বিজয়ের মাস

সানশাইন ডেস্ক : এবারের বিজয়ের মাস বিশেষ তাৎপর্য বয়ে এনেছে পুরো জাতির জীবনে। আর এক বছর পরই জাতীয় নির্বাচন। একাত্তরের পরাজিত শত্রুরা আবার মাথা তুলে দাঁড়াবার চেষ্টা করছে। তাই সব অশুভ অপশক্তিকে পরাজিত করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বিনির্মাণের দৃঢ় প্রত্যয় নিয়েই গোটা জাতি মাসব্যাপী পালন করবে বিজয়ের মাসের নানা কর্মসূচি। বিজয়ের মাস এই ডিসেম্বরে বাঙালি জাতি নতুন করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্দীপ্ত হবে, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের অসাম্প্রদায়িক ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত সোনার বাংলা বিনির্মাণে নতুন করে শপথ নেবে।
আজ বিজয়ের মাস ডিসেম্বর চতুর্থ দিন। এবার এক ভিন্ন আবহে এসেছে বিজয়ের মাস ডিসেম্বর। বৈশ্বিক মহামারির পাশাপাশি রাশিয়া-উইক্রেন যুদ্ধের কারণে অর্থনৈতিক মন্দা দেখা দিয়েছে বিশ্বের সর্বত্র। বাংলাদেশও এর বাইরে নয়। বৈশ্বিক অর্থনৈতিক মহামন্দার হাত থেকে দেশের মানুষকে সুরক্ষায় ক্ষমতাসীন মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্বদানকারী দল আওয়ামী লীগ সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।
মুক্তিপাগল বাঙালি জাতি এক সাগর রক্তের বিনিময়ে এই ডিসেম্বরেই ছিনিয়ে আনে হাজারো বছরের লালিত স্বপ্ন প্রিয় স্বাধীনতা যুদ্ধের মহান বিজয়। বিশ্ব মানচিত্রে স্থান পায় লাল-সবুজের রক্তস্নাত স্বাধীন পতাকা, স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ। তাই ডিসেম্বর হচ্ছে পৃথিবীর মানচিত্রে একটি নতুন জাতি ও ভূখ-ের স্বীকৃতি আদায়ের মাস। ২৪ বছরের পাকিস্তানি শাসন-শোষণকে পদানত করে ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধে বাংলার দামাল ছেলেরা ছিনিয়ে আনা বীরত্বগাথা বিজয় অর্জনের মাস।
১৯৭১ সালের এই ডিসেম্বরেই বাঙালির নয় মাসের রক্তক্ষয়ী মুক্তি সংগ্রামের চূড়ান্ত বিজয় অর্জিত হয়। ৩০ লাখ শহীদের রক্ত আর দু’লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে এই ডিসেম্বরের ১৬ তারিখেই আমরা পেয়েছিলাম দেশের স্বাধীনতা।


প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৪, ২০২২ | সময়: ৬:১৫ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর