরে বসেই সব ধরনের ফি প্রদান করতে পারে। ক্যাম্পাসের দুইটি ব্যাংকের সঙ্গে আমরা আলোচনা করেছি। আশা করছি, নতুন এই সিস্টেমটি তাড়াতাড়ি চালু করতে পারব।
এদিকে, শিক্ষার্থীদের একাডেমিক সংশ্লিষ্ট যেকোনো সুবিধা প্রদানে প্রস্তুত আছে সোনালী ব্যাংক। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সোনালী ব্যাংক রাবি শাখার এজিএম মোহাম্মদ নাসির হায়দার।
তিনি বলেন, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি নিরসনের উদ্দেশ্যেই রাবি ক্যাম্পাসে সোনালী ব্যাংকের শাখাটি চালু হয়েছে। সোনালী ই-সেবার মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ঘরে বসেই ফি প্রদান করতে পারছেন। রাবি প্রশাসনের সঙ্গে আমাদের চুক্তি স্বাক্ষরের পর থেকে এই কার্যক্রম শুরু করা যাবে।
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বর্ষে ভর্তি, সার্টিফিকেট এবং মার্কশিট উত্তোলনের ক্ষেত্রে শুধু ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের মোবাইল সেবা রকেটের মাধ্যমে ফি প্রদান করার প্রক্রিয়া শুরু করেছিল বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এবার শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থে একাডেমিক ও হল সংশ্লিষ্ট সব কার্যক্রম অনলাইনের আওতায় নিয়ে আসার পরিকল্পনা করছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।


প্রকাশিত: জানুয়ারি ৯, ২০২৩ | সময়: ৬:৪৩ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ