ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৩ কর্মদিবস আদালত বর্জনের ঘোষণা আইনজীবীদের

সানশাইন ডেস্কঃ

 

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৩ কর্মদিবস আদালত বর্জনের ঘোষণা আইনজীবীদের
বিভিন্ন দাবিতে আগামী ৩ কর্মদিবস ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আদালত বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে জেলা আইনজীবী সমিতি। বৃহস্পতিবার (৫ জানুয়ারি) থেকে শুরু হয়ে আগামী ৯ জানুয়ারি পর্যন্ত চলবে আইনজীবীদের এই কর্মসূচি। গতকাল ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আদালতের এজলাসে কোনো আইনজীবী না যাওয়ায় দুর্ভোগে পড়েছেন বিচার প্রার্থীরা।

 

 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান বাবুল বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা জজ সংকট উত্তরণের বদলে তিনি উস্কে দিয়েছেন। আইনজীবীদের আলোচনার মাধ্যমে ৩ দফা দাবিতে আজ থেকে আগামী ৯ জানুয়ারি পর্যন্ত আমরা আদালত বর্জনের ঘোষণা দিয়েছি। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা ও দায়রা জজ শারমিন নিগারের অপসারণের, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক মোহাম্মদ ফারুককে অনতিবিলম্বে অপসারণ এবং জেলা জজ কোর্টের দুর্নীতিবাজ দূর্বৃত্ত চাঁদাবাজ প্রধান নাজির মমিনুল ইসলামকে অপসারণের এই তিন দাবি জানিয়েছি আমরা। এসব দাবি আগামী ৯ জানুয়ারির মধ্যে না মেনে নিলে আইনজীবীরা আরও কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবেন।

 

 

আদালতের একাধিক সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, মূলত একটি মামলা দায়েরকে কেন্দ্র করে আইনজীবী সমিতির নেতাসহ একাধিক আইনজীবীর সঙ্গে বিচারক মোহাম্মদ ফারুকের বিতন্ডা হয়। এর জেরে ক্ষিপ্ত হন আইনজীবীরা। এ ঘটনায় গত ২৬ ডিসেম্বর সভা করে ১ জানুয়ারি থেকে সংশ্লিষ্ট আদালত বর্জনের সিদ্ধান্ত নেয় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আইনজীবী সমিতি। এরপর থেকেই মূলত এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

 

 

 

গত কয়েকদিন যাবত এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আদালত পাড়া। গতকাল বুধবার আইনজীবীদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ এনে কর্মবিরতিতে যায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিচার বিভাগ কর্মচারী এসোসিয়েশন। এরই প্রেক্ষিতে বিক্ষোভ মিছিল করে জেলা আইনজীবী সমিতি। বিক্ষোভ মিছিলে জেলা আইনজীবী সমিতি জেলা জজের অপসারণ দাবি করেন। আইনজীবীদের বিক্ষোভ মিছিলের পর পরই আইনজীবী সহকারী সমিতি আদালতে বেঞ্চ সহকারী-পেশকারদের বিরুদ্ধে ঘুষের অভিযোগ এনে বিক্ষোভ করেন। তারা আইনজীবীদের দাবির সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করেন।

 

সুত্রঃ ঢাকা পোস্ট


প্রকাশিত: জানুয়ারি ৬, ২০২৩ | সময়: ৮:৩৯ অপরাহ্ণ | Daily Sunshine