অসহায় মানুষের স্বপ্ন পূরণে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

নুরুজ্জামান,বাঘা :

উপহার পেলে কে-না খুশি হয় ? সেটি বড়, মাঝারি , কিংবা ছোট-যাই হোকনা কেন, এর আলাদা একটা গুরুত্ব ও তাৎপর্য রয়েছে। আর এটি যদি পান কোন অসহায় নারী ,তাহলে তো আর কোন কথাই থাকে না ! এমন একজন নারীকে এবার অটো গাড়ির ব্যাটারি কেনার টাকা দিয়েছেন চারঘাট-বাঘার গণমানুষের নেতা পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

 

প্রিয় পাঠক , আজকে যে নারীর কথা বলছি , তার নাম জাহেদা বেগম(৪৮)। বাড়ী বাঘা উপজেলার পাকুড়িয়া ইউনিয়নের জোতকাদিরপুর গ্রামে। তাঁর বিয়ে হয়েছিল। কিন্তু স্বামী দ্বিতীয় বিয়ে করায় সংসার হয়নি। একমাত্র সন্তানকে রেখে স্বামী অন্যত্র চলে গেছেন। এরপর থেকে জাহেদা বেঁছে নিয়েছেন সংগ্রামী জীবন। প্রথমে একটি ভ্যান চালাতেন। তা থেকে তার যে আয় হতো সেখান থেকে একটু-একটু করে অর্থ জমিয়ে তিনি কিনেছেন ব্যাটারি চালিত একটি অটোগাড়ি। বর্তমানে সেই গাড়ির দুটি ব্যাটারি নষ্ট হয়ে যাওয়ায় তিনি অনেকটা মানবেতর জীবনযাপন করছিলেন।

 

এরপর হটাত করে গত কয়েকদিন পূর্বে ঐ গ্রামের একটি উন্নয়ন প্রকল্প (নদী ড্রেজিং) উদ্বোধন পরবর্তী সভায় স্থানীয় সাংসদ ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এর দেখা পান তিনি। সেখানে গিয়ে আবেদন জানান দুটি ব্যাটারির ক্রয়ের। অত:পর সোমবার সন্ধ্যায় প্রিয় নেতা পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এর পক্ষ থেকে তার হাতে নগদ ৩২ হাজার টাকা তুলে দেন ঐ ইউনিয়ন আ’লীগের যুগ্ন আহবায়ক নয়ন সরকার।

 

নয়ন সরকার এ প্রতিবেদককে জানান, আমাদের দেশে অনেক মানুষ আছে যাদের সাধ আছে সাধ্য নেই , এমন মানুষ স্বপ্ন দেখেন আলাদিনের সেই চেরাগের। যাতে ঘষা দিলেই দৈত্য এসে স্বপ্নটা পূরণ করে দেবে। আর সমাজের সামর্থ্যহীন এ রুপ মানুষের স্বপ্ন পূরণে যদি কেউ এগিয়ে আসেন তিনি আর কেউ নন, তিনি হলেন, পর-পর তিনবার নির্বাচিত সাংসদ ও মাননীয় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আলহাজ শাহরিয়ার আলম।

 

নয়ন সরকার বলেন, আমাদের প্রিয় অভিভাবক শাহরিয়ার ভাই তাঁর সম্মানী ভাতার সমুদ্বয় অর্থ শিক্ষাখাতে ব্যায় করে থাকেন। এ ছাড়াও নিজ উদ্যোগে নানা মুখি অনুদান-সহ অসংখ্য গরিব- দুখি মানুষের কল্যানে পাশে দাড়ান। গত কয়েকমাস আগে তিনি একজন বৃদ্ধকে ফ্রিজ কিনে দিয়ে সর্বমহলের কাছে প্রশংশিত হয়েছেন।

 

এদিকে অটো গাড়ির ব্যাটারি কেনার টাকা পেয়ে আবেগ-আপ্লুত হয়ে জাহেদা বেগম স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, আমি স্বপ্নেও ভাবিনি মন্ত্রী আমার কথা শুনবে। আমি লোকজনের ভিড়ে তাঁর কাছে যেতেই পারছিলাম না। তিনি দুর থেকে লক্ষ্য করে আমাকে কাছে ডেকে নিলেন। এরপর আমার আবদার শুনে বললেন, দু’চার দিনের মধ্যে আপনি আপনার গাড়ির ব্যাটারি পেয়ে যাবেন । আমি সেই ব্যাটারি কেনার জন্য নগত ৩২ হাজার টাকা পেয়ে সত্যিই গর্বিত। সৃষ্টিকর্তার কাছে দোয়া করি তিনি যেনো সব সময় আমাদের মন্ত্রীকে ভাল রাখেন এবং মানুষকে সহায়তা তৌফিক দান করেন।

সানশাইন / শামি


প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৬, ২০২২ | সময়: ৫:২১ অপরাহ্ণ | Daily Sunshine

আরও খবর