ফিরে দেখা-২০২২ : বছর জুড়ে আলোচনায় রাজশাহীর রাজনীতি

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহীতে ২০২২ সাল জুড়ে আলোচনায় ছিল রাজনৈতিক অঙ্গণ। ইউনিয়ন নির্বাচন, বিএনপি নেতা চাঁদের বিরুদ্ধে ঝাড়ু মিছিল ছিল বছরের আলোচিত ঘটনা। এরপরেই ভাইরাল হয় জেলা ছাত্রলীগের দুই নেতার অডিও-ভিডিও। বছরজুড়ে তেমন সাড়াশব্দ না থাকলেও ডিসেম্বরে বিভাগীয় গণসমাবেশে নিজেদের জানান দেয় বিএনপি। তবে চুপচাপ থাকা জামায়াত-শিবিরের মিছিল থেকে আচমকা হামলায় দুই পুলিশ সদস্যের আহতের ঘটনাও আলোচনায় আসে। শেষ ডিসেম্বরে উত্তরবঙ্গে আওয়ামী লীগের জন্য আসে সুখবরও।
দ্বিতীয়বারের মতো বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহিদ এএইচএম কামারুজ্জামানের সন্তান ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।
গত শনিবার (২৪ ডিসেম্বর) রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে আওয়ামী লীগের ২২তম জাতীয় সম্মেলনের দ্বিতীয় পর্বে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য হিসেবে এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের নাম ঘোষণা করেন, আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
এর আগে ২০১৯ সালের ২৭ নভেম্বর রাজশাহী সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনকে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য হিসেবে মনোনয়ন দেন আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা। এর আগে এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন দীর্ঘদিন যাবৎ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও নগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন।
চলতি বছরের ২১ জুলাই বাঘা উপজেলার মনিগ্রাম ইউনিয়নে পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কটূক্তি করেন আবু সাঈদ চাঁদ। কটূক্তির দায়ে ২৬ জুলাই দুপুরে নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. ডাবুল সরকার বাদী হয়ে আবু সাইদ চাঁদসহ ৮ জনকে আসামি করে মামলা করেন।
এর আগে ২৫ জুলাই পবা উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে চাঁদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত পদক্ষেপের দাবিতে বিক্ষোভ ও ঝাঁড়ু মিছিল কর্মসূচি পালিত হয়েছে। একই দিন সন্ধ্যায় নগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বিএনপির এ নেতার শাস্তির দাবিতে প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সর্বশেষ গেল ২ নভেম্বর রাজশাহী বিভাগীয় গণসমাবেশ করে বিএনপি। সারাদেশের মধ্যে রাজশাহীতে এটি ছিল বিএনপির নবম বিভাগীয় গণসমাবেশ। এই সমাবেশে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন। গণসমাবেশে রাজশাহী বিভাগের বিএনপির নেতাকর্মীরা আসেন। এ সময় বাস মালিক শ্রমিকরা ১০ দফা দাবি আদায়ে বন্ধ রাখে বাস। একইভাবে দাবি আদায়ের লক্ষ্যে সিএনজিচালিত অটোরিকশা বন্ধ রাখে মালিক-চালকরা। তাই কেউ কেউ ট্রেনযোগে বিএনপির এই বিভাগীয় সমাবেশে যোগ দেয়। সমাবেশ থেকে ১০ নভেম্বরের ঢাকা বিএনপির সমাবেশ সফলের লক্ষ্যে বক্তব্য দেয় দলটির নেতাকর্মীরা।
সর্বশেষ ১৩ ডিসেম্বর রাজশাহীতে ঝটিকা মিছিল করে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা। মিছিল থেকে ছোড়া ইটে পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবু হায়দার ও আহাদ আলী আহত হন। তারা রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। এই ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে পুলিশ বাদী হয়ে বোয়ালিয়া থানায় মামলা করে। এ নিয়ে বোয়ালিয়া থানা পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। মামলার পরের দিনে অভিযান চালিয়ে পুলিশ জামায়াত-শিবিরের ছয় নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করে।
রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার বলেন, আমাদের নির্দেশনা দেওয়া আছে জামায়ত-শিবির কোনো ধরনের অপতৎপরতা চালালে তাৎক্ষণিক জবাব দেওয়া হবে। সেই লক্ষ্যে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাদের ধাওয়া দিয়েছে। জামায়ত-শিবিরের নেতাকর্মীদের হামলায় পুলিশের দুই সদস্য আহত হয়েছেন। বিষয়টির আমরা নিন্দা জানাই। আগামীতে রাজশাহীর মানুষকে নিয়ে জামায়াত-শিবিরের সকল অপতৎপরতা রুখে দেওয়া হবে।
তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্বাচনী যে ইশতেহার দিয়ে ছিলেন তার ৮৫ শতাংশ পূরণ করেছেন। বছর জুড়ে রাজশাহী নগর আওয়ামী লীগ নিয়মিত সভা, সমাবেশ, মাসিক সভা, বর্ধিত করেছে। এছাড়া ২০২৩ নির্বাচনের বছর। আমরা মূলত সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডগুলো মানুষের মধ্যে প্রচার করছি। আগামি নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যাকে নৌকা প্রতীক দেবেন, আমরা তার হয়ে মাঠে কাজ করব।
২২ নভেম্বর রাজশাহী-৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য নাদিম মোস্তফা গ্রেপ্তার হন। ২০১৫ সালে রাজশাহীর পুঠিয়ার বানেশ্বর বাজারে পুলিশের সঙ্গে বিএনপির সংঘর্ষ চলাকালে আব্দুল মজির নামে একজন ব্যক্তি নিহত হন। এ মামলার তার বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট ছিল। এ কারণে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এরপরে ১ ডিসেম্বর তিনি জামিনে মুক্ত হন।
অন্যদিকে, গত ৫ জানুয়ারি রাজশাহীর তিনটি উপজেলার ১৯ ইউনিয়নে নির্বাচনের ফলাফলে বিদ্রোহীদেরই (স্বতন্ত্র) জয়জয়কার হয়েছে। ১৮টির মধ্যে ১২টিতেই জয় পেয়েছে বিদ্রোহী চেয়ারম্যানরা। আর ছয়টিতে জয় পেয়েছে আওয়ামী লীগের নৌকা। রাজশাহী জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মো সাইফুল ইসলাম জানান, পুঠিয়ার একটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছিল। ২৯ ডিসেম্বর রাজশাহীতে একটি পৌরসভা, দুই ইউনিয়ন পরিষদ ও রাসিকের এক সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে নির্বাচনে বাঘা পৌরসভায় মেয়র নির্বাচিত হয়েছে আক্কাস আলী। তিনি আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ছিলেন।
এছাড়া পুঠিয়ার ভালুকগাছি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের মনোনিত প্রার্থী জিল্লুর রহমান ও শিলমাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনিত প্রার্থী সাজ্জাদ হোসেন মুকুল। এছাড়া রাজশাহী সিটি করপোরেশনের (রাসিক) নয় নম্বর সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর হয়েছেন আয়েশা খাতুন।
জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাকিবুল ইসলাম সংগঠনের নারী নেত্রীদের অনৈতিক প্রস্তাব দেওয়ার অডিও এবং সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেনের ফেনসিডিল পানের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এ নিয়ে রাজশাহীতে রাজশাহীতে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়। এমন ঘটনায় সভাপতিকে বহিষ্কার ও সাধারণ সম্পাদককে অব্যহতি দেওয়া হয় দলটি থেকে।
এর আগে বিষয়টি নিয়ে ওই দুই নেতা রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের আলোকার মোড় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বসেন। সংবাদ সম্মেলনে ‘ফেনসিডিল’ সেবনের ভিডিও ফাঁস নিয়ে কথা বলেন রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন অমি। তিনি দাবি করেছেন, যে ভিডিওটি ফাঁস হয়েছে, সেখানে আসলে তিনি এনার্জি ড্রিংক ‘স্পিড’ পান করছিলেন। পরে আবার বলেছেন, ছাত্র সমাজের অবক্ষয় তুলে ধরতে তিনি একটি শর্টফিল্মে অভিনয় করেছিলেন। ওই দৃশ্য শর্টফিল্মের। আর সভাপতি সাকিবুল ইসলামের ফোনালাপের অডিওতে টাকা ও পদের লোভ দেখিয়ে নারী কর্মীর সঙ্গে যৌন কেলেঙ্কারির ইঙ্গিত পাওয়া যায়।
এ নিয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। গত ১৯ সেপ্টেম্বর রাজশাহীতে আসেন কমিটির সদস্যরা। তদন্ত কমিটিতে ছিলেন, ছাত্রলীগের গণযোগাযোগ উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক শেখ শামীম তূর্য, আইনবিষয়ক উপ-সম্পাদক আপন দাস ও সহ-সম্পাদক তানভীর আব্দুল্লাহ। তারা গত ২৫ সেপ্টেম্বর রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে গঠিত তদন্ত কমিটির সদস্যরা কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে প্রতিবেদন জমা দেন। এরপরে ১৯ অক্টোবর নৈতিক স্খলনের কারণে রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাকিবুল ইসলামকে বহিষ্কার এবং সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেনকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল-নাহিয়ান খান ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তি সূত্রে এ তথ্য জানানো হয়।
রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সম্প্রতি বিলুপ্ত কমিটির সহসভাপতি-২ মোস্তাফিকুর রহমান সাগর জানান, ‘বর্তমানে রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের কোনো কমিটি নেই। আমরা রাজশাহী জেলা ও নগর আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগদান করি। আমি আগামীতে পদ প্রত্যাশী। সম্মেলনের বিষয়ে তিনি বলেন, অল্প দিন হলো কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কমিটির। তারাই ভালো জানে রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন কবে হবে।’


প্রকাশিত: জানুয়ারি ১, ২০২৩ | সময়: ৬:৪৭ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ