বাজাজ মোটরসাইকেলের মাইলেজ প্রতিযোগীতা

সানশাইন ডেস্ক : বাংলাদেশে অটোমোবাইল সেক্টরের স্বনামধন্য, সুপ্রতিষ্ঠিত ও শীর্ষস্থানীয় মোটরসাইকেল আমদানিকারক, সংযোজনকারী, প্রস্তুতকারী এবং বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠান উত্তরা মোটর্স মোটরসাইকেল বিক্রয়ে এককভাবে ৪০% মার্কেট শেয়ারের অধিকারী। উত্তরা মোটর্স দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং সর্বাধিক বিক্রিত বাজাজ মোটরসাইকেল দীর্ঘ ৪ দশক ধরে সমগ্র দেশব্যাপী ১৫টি শাখা অফিস, ৩০০ টির অধিক থ্রী এস ডিলার (সেলস, সার্ভিস ও স্পেয়ার পার্টস) এর মাধ্যমে বাজারজাত করে আসছে ও অনুমোদিত সার্ভিস সেন্টার তথা প্রশিক্ষনপ্রাপ্ত মেকানিক্স এর মাধ্যমে শহর থেকে গ্রাম গঞ্জে বিক্রয়োত্তর সেবা প্রদান নিশ্চিত ও সহজলভ্য করে আসছে । উত্তরা মোটর্স বাংলাদেশে বাজাজ মোটরসাইকেলের একমাত্র পরিবেশক।
উত্তরা মোটর্স লিমিটেড সমগ্রদেশব্যাপী বাজাজ মোটরসাইকেলের মাইলেজ চ্যালেঞ্জ এর কার্যক্রম শুরু করেছে। এই মাইলেজ চ্যালেঞ্জ এর মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে প্রতি লিটার অকটেন এ বাজাজ মোটরসাইকেলটি কত কিলোমিটার যায় এবং বাংলাদেশে চলাচলরত অন্যান্য মোটরসাইকেল থেকে বাজাজ ই যে বেশী মাইলেজ পায় এ সম্পর্কে একটি সুস্পষ্ট পরীক্ষা। তাছাড়া সড়কে নিরাপদ ভাবে বাইক চালানো, ড্রাইভিং লাইসেন্স ও ট্রাফিক সতর্কতা মূলক চিহ্ন গুলো সম্পর্কে প্রশিক্ষন দেওয়া হয়। অধিক মাইলেজ পেতে মোটরসাইকেলকে কিভাবে রক্ষনাবেক্ষণ করতে হয় সে সম্পর্কেও একটি উপযুক্ত ধারনা প্রদান করা হয়। বাংলাদেশের ইতিহাসে এই ধরনের মাইলেজ চ্যালেঞ্জ সর্ব প্রথম উত্তরা মোটর্স ২০১১ সালে শুরু করে।
উল্লেখ্য যে দেশে ক্রমবর্ধমান জ্বালানী মূল্যবৃদ্ধির সময় বাজাজ মোটরসাইকেলের মত জ্বালানী সাশ্রয়ী মোটরসাইকেল ব্যবহারকারীদের নিকট ইতিমধ্যে অত্যন্ত সমাদৃত হয়েছে এবং প্রমাণিত হয়েছে যে, বাজাজ মোটরসাইকেলই মাইলেজ সেরা এবং আস্থার প্রতিক।
গত ২৬শে নভেম্বর নীলফামারীর পলাশবাড়ী পরশমণী হাইস্কুল মাঠে এবং ৩রা ডিসেম্বর দিনাজপুর চিরিরবন্দরের ইছামতি হাইস্কুল মাঠে বাজাজ প্লাটিনা ও ডিসকভার মোটরসাইকেল এর মাইলেজ চ্যালেঞ্জ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয় । উভয় প্রতিযোগীতায় রেজিষ্ট্রেশনকৃত ১৪৫ জনের অধিক মোটরসাইকেল মালিকগন অংশ গ্রহন করেন। নীলফামারীর জনাব মোসাদ্দেক হোসাইন তার ডিসকভার ১২৫ মোটরসাইকেলে প্রতি কিলোমিটারে সর্বোচ্চ ৯৬.২৫ কিলোমিটার এবং চিরিরবন্দরের জনাব ভরত রায় সর্বোচ্চ ১১৫ কিলোমিটার মাইলেজ পান। অনুষ্ঠানে অংশগ্রহনকারী সকল মোটরসাইকেল মালিকগনকে টি-শার্ট, ক্যাপ এবং র‌্যফেল- ড্র এর মাধ্যমে বিভিন্ন পুরস্কারে পুরস্কৃত করা হয়। পরবর্তী প্রতিযোগীতা আগামী ১৭ই ডিসেম্বর বগুড়ার ধুপচাচিয়ায় ধাপের হাট আলু পট্টি মাঠে এবং ২৪শে ডিসেম্বর নাটোরের ফুলবাগানে হেলিপেড মাঠে অনুষ্ঠিত হবে।


প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৮, ২০২২ | সময়: ৬:৩৩ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ