সর্বশেষ সংবাদ :

তাবলিগ জামাতে এসে নিখোঁজ যুবকের খোঁজ মেলেনি সাতদিনে

নওগাঁ প্রতিনিধি: নওগাঁর আত্রাইয়ে তাবলিগ জামাতে আসা নিখোঁজ যুবক আনিছুর রহমানের (৩৩) সাত দিনেও পুলিশ সন্ধান না পাওয়ায় পরিবারের মধ্যে উৎকন্ঠা দেখা দিয়েছে। ঘটনার পর থেকে তার কাছে থাকা সেল ফোনও বন্ধ থাকা রয়েছে। দ্রুত তার সন্ধানের দাবি জানিয়েছেন আনিছুরের পরিবারের লোকজন।
নিখোঁজ আনিছুর রহমান কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব উপজেলার চন্ডিবের গ্রামের মো. হিরণ মিয়ার ছেলে । এ ঘটনায় গত ৮ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার আনিছুর রহমানের মা রহিমা বেগম আত্রাই থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন।
পরিবার ও থানা সূত্রে জানা যায়, নিখোঁজ যুবক আনিছুর ও তার বাবাসহ ৪০ দিনের জন্যে ১৫ জনের একটি জামাত ৫ ডিসেম্বর উপজেলার বড়কালিকাপুর দেওয়ান পাড়া মসজিদে আসেন। ৭ডিসেম্বর বিকালে আনিছুর তার মায়ের কাছে ফোন করে বলেন সে বাড়িতে ফিরে ইচ্ছে প্রকাশ করেন । ওই দিন রাত আনুমানিক সাড়ে ১০টার দিকে জামাতের অন্যান্য সদস্যরা ঘুমিয়ে পড়লে সবার অজান্তে আনিছুর তার ব্যাগ নিয়ে বাড়ি ফিরে যাওয়ার জন্য মসজিদ থেকে বেড়িয়ে পরেন। এরপর বড়কালিকাপুর বাজারে অটোরিকসা স্ট্যান্ডে গিয়ে নওগাঁ শহরের যাওয়ায় কথা বললে এলাকার স্থানীয় কয়েকজন যুবকের তাকে একটি অটোরিকসায় উঠিয়ে দেন। এরপর রাত থেকে তার সেল ফোন বন্ধ হয়েছে । জামাতে আসা সঙ্গী, তার বাবাসহ পরিবারের লোকজন আশপাশের বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুজি করেও কোন সন্ধান পায়নি। পরে তার মা আত্রাই এসে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) দায়ের করেন। আনিছুর নিখোঁজ হওয়ার এক সপ্তাহ পার হলেও এখনো পুলিশ তার কোন খোঁজ না পাওয়ায় আনিছুরের পরিবারের মধ্যে উৎকন্ঠা দেখা দিয়েছে।
হিরণ মিয়া জানান, পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে দ্রুত আনিছুরকে খুঁজে দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন। ঘটনার তদন্তকারি পুলিশ কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক রাশেদ আলী জানান, থানায় জিডি দায়েরের পর স্থানীয় ও অটোরিকসা চালকদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, আনিছুর নওগাঁর উদ্দেশ্যে অটোরিকসায় চড়ে যাওয়ার তথ্য পাওয়া গেছে। সেল ফোন বন্ধ হওয়ার আগেও সর্বশেষ লোকেসন ছিল নওগাঁ শহরের বাসস্টান্ড এলাকা। নওগাঁতে খোঁজ জানা গেছে আনিছুর বগুড়া যাওয়ার জন্যে রাতে গাড়ীর খোঁজ করেছেন । এখন পর্যন্ত সেল ফোন বন্ধ থাকায় তার লোকেসন জানা সম্ভব হচ্ছে না।
আত্রাই থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তারেকুর রহমান সরকার জানান, আনিছুরের ইচ্ছার বিরুদ্ধে পরিবারের লোকজন জামাতে পাঠানো পর থেকে গ্রামের বাড়ি চলে যাওয়ার বারবার ইচ্ছা প্রকাশ করেন তিনি। কিন্তু আনিছুরের বাবা হিরণ মিয়া বুঝিয়ে রেখেছিলেন । প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে, জামাতে থাকার ইচ্ছা না থাকায় তার বাবাসহ কাউকে না জানিয়ে চলে গেছেন। তারপরও যেহুতু যুবকটি নিখোঁজ রয়েছে তার সন্ধানে সর্বাত্মক চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।


প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১৬, ২০২২ | সময়: ৫:১০ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর