বাঘায় নেশা করে গ্রাম পুলিশকে মারধরের অপরাধে ইউপি সদস্য আটক

স্টাফ রিপোর্টার,বাঘা :
রাজশাহীর বাঘায় গ্রাম পুলিশ (দফাদার) মোমিন উদ্দিনকে নেশাগ্রস্থ অবস্থায় মারপিট করার অভিযোগে শাকিম উদ্দিন নামে এক ইউপি সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (১৬ ডিসেম্বর) রাত ৮ টার দিকে উপজেলার বাউসা ইউনিয়ন পরিষদ থেকে তাকে আটক করা হয়। শাকিম উদ্দিন বাউসা ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য ও ভেড়ারিপাড়া গ্রামের মৃত শাকের উদ্দিনের ছেলে বলে জানা গেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে , বাউসা ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম পুলিশের (দফাদার) মোমিন উদ্দিন শুক্রবার রাত ৮টার দিকে পরিষদে ডিউটি করছিলো। এ সময় শাকিম উদ্দিন মদ্যপ অবস্থায় পরিষদে এসে তাকে অকথ্য ভাষায় গালা-গালি শুরু করে। তখন গ্রাম পুলিশ ঐ ইউপি সদস্যকে গালিগালাজ করতে নিষেধ করায় তার উপর তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন এবং বেধড়ক মারপিট শুরু করেন। এ সময় তার আত্ন চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে বাউসা বাজারের এক দোকানের মধ্যে বসিয়ে রাখেন। অত:পর সেখানে গিয়েও তাকে ফের মারপিট শুরু করে ঐ ইউপি সদস্য । ঘটনার এক পর্যায় লোকজন ঐ ইউপি সদস্যকে ধরে রেখে থানা পুলিশকে খবর দেয়। এরপর পুলিশ তাকে থানায় নিয়ে আসেন। তখন গ্রাম পুলিশকে স্থানীয় লোকজন এক পল্লী চিকিৎসক এর নিকট চিকিৎসা করান।

 

এ বিষয়ে বাউসা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ তুফান বলেন,
ইউপি সদস্য শাকিম উদ্দিন কারণে অকারণে মদ্যপ অবস্থায় পরিষদে এসে আবোল তাবোল ভাষায় কথা বলে। কেউ এ ধরেন আচরণ থেকে তাকে বিরত থাকতে নিষেধ করলে উল্টো তার উপর তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। বিষয়টি ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবগত করা হয়েছে। বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন বলেন, ইউপি সদস্য শাকিম উদ্দিন দীর্ঘদিন ধরে মদ সেবন করে এলাকায় অশান্তি বিরাজ করে আসছিল। এমন অভিযোগ আগে থেকেই ছিল। তাকে শুক্রবার রাতে মদ্যপ অবস্থায় আটক করে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে পরীক্ষা করা হয়েছে। কর্তব্যরত চিকিৎসক মদ সেবনের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। শনিবার সকালে তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

 

সানশাইন/তারেক


প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১৭, ২০২২ | সময়: ৬:০২ অপরাহ্ণ | Daily Sunshine

আরও খবর