নতুন বছরে তিন সংস্করণেই সুসময় দেখছেন সাকিব

স্পোর্টস ডেস্ক: অল্পের জন্য একই বিন্দুতে মেলেনি ২০২২ সালের শুরু আর শেষ। জানুয়ারির শুরুতে নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে স্মরণীয় জয় পাওয়া বাংলাদেশের সামনে সুযোগ ছিল ডিসেম্বরের শেষ প্রান্তে ভারতকে টেস্টে হারানোর। অভাবনীয় সেই সাফল্য শেষ পর্যন্ত প্রায় ধরা দিয়েও শেষ পর্যন্ত ফসকে গেছে। তবে এই বছরের নানা পারফরম্যান্স থেকেই সামনের দিনগুলোতে ভালো করার রসদ পেয়ে গেছেন জানান সাকিব আল হাসান।
এই বছর বাংলাদেশ খেলেছে ১০টি টেস্ট। একটি করে জয় ও ড্র ছাড়া বাকি ৮ ম্যাচে মিলেছে পরাজয়। নিরেট এই পরিসংখ্যানে বোঝার উপায় নেই, বছরের শেষ ম্যাচটিতে বাংলাদেশকে হারাতে কতটা লড়াই করতে হয়েছে ভারতকে। মিরপুরে জয়ের আশা জাগালেও স্রেফ ৩ উইকেটে হেরে স্বপ্নভঙ্গ হয়েছে বাংলাদেশের। নিউ জিল্যান্ডকে হারানো কিংবা ভারতের বিপক্ষে কাছাকাছি যাওয়ার আত্মবিশ্বাস সাকিবকে প্রেরণা জোগাচ্ছে আশাভরে সামনে তাকানোর। ভারতের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ শেষে সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক বললেন, আগামী বছরের সবকটি টেস্ট সিরিজের ফল পক্ষে আসবে বলেই ধারণা তার।
“২০২৩ সালে আমাদের তিনটা বা পাঁচটা টেস্ট ম্যাচ আছে এফটিপিতে, যেটা আমি জানি। আমি মনে করি তিনটি সিরিজই আমাদের জেতা উচিত, যে ধরনের দলের সঙ্গে আমরা খেলব। অবশ্যই জেতা উচিত।” আইসিসির ভবিষ্যত সফরসূচি অনুযায়ী, ২০২৩ সালে তিন সিরিজে পাঁচটি টেস্ট খেলবে বাংলাদেশ। তিনটি সিরিজই হবে ঘরের মাঠে।
তিন ওয়ানডে ও তিন টি-টোয়েন্টির সঙ্গে একটি টেস্ট খেলতে মার্চে আসবে আয়ারল্যান্ড। আফগানিস্তান দুই টেস্টের পাশাপাশি তিনটি করে ওয়ানডে-টি-টোয়েন্টি খেলবে জুনে। নভেম্বরের শেষ সপ্তাহে দুই টেস্ট খেলতে আসবে নিউ জিল্যান্ড। টেস্টের মতো টি-টোয়েন্টিতেও এখনও পায়ের তলায় শক্ত ভিত গড়তে পারেনি বাংলাদেশ। সবশেষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভে দুইটি জয় পেলেও বড় দলগুলোর বিপক্ষে সব ম্যাচই হেরেছে তারা। বিশ্বকাপের আগের আসরগুলোতে বাংলাদেশের ফল আরও নাজুক।
তবে অধিনায়ক সাকিবের মতে, এই সংস্করণেও অভাবনীয় সাফল্যের দুয়ারে দাঁড়িয়ে তার দল। “টি-টোয়েন্টিতেও আমরা বেশ ভালো একটা অবস্থায় চলে আসছি। আমার ধারণা, ৬ মাসের মধ্যে আমরা এক দল দাঁড় করাতে পারব যেটা ২০২৪ বিশ্বকাপে খুব ভালো করবে, যেটা আমরা হয়তো প্রত্যাশাও করি না, ততটা ভালো করার সম্ভাবনা আছে বলে মনে করি, যেহেতু বিশ্বকাপটা ওয়েস্ট ইন্ডিজে।”
অন্য দুই সংস্করণের চেয়ে ওয়ানডেতে বরাবরই স্থিতিশীল বাংলাদেশ। তবে গত বিশ্বকাপে অনেক বড় স্বপ্ন নিয়ে যাওয়ার পর মিলেছে একরাশ হতাশা। সেই অধ্যায় পেছনে ফেলে আগামী বছর ভারতে অনুষ্ঠেয় বিশ্বকাপে বড় কিছুর স্বপ্ন দেখছেন সাকিব। “ওয়ানডেতে আমরা সেটেলড দল, যেখানে আমাদের ভালো না করার কোনো কারণই নেই। ২০১৪ সালের পর থেকে ঘরের মাঠে মনে হয় একটা সিরিজ হেরেছি কেবল। ওয়ানডেতে খারাপ করার কোনো কারণ আছে বলে মনে করি না।”
“(২০২৩) বিশ্বকাপের বছর, অবশ্যই আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ, কারণ এই একটা জায়গায় আমরা যে ধরনের প্রত্যাশা নিয়ে যাই, সেভাবে পারফর্ম করতে পারি না। তবে আমরা যদি, দল হয়ে খেলতে পারি, অবদান সব জায়গা থেকে আসে, তাহলে আমার ধারণা এই বিশ্বকাপ আমাদের খুব ভালো যাবে।”


প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২৬, ২০২২ | সময়: ৬:২৩ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর